কালো মেয়ের প্রতি অবহেলা পার্ট-০৮

0
491

কালো মেয়ের প্রতি অবহেলা পার্ট-০৮

jannatul_ferdous

 

এভাবেই কেটে গেল ৫টা বছর।

৫বছর পর—-

শিমু- মিষ্টি পরী দাঁড়াও । আরে এত দৌড়াচ্ছো কেন? ব্যাথা পাবে তো।.

মিষ্টি পরী- ফ্রেন্ড, তুমি কই।

((পুরো অফিসের স্টাফরা তাকিয়ে আছে শিমু আর পরীর দিকে))

রিফাত- এই তো ফ্রেন্ড এখানে।

মিষ্টি পরী- ফ্রেন্ড মাম্মাম আমাকে বকেছে।

রিফাত- শিমু তুমি আমার ফ্রেন্ডকে বকলে কোনো?

শিমু- ভাইয়া তোমার জন্য মেয়েটা এরকম হয়েছে. কথাই শুনে না।

রিফাত- ফ্রেন্ড এসব কি বলতেছে?

মিষ্টি পরী- আমি শুনি তো সব কথা!

রিফাত- আচ্ছা চলো আমরা খাবার খাবো!

শিমু- চলো ভাইয়া।

মিষ্টি পরী(পুরো নাম তাসনিয়া জান্নাত পরী) শিমুর মেয়ে। খুব দুষ্টু প্রকৃতির আর রিফাত- রিমুর চোখের মনি হচ্ছে !

খাবার খেতে খেতে…

রিফাত- জিহাদ আমাদের বিজনেস পার্টনার হবে শিমু।

শিমু-জিহাদ.???(( আবার ৫বছর আগের কষ্ট অবহেলা গুলো চোখের সামনে ভেসে উঠলো শিমুর। চোখের পানিতে টলমল করছিলো))

রিফাত- কান্না করবে না । ওর কাজের উপযুক্ত জবাব দেওয়ার সময় এসেছে।

শিমু- আমাকে চিনে পেলবে না তো ভাইয়া ।

রিফাত- না চিনার কোনো সম্ভাবনা নেই।যে রঙের জন্য জিহাদ তোমাকে অবহেলা করেছে,সে রংটাই তো এখন আর নেই.৫টা বছর শেষ হয়ে গেছে শিমু।আর ৫বছরে তুমি অনেক কিছু শিখেছো। জিহাদের কাজের জবাব দিতে পারবে না তুমি ওকে??

শিমু- আমাকে পারতেই হবে। আমার মেয়েটা কোনো অধিকার পায় নাই ওর কাছে । বাবার আদর আর ভালোবাসা পায় নাই। আর ওতো ৪ মাসের মধ্যে একটা দিনও অত্যাচার করতে ছাড়ে নি আমাকে। আর আমাকে যেভাবে হোক পারতেই হবে।

রিমু- আপু তুমি পারবে, তোমাকে পারতেই হবে।

শিমু- ওহ্ রিমু তুই এসেছিস ।জিহাদ তো আজ আসবে তাই না ভাইয়া।

রিফাত- হুমমমমম মিটিং আর ৩০ মিনিট পর।

শিমু- ওকে, রিমু তুমি একটা কাজ কর।মিষ্টি পরীকে বাসায় নিয়ে যাও।

রিমু- পরী মামুনি চলো।

মিষ্টি পরী- মাম্মাম তুমি যাবে না।

শিমু- না আম্মু,আমার একটু কাজ আছে,তুমি বাসায় চলে যাও।

রিমু- চল।

মিষ্টি পরী- না আমি মাম্মাম আর ফ্রেন্ডকে ছেড়ে যাবো না।

রিফাত- এই নাও তোমার চকলেট ফ্রেন্ড। এবার যাবে তো?

তাসফিহা- লাভ ইউ ফ্রেন্ড। উম্মাহ্হ্?? (একটা চুমু দিলো রিফাতের গালে)

রিফাত- লাভ ইউ টু ফ্রেন্ড?? (বলেই একগালে চুমু দিলো)

(পরী মুখ বাঁকা করে তাকালো)

রিফাত- ওহ্ সরি। বলেই গালে আর কপালে চুমু দিলো। তারপর রিমু পরীকে নিয়ে চলে গেল।

কিছুক্ষণ পর জিহাদ আসলো…

জিহাদ- হ্যালো মি.রিফাত সাহেব।

রিফাত-হাই ,নাইচ টু মিট ইউ।

জিহাদ- থ্যাংক ইউ। সেইম টু ইউ।

শিমু- প্লিজ সিট ডাউন মি.জিহাদ চৌধুরী।

জিহাদ তো শিমুর দিকে তাকিয়ে অবাক হয়ে গেল…

জিহাদ- নাম কি আপনার?

শিমু- জান্নাতুল ফেরদাউস।

জিহাদ- ওহ্ আচ্ছা ,নাইচ নেইম!

শিমু- থ্যাংকস। ((আজকে সৌন্দর্য আর স্মার্ট বলে আমার নাম জানতে চাইছো তুমি। আর প্রথম দিন তোমার বিহেভিয়ার দেখে মনে হয়েছিলো কালো হওয়াটাই মনে হয় অপরাধ ছিলো আমার))
মনে মনে ভেবে একটা দীর্ঘশ্বাস পেললো।

মিটিং শেষ করে জিহাদ চলে গেল…

(৫ মিনিট পর ..একটা মেসেজ আসলো রিফাতের ফোনে))

মেসেজ- থ্যাংক ইউ ফর ইউর হেল্প।((রিফাত হাসলো))

শিমু- ভাইয়া কি হল নিজে নিজে হাসছো কেন?

রিফাত- না কিছু না। ওকে তোর ভাবির সাথে দেখা করবো । বাই,,

শিমু- ওকে বাই।

রিফাত- অফিসের কাজ দেখিস আর কাজ শেষে বাসায় চলে যাইস ঠিকমত।

শিমু- ওকে ,বাই। কিন্তু ভাবিকে দেখালো না তো এখনো।

রিফাত- পরে দেখাবো। টা টা..

((রিফাত চলে গেলো। তারপর পুষ্পের কল আসলো))

পুষ্প- হ্যালো ননদীনি।

শিমু- হাই ভাবি।

পুষ্প- ননদীনি সাহেবা আমার বিয়েতে আসবেন না আপনি?

শিমু- বিয়ের দিন যাবো!

পুষ্প- ওকে ননদীনি।

শিমু- তোর মতো মেয়েকে কিভাবে যে আমার ভাইয়া পটালো। ভবিষ্যৎতে আল্লাহ জানে কত ধমক শুনতে হয় আমার ভাইটার।

পুষ্প- আমি যে তোর ভাইকে বিয়ে করবো এটাও তোর ভাইয়ের সুভাগ্য..

শিমু- হুমমমম ঝগড়াটু পেত্মী।

পুষ্প- রাখ তো,মেজাজ গরম করিস না। সঠিক সময়ে পরী মামুনি কে নিয়ে চলে আসিছ। কতদিন পর তোর সাথে দেখা হবে।

শিমু- হুমমম সেদিন অনেক সারপ্রাইজ অপেক্ষা করছে সবার জন্য। অনেক দিন পর আবার সবাইকে দেখবো। সাথী,মা,বাবা,ভাইয়া কে দেখবো । রিত্ত,বড় আব্বু আর ….((চুপ হয়ে গেল))

পুষ্প- জিহাদ ভাইয়াকে দেখবি তাই তো??

শিমু- আজকে দেখা হলো ওর সাথে। ৫ বছরে অনেক বদলে গেছে জিহাদ

পুষ্প- হুমমমমম ভালোই তো। তুই জানিস ওই দিন তোর জন্য অনেক সারপ্রাইজ অপেক্ষা করছে।Just wait and see…

শিমু- কী সারপ্রাইজ বল না..

পুষ্প- বলবো না। আগে আয় বিয়েতে ।

শিমু- আরে দূর সারপ্রাইজে আমার এলার্জি আছে।বল না জানু।

পুষ্প- বলবো না পেত্মী।নিজেই দেখে নিস। আর আঙ্কেল আন্টির সাথে দেখা হবে এটাই তো বড় সারপ্রাইজ,জানিস তোর জন্য না সাথী খুব কষ্ট পাচ্ছে।

শিমু- হুমমম ,, আমার বোনটাকে অনেক দিন হল দেখি না।

পুষ্প- সাথী তোকে অনেক মিস করে রে…

শিমু- রিত্ত আসবে তোর বিয়েতে?

পুষ্প- হুমমম রিত্তকে তো আসতেই হবে।

শিমু- ওকে তাহলে সবার সাথে দেখা হবে আর সবাইকে এর থেকেও বড় সারপ্রাইজ দিবো।

পুষ্প- হুমমম দেখা যাবে। (তুই সবার থেকে ও বড় সারপ্রাইজ পাবি )মনে মনে.

শিমু- ওকে বাই, তাহলে দেখা হচ্ছে…

পুষ্প- বাই,তাড়াতাড়ি আসবি কিন্তু?

শিমু- ওকে ভাবি।
.
.
.
.
চলবে———

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here