গল্প : হবু বউ শেষ পাঠ

0
595

গল্প : হবু বউ শেষ পাঠ

,,,,,
লেখক : অর্দ্র ( MR)

যখন রুবি তার চোখ বন্ধ করে ফেলেছে তখনই দরজায় ঠক ঠক আওয়াজ হলো । আওয়াজ হওয়াতে রুবি আমাকে ছেড়ে দিল আর মুখে অটোমেটিক ভাবে এক চিলতে হাসি ফুটে উঠলো ।
রুবি আমার দিকে তাকিয়ে দেখলো আমি হাসছি ঠিক তখনই ও আবার আরো জোরে আমাকে ধরে আমার গালে একটা চুমু দিয়ে দিল ‌ আমি তো রিতিমত অবাক কী মেয়ের বাবা। আমাকে ছেড়ে দিয়ে ও উঠে যাচ্ছে কিন্তু ওর মুখে প্রচন্ড রকম বিরক্তি প্রকাশ পাচ্ছে ।আর আমার কথা ভাবছেন আমি তো পুরাই টাস্কি খেয়ে গেছি ।
যাইহোক ও গিয়ে দরজা খুলতেই দেখলাম ওর আম্মু মানে আমার শ্বাশুড়ি । ও গিয়ে বলল,,,,
রুবি : কী হয়েছে আম্মু । ( একটু ঘুমিয়ে গেছিলাম । ( একটু ঘুমের ঘোরে থাকার মতো করে বলল।)
ও তুই তো বড়ই কেয়ারলেস মেয়েরে ।( শ্বাশুড়ি)
রুবি: কেন আমি আবার কী করলাম হ ‍্যা।
শ্বাশুড়ি : দেখ তো আয়ান এর ঠোঁটের ওখানে কেটে গেছে দেখে তুই এই মলম টা এনে রেখে দিয়েছিস ‌ । কেন এটা ওখানে লাগাতে হবে না।
রুবি কিছু বলতে যাবে তার আগে আমিই বললাম না আন্টি আসলে ও নিয়ে এসেছিল কিন্তু আমিই দিতে চাইনি সেজন্য আবার রেখে এসেছে ।
আমার কথা শুনে রুবি আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি মুচকি হাসছে ।
আমার শ্বাশুড়ি বলছে কেন ও আচ্ছা । ঠিক আছে তোমারা তাহলে ঘুমাও । কিন্তু এটা দিলে একটু তারাতাড়ি সেরে যেত ।
আমি : আচ্ছা দিন আমি লাগিয়ে নিব নি ।
তারপর আমার শ্বাশুড়ি ঐটা দিয়ে চলে গেল,
তারপর রুবি ঐটা হাতে করে আমার কাছে এসে বলল বাহ খুব ভালো মিথ ‍্যে বলতে পারেন তো । ( রুবি)
আমি : আপনাকেই তো বাচালাম । না হলে আপনাকে তো আপনার আম্মু না মানে আমার শ্বাশুড়ি অনেক বকা দিত । সেটা বুঝতে পেরেই তো আমি ঐটা বললাম ।
রুবি : ও তাই বুঝি । তা এখন এটা লাগিয়ে নাও তাহলে এটা তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যাবে ।
আমি : কোনো দরকার নেই এটা লাগাতে হবে না । ওটা এমনিতেই ভালো হয়ে যাবে ।
রুবি আর জোর করলো না আর বলল,,,,
রুবি : এখন শুয়ে পড়ুন অনেক রাতই তো হলো ।
আমি : কী আপনি ঘুমাবেন না । না কোথাও যাবেন আমি ঘুমানোর পরে।
রুনি : হ ‍্যা যাবো তো আমার বয়ফ্রেন্ডের সাথে দেখা করতে । কালকে তো আপনার বাড়িতে ছিলাম তাই যেতে পারিনি ।
আমি : কীইইইইই ।
রুবি : হ‍্যা ।
আমি : কোথায় আপনার বয়ফ্রেন্ড আমিও যাবো দেখা করতে । চলেন ।
রুবি : আপনাকে যেতে হবে না । আর আপনার লজ্জা লাগবে না আপনি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখবেন আমরা কি করবো ।
এবার আমার একটু রাগ হচ্ছে ।
আমি : আচ্ছা ঠিক আছে । আপনি যান ‌ । তবে আগেই বলতে পারতেন যে আপনার এমন কেউ আছে ।
রুবি : তাহলে কী করতেন ।
আমি : তাহলে আপনাকে বিয়ে করতাম না ।
রুবি: কীইইইই তুই আমারে বিয়ে করতি না তো কাকে বিয়ে করতি বল। ( আমার কলার ধরে ঝাকাতে ঝাকাতে বলল)
এবার আমি রিতিমত অবাক আর নির্বাক দুটাই । এখন আমি বুঝতে পারছি কেন ও বিয়ের আগে আমাকে এভাবে জ্বালিয়েছে।
আমি : ঐ কলারটা তো ছাড়েন । ( একটু ভয়ে)
আর আপনি বললেন বলেই তো বললাম ।
রুবি : আপনি বুঝতে পারছেন না কেন ‌ । আমি তো বলেছি তাই না যে আমার ভুল হয়ে গেছে। সরি সরি সরি কিন্তু আপনি বুঝতেই চাইছেন না তো আমি কী বলবো বলেন ।
( হায় হায় এটা আমি কী দেখছি রুবি কান্না করে দিছে কিন্তু আমার কলার এখনো ছাড়েনি ।)
আমি কী করবো বুঝতে পারছি না । আসলে আমার যে ও কে ভালো লাগে না তাও না কিন্তু ,,,,,
ধুর কিসের কিন্তু যাই করুক না কেন সব তো আমার সাথেই করেছে আর বউটা তো আমার তাই না ।
আমি ওর চোখের পানি গুলো মুছে দিলাম আর বললাম ,,,,
এতো কষ্ট পাওয়ার কী আছে আমি তো অভিনয় করছিলাম আপনি যেমন করেছেন তেমন। (আমি)
রুবি আর কিছু বলল না আমার কলার ছেড়ে এখন আমায় ধরেছে ।
আমি এবারো অবাক কারন এই রকম পরিস্থিতিতে আমি প্রথম ।
আমার এই রকম দেখে রুবি বলল কী একটু জড়িয়ে ধরতেও পারেন না নাকি হ ‍্যা । ( রুবি)
আমি : হুম ,,,
আমি হুম বলতেই ও আরো বেশি শক্ত করে জড়িয়ে ধরল আমায় মনে হচ্ছে ছোট বাচ্চা ভয় পেয়েছে । যাইহোক আমার ও যখন ধরেছে সেহেতু আমি ও ধরলাম ।
হায় হায় আপনারা সবাই শুনে ফেলেছেন ,,,, কী লজ্জা কী লজ্জা তবে ডোন্ট মাইন্ড হ ‍্যা । আপনারা আবার কাউকে বলবেন না কিন্তু ।
যাইহোক পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে নাস্তা করে একটু ঘুরতে বের হলাম একা একাই ।
তারপর দুপুরের পর খাওয়া দাওয়া শেষ করে বিকেলে আমরা আমার বাসায় না মানে আমাদের বাসায় চলে আসলাম ।
ও আপনারা আবার শুনবেন কালকে রাতের সব কথা হায় হায় কী বলবো বলেন লজ্জা লাগছে ।
না মানে বুঝেনি তো ওটা তো ছিল শ্বশুর বাড়ি ঐখানে কী আর কিছু হয়।
হ ‍্যা তবে ঘুম হয়েছে একটু ।
তবে রুবি আমার বুকের উপর মাথা রেখে ঘুমিয়েছে আর আমি আমি আর কী করবো আমি শুধু জরিয়ে ধরে ঘুমিয়ে ছিলাম।
যাইহোক বাসায় এসে রাতের খাবার শেষ করে সবার সাথে গল্প করে তারপর আর কী রুমে গেলাম । গিয়ে দেখি বউটা আমার মুখটা ফুলিয়ে বসে আছে সেই বাসর রাতে যেভাবে বসেছিল সেই ভাবে । আমি রুমে যেতেই এসে আমার পায়ে সালাম করলো । কিন্তু আমি অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম কী ব ‍্যাপার আজকে তো বাসর না ।
ও কী বলল জানেন ,,,,
তো কী হয়েছে প্রথম দিন তো আর বাসর হয়নি তবে আজকে আর ছাড়ছি না বলেই আমার ওপর হামলা শুরু ,,,,,
এখানে থেকেই শুরু হলো রুনি আর মেহেদীর এর দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের সংসার ।

সমাপ্ত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here