বসযখনবর _পার্ট_১

0
672

বস যখন বর
_পার্ট_১
Written by Avantika Anha
আমি আনহা । পড়া শুনা এখনো শেষ হয় নি । তবুও শখ করে একটা কম্পানি তে জব নিলাম । শুধু হাতখরচের জন্য ।
.
মেয়ে বলতে আমি ফাজিলের ডিব্বা আবার আবেগের দিক দিয়েও আমি ১ নাম্বার খালি কেঁদে ফেলি সহজে ।
.
তাই বান্ধবীরা আমাকে পাগলি বলার পাশাপাশি একটু আবেগী মাইয়াও বলে । ব্যাপার না । এমা আপনাদের এতো বলছি কেন । আপনারা যদি আমাকে পাগলি বলে ফেলেন । হিহি
.
সকাল বেলা আজ অফিস এর প্রথম দিন ।
.
সকালে
মা : শখ করে তো নিলি পারবি তো ?
আমি : আরে মা ব্যাপার না তো
মা : আচ্ছা যা
আমি : ওকে আমার সেন্টি রাগি মা টাটা
.
স্কুটি নিয়ে দিলাম দৌড় ।
.
এমা রাস্তায় আঙ্কেল টার হইছে কি ?
.
এখন কি করবো জিজ্ঞেস করবো কি হইছে ? যদি দেরি হয়ে যায় চাকরি তো যাবে । দুরর মানবতা আগে ।
.
আমি : আঙ্কেল আপনার শরীর কি খারাপ রাস্তায় এভাবে দাড়িয়ে যে‌ । কোনো কি সমস্যা ?
আঙ্কেল : আসলে ছিনতাইকারী গাড়ি , টাকা নিয়ে গেছে আর আমার গরমে থাকার অভ্যাস নাই । তাই শরীর টা খারাপ লাগছে
.
আমি ভাবতেছি কি করুম এভাবে রেখে গেলে তো নিজেকে মুখ দেখাতে পারবো না । দুর চাকরি গেলে যাবে । উনাকে সাহায্য করি আগে ।
.
আমি : আসুন আমি পৌছে দিচ্ছি আপনাকে
আঙ্কেল : কিন্তু মা তোমার তো মনে হয় কাজ আছে
আমি : ব্যাপার না চলুন
আঙ্কেল : ধন্যবাদ আজকাল এমন হয় না রে মা
আমি : কোনদিকে আপনার বাড়ি ?
আঙ্কেল : আমাকে অফিসে পৌছে দাও তাতেই হবে ।
আমি : কোনদিকে ?
আঙ্কেল : ওইতো আদ্র গ্রুপ এন্ড কম্পানি
আমি : আপনি কি ওখানে জব করেন জানেন আমারো আজ ওখানেই জব হয়েছে কিন্তু মনে হয় হবে না জব টা কারণ আমি লেট হয়ে গেছি‌
আঙ্কেল : আমি ওখানকার মালিক মা
আমি : কিইইইইই স্যার আপনি আমার
আঙ্কেল : তুমি আমাকে আঙ্কেল ই বলিও আর চাকরি যাবে না
আমি : ধন্যবাদ আঙ্কেল
.
অফিসে কাজের জীবন শুরু । আঙ্কেল আমাকে খুব ভালোবাসতেন ।
.
অফিস বাড়ি থেকে দুর হয়ে যায় ভেবে আমি আম্মু আর আব্বু সহ ভাড়া বাসা খুঁজছিলাম । আঙ্কেল যখন জানতে পারে তখন তার বাড়িতে উঠতে বলে । তখন আমি রাজী হই না কারণ তা দয়া টাইপ লাগতো ।‌
.
তখন আঙ্কেলদের পাশের ওদিক একটা বাসা নিলাম আমরা । হয়ে গেলাম প্রতিবেশী ।‌ আঙ্কেলের ভালোবাসার পরিমাণ বেড়ে গেল । আঙ্কেলের বউ মারা গিয়েছে । আপন বলতে এক ছেলে যে বিদেশে থাকে ।
.
.
কিছু মাস পর এতোদিনে অফিসের সবাই অনেক আপন হয়ে গিয়েছে । আজ আঙ্কেলের ছেলে আসবে ।‌
.
আঙ্কেলের বাড়িতে গিয়ে গাছগুলোয় পানি দিচ্ছিলাম আর
গান শুনছিলাম ইয়ারফোন লাগিয়ে কার সাথে জানি ধাক্কা ।
.
আমি : কে রে ধাক্কা দিল?
সে : হোয়াট
আমি : হোয়াট পরে এইটা কি করলেন আমাকে কাদা কাদা করে দিছেন
সে রেগে : আপনি জানেন আমি কে
আমি : এমা এটা কি আঙ্কেলের ছেলে নাকি ?
ভুলেই গেছিলাম
সে : আমি এই বাড়ির মালিকের ছেলে
আমি : খাইছেরে সরি ??
সে : হুহ যত্তসব
আমি : এএএএএএ
সে : কে আপনি
আমি : পাশের বাড়ি + আপনাদের কোম্পানি তে জব করি
সে : হুহ তো এখানে কি
আমি : আঙ্কেলকে বলে এখানে বেশ কিছু গাছ লাগিয়েছি তাই নিজেই ফুলগাছ গুলোর যত্ন নেই আর এতো রাগেন কেন আপনি রাগ কইরেন না কিটক্যাট দিব‌
( এমা কি বলতেছি )
সে : আব্বু আব্বু
আমি : সরি আমি একটু বেশি বকবক করি
সে : হুহ
আমি : এতো রাগেন কেন পিচ্চির উপর
সে : কে পিচ্চি
আমি : এখানে আর কে আছে আমি ছাড়া
সে : ভালো
.
পরিচিত হলাম । খাটাস একটা কেমন রাগি আঙ্কেলের ছেলে মনেই হয় না ।
.
রাতে
আম্মু : মা
আমি : কিচ্চে
আম্মু : তোর আঙ্কেল কে এগুলো দিয়ে‌ আয় তিনি অনেক সাহায্য করেছেন ।
আমি : আচ্ছা
.
তারা খেতে বসেছিল
আমি : আঙ্কেল দেখেন কু এনেছি
ও নামটা বলতে ভুলে গেছি তার নাম আদ্র
আদ্র : আবার ওই‌ মেয়ে
আঙ্কেল : কি মা
আমি : আম্মু দিছে
এই‌ নিন আমি যাই
.
আঙ্কেল : খেয়ে যা
.
আমি : না থাক অন্যদিন বলে আসলাম
.
আর আদ্র ভাবছে এই মেয়ে আমার আব্বু কে পটিয়ে রেখেছে এর উপর তো রাগ উঠতেছে
.
চলবে……

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here