প্রেম করে বিয়ে ❤❤

prem kore biye
প্রেম করে বিয়ে ❤❤ Writer: Asma Ul Husna Ema

প্রেম করে বিয়ে ❤❤

Writer: Asma Ul Husna Ema

আমাদের পরিচয় ২০১২ সাল এর অক্টোবর এর ১২ তারিখ থেকে।পরিচয় এফবি থেকে।কিন্তু কখনো কেও কাওকে নিজ থেকে নক দিয়ে কথা বা চ্যাট করতাম না।আর আমি তখন নতুন এফবি খুলি যার কারণে আমি যাকে তাকে এড করতাম।সে আমাকে রিকুয়েষ্ট দিয়ার পর আমি একসেপ্ট করি বাট নিজ থেকে কখনো কাওকে নক দিতাম না (পার্ট এ থাকতাম আর কি?)
২০১২ সালের মার্চ মাসে সে রিকুয়েষ্ট পাঠানোর পর প্রায় ৭মাস পর সে আমাকে হাই দিয়ে নক দেই আমি ২দিন পর রিপ্লাই দিতাম।কারণ আমি চুরি করে আম্মুর মোবাইল থেকে এফবি চালাতাম।এইভাবে টুকটাক কথা বলার পর অক্টোবর ৩০ তারিখ তার বার্থডে তে আমি উইশ করি। এরপর হাই হ্যালো কথা বলার পর এইভাবে আমার এস.এস.সি এক্সাম চলে আসে আর এফবি ২মাস অফ রাখি। যখন এক্সাম শেষ হয় তখন এফবি অন করার পর দেখি তার অনেক গুলা মেসেজ লিস্ট।এরপর আমার কলেজে ভর্তি নিয়ে টেনশনে ছিলাম।সে আমাকে কিছুটা হেল্প করছিল কলেজ আর ভর্তি হওয়ার অনেক ইনফরমেশন দিছিলো।তার নাম্বার দিছিলো আমি ফোন এ কথা বলে সব ইনফরমেশন নিয়ে নিই।এরপর টুকটাক মোবাইল এ কথা হত।যাই হক এইভাবে তার সাথে পরিচয় হওয়ার প্রায় ৩বছর পার হয়ে যাই।

২০১৫ সালের এপ্রিল এর ১তারিখ সে আমাকে প্রপোস করে।তাকে আমি আগেই পছন্দ করতাম কিন্তু বলা হইনি।এইভাবে রিলেশন চলার ৩বছর এর মাথাই বাসায় ধরা খাই।অনেক প্রব্লেম চলে।সবাই বুঝাইছে অকে ছেড়ে দিতে।ওর থেকে ভালো ছেলে এস্টাবলিশ পয়সাওয়ালা ছেলে আমার জন্য ডিজার্ব করে।কিন্তু আমি নাছোড় বান্দা ছিলাম তাকে আমি ছাড়িনি।সে যখন বিজনেস এ অনেক লাখ টাকার লস খায় সে সিদ্ধান্ত নেই সৌদি যাবে।২বছর এর ভিসা নিয়ে সে সৌদি আরব চলে যাই ২০১৭ সালের পহেলা বৈশাখ এর পরদিন।অনেক চেস্টা করে সে থাকার জন্য।সে ভালো জব পেয়েও সে সৌদি থাকেনি।সে চেষ্টা করছিল থাকার বাট তার নাকি আমাকে ছাড়া একা থাকতে কষ্ট হয়।তাই সে সাড়ে তিন মাসের মাথাই সৌদি আরব থেকে দেশ এ চলে আসে।অনেক কষ্ট করে সে তার ফ্যামিলিকে বুঝ দিয়ে তার আগের ব্যবসায় নামে।আমার ফ্যামিলি তাকে দিতে প্রথম এ রাজি ছিলনা।আমি বাবা মার একমাত্র মেয়ে যার কারনে তারা আমার দিকে চেয়ে তাকে মেনে নেই।অনেক ঝড় তুফান যাই তার আমার রিলেশন আর বিয়ে নিয়ে।
আমার ক্লোজ রিলেটিভরা আমাকে অনেক ধরণের কথা বলছি ওকে বিয়ে না করতে।অনেক এ অনেক কটুর কথা বলছিল।কিন্ত তাদের কথায় আমি পাত্তা দিনাই।ও শুকনো হওয়ার কারণে অকে আমার ফ্যামিলি রিজেক্ট করছিল।ও বিজনেস এ লস খাওয়ার পর টেনশেন এ অনেক শুকিয়ে গেছিল।অনেক ঝড় ঝাপ্টা পেড়িয়ে আমাদের শেষ এ এনগেজমেন্ট হয়ে গেলো ২০১৮ সালের নভেম্বর এর ২৩ তারিখ শুক্রবার এ।তার ঠিক ১ সপ্তাহ এরপর নভেম্বর এর ৩০ তারিখ আমাদের আকদ (কাবিন) হয়। আর ২০১৯ সালে ২৩শে মার্চ আমাদের বিয়ে হয়।

কিছু কথা☺☺

কখনো কাওকে যদি মন দিয়ে ভালোবাসেন চেষ্টা করবেন ভালোবাসাটা কে প্রবিত্র রাখতে আর অটুট রাখতে।এফবিতে পরিচয় রিলেশন টিকে না এই সেই এইসব কথা না শুনে নিজের মন কি বলতে চাই তা শুনুন আর বুঝুন আর সময়ের অপেক্ষা করুন।আপনার মন যদি পবিত্র থাকে তাহলে আপনি সাকসেসফুল হবেন ইনশাআল্লাহ।

আমাকে অনেক এ বলছিল বাপ্পি ছেলে ভালো না।ওর চেয়ে ভালো ছেলে ডিজার্ব করি।আসলে কপালে যার নাম লিখা আছে তার সাথে মিলন হবে এইটা আল্লাহর ইচ্ছা।
আমি খুব রাগি মেয়ে আর আমার হাজবেন যেমন রাগি আবার তেমন ঠান্ডা।আমি খুব ঝগড়া করি আর সে খুব সুন্দর করে আমাকে বুঝাই আর রাগ ভাংগাই।সংসার জীবন টাই এমন।কখনো সুখ কখনো দুঃখ। ঝগরা হবে কথা কাটাকাটি হবে কিন্তু সেটা অতিরিক্ত নই।ঝগরা হবে তাই বলে কি ছেড়ে দিব?রিলেশন ব্রেকাপ করব? না তা কখনো করবেন না।ঝগরা হলে তার সাথে বসে সমাধান করার চেস্টা করবেন।কিন্তু কখনো অতিরিক্ত মাত্রা কিছু করলে তা কখনো সহ্য করা যাই না। অনেক এ অনেক কিছু বলবে।আমাকে বলছে ওর থেকে বেটার ছেলে আমি পাব।আমি বেটার পেতাম ওর থেকে ঠিক কিন্ত আমি ত আর আমার ভালোবাসার মানুষ টা কে পেতাম না।আমরা জীবনে বেটার খুজতে গিয়ে অনেক সময় মূল্যবান জিনিসটা কে হারিয়ে ফেলি।কি দরকার সে বেটার দিয়ে?? টাকা পয়সা ত তাই না??টাকা আজ আছে কাল নাই। আজ ভালোবাসার মানুষটি যে ছেড়ে আপনি টাকাওয়ালাকে বিয়ে করছেন দেখলেন ১/২ বছর পর সে টাকা পুড়ে গেছে বা বিজনেস এ লস খাইছে আর আপনি পথের ফকির হয়ে গেলেন।তখন কি করতেন?বেটার খুজে নিয়ে অই মানুষটা কে কস্ট দিয়ে আজ আপনিও কস্ট পেলেন।তাহলে আর কি দরকার সে ভালোবাসা টা?

আমার হাজবেন্ড এর টাকা না থাকতে পারে কিন্তু মন আছে।আর সে আমাকে প্রতিটা পদে পদে আমাকে হেল্প করছে সাপোর্ট দিছে।আমাকে বুঝে এবং বুঝাই।আমার দোষ থাকলে সে নিজের ঘাড়ে দোষটা নিয়ে নেই।আমার চোখের পানি তার সহ্য হইনা।আমার বিয়ের পর আমি রান্না করলেও আমার হাজবেন্ড আমাকে সব কিছু ধুয়ে দেয় ঘরের কাজ করে।তাই বলে কি সে বউয়ের গোলাম হয়ে গেল?? না।তার আমার প্রতি যে দায়িত্ব আছে সে তার দায়িত্ব পালন করে।আর দিন শেষ এ সে সবার আড়ালে আইসক্রিম,চকলেট,চিপস,ফুসকা খাওয়ায়।সে চাই আমার মুখে হাসি ফুটুক।আর আমি চাই আমি যেন তার হাত ধরে শেষ নিঃশাষ পর্যন্ত তার সাথে জীবন কাটিয়ে দিতে??
আমার হাজবেন্ড অনেক শুকনা।কিন্তু তাতে আমার কোনো কিছু যাই আসেনা।তার মন আর তার সাপোর্ট গুলো আমার জন্য এনাফ।সুন্দর দিয়ে কি হবে??সুন্দর ত আর সারাজীবন থাকবেনা।মন যদি সুন্দর না হই তার সুন্দর চেহেরার কোনো দাম নেই।আর রইলো টাকা পয়সা??কবরে গেলেও কি এই টাকা নিয়া যাবে??যাদের টাকা বেশি তাদের অহংকার ও বেশি।কম টাকা থাকলে ভালো।সে টাকার মুল্য বুঝা যাই আর মানুষেদের ও মূল্য দিয়া যাই।মধ্যবিত্ত ফ্যামিলিতে সুখ বেশি।অতিরিক্ত টাকা পয়সাওয়ালা মানুষরা সুখের দেখা খুব কম দেখে।

আমার বাবা আমার বিদায়ের সময় বলেছিল আমাকে লাল শাড়ি পরে তাদের ঘরে যাব আর সাদা কাফন পরে যেন তাদের ঘর থেকে লাশ হয়ে বের হই।আমার বাবার কথা আমার সারাজীবন মনে থাকবে❤❤আমার বাবা একজন সৎ মানুষ আর আমার মা হচ্ছে আমার পৃথিবী?

পবিত্র ভালোবাসুন আর সে ভালোবাসার মুল্য বুঝুন আর সৎ ভাবে জীবন যাপন করুন
আমাদের জন্য সবাই দোয়া করবেন???
প্লিস নো বাজে কমেন্ট?