মায়াবতী বউ ৭ম শেষ পার্ট

0
1128

মায়াবতী বউ ৭ম শেষ পার্ট

লেখকঃপিচ্চি পোলা
আমি তখন কি করবো ভেবে পাইনা।
হঠাৎ মনে হলো তোর মাকে জানাই
ব্যাপারটা। আসার সময় তোদের বাড়ির
নাম্বার নিয়ে এসেছিলাম।
কল দিয়ে তোর মাকে বলতেই তোর মা কেঁদে
ফেললো তোর কথা ভেবে।
এটাও জানালো তাদের নাকি আগামিকাল
আসার কথা তোর সুমিকে দেখতে।
তখন তোর মা আর আমি বুদ্ধি খাটিয়ে এই নাটক
সাজানোর সিদ্ধান্ত নিলাম।
তিনি বললেন তুমি যে কোন উপায়ে ওর কাছে
ঠাই নিবে ওর ঘরে।
আমরা গিয়ে তোমায় সুমি হিসেবে ডাকবো।
আর আমাকে অবাক করে দিয়ে মা ডাকবে
তুমি। তারপর বাকিটা আমরা ম্যানেজ করবো।
আর বাকি কাহিনী তো তুই জানিসই।
আমার এই অভিনয়ে যদি কষ্ট পেয়ে থাকিস বা
খারাপ ভাবিস তাহলে আমায় ক্ষমা করে দিস।
কালকে বাবা এখানে আসবে। তাহলে তার
সাথে আমি চলে যাবো আর কখনো তোকে
জ্বালাতে আসবো না।
কথাগুলো একটানে বলে আমাকে জড়িয়ে ধরে
ডুকরে ডুকরে ফুপিয়ে কাঁদতে থাকে মিতা
নামের পাগলিটা।
ওর কথাগুলো শুনতে শুনতে চোখের কোনে
কখন যে জল এসে গেছে নিজেই জানিনা।
ওকে আরেকটু বুকের সাথে জড়িয়ে নিয়েছি।
ঠিক একেবারে কলিজার ভিতরে।
আমাকে আর ছেড়ে যাবিনা তো পাগলি?(আমি)
তুই আমাকে ছেড়ে না দিয়ে এভাবে বুকের
মাঝে জড়িয়ে রাখলে কোথাও আর যাবোনা
রে।
পারবি না আমায় সারাজীবন এভাবে রাখতে?
খুব পারবো রে পাগলি। এই মিতা শোন।
কি বলবি বল
সবাই কি জানে এই অভিনয়ের কথা?
না সবাই না। জানে শুধু তোর মা, বোন, বাবা
আর আমার বাবা।
তোর বাবাও জানে?
হুম বাবা কালকে আসবে এখানে। আর তোর
বাবা আসবে ২ দিন পর।
এখন তুই চাইলে শুক্রবারে আমাদের বিয়ের
আয়োজন করবে তারা।
আমি চাইলে মানে? কি বলতে চাস?
তুই তো সুমিকে ভালোবাসিস তাই বললাম।
সেটা আমার খুব বড় ভুল ছিলো রে। এটা ভেবে
যদি কষ্ট পাস তো চলে যাবো তোদের
থেকে
অনেকদূরে না ফেরার দেশে।
চুপ হারামী। এসব আর বলবি না। অনেক কষ্ট
দিয়েছিস আমায়। এবার আমায় ভালোবেসে
পাগল করে দে।
তোর ভালোবাসায় আমি পাগল হয়ে যেতে
চাই রে পাগল।
এই বলে মিতা
আমায় অজস্র চুমোয় ভরিয়ে দিচ্ছে।
আমিও পাল্টা আক্রমন করছি ওকে।
এই ছাড় আমায়। এর বেশি কিছু করতে যাবিনা
হুম।
কেনো রে? তুই তো আমার বউ।
হুম বউ। তবে নকল বউ হা হা হা।
এই পাগল আমায় আজ চিনলি কি করে।
তোর কান্না দেখে। ছোটকাল থেকে তুই
এভাবেই কাঁদতি। আর এখনো…
মনে আছে মিতা? তোকে ছোটবেলায় ধাক্কা
দিয়েছিলাম আর তুই পড়ে গিয়েছিলি। পড়ে
গিয়ে তোর পিঠে কেটে গিয়েছিলো।
আজ যখন তোর কান্না দেখে সন্দেহ হলো।
যে
তুই মিতা হতে পারিস। তখনি আমি তোর
ব্লাউজ খুলে পিঠ দেখলাম।
হুম যখন তুই ব্লাউজে হাত দিলি তখনি বুঝলাম
ধরা খাইছি এবার।
তুই আমাকে আগেই বলতে পারতি। নাটক না
করলেও হতো।
যদি শুক্রবার পর্যন্ত এভাবে থাকতে পারতাম
তবে বাসর রাতে তোকে সারপ্রাইজ দিতে
চেয়েছিলাম নিজেকে। তা আর হলো না।
আয় আমার মিষ্টি বউ। তোকে পাগল করে
দেই।
যাহ দুষ্টু। আর দুইটা দিন সবুর কর সব পাবি।
তাই বলে তোকে ছুতে পারবো না?
পারবি তবে এমন পাগল করিস না যেনো
আমরা কন্ট্রোল হারিয়ে ফেলি।
এতো অপেক্ষা, এতো কষ্ট সইলাম দুজন আর
দুইটা দিনের অপেক্ষা করতে পারবো না তা হয়?
এর মধ্যে আমাদের ভালোবাসা নিষিদ্ধ করতে
চাইনা।
আমায় বুকের মধ্যে জড়িয়ে নিয়ে ঘুমা এখন।
ওকে আয় পাগলি।
ও আমার বুকের সাথে মিশে ঘুমিয়ে গেছে।
আমি ওর মুখটা দেখছি এক নজড়ে।
আমি ওকে একটুর জন্য ভুলে গেলেও ও ঠিকই
আমায় মনের মধ্যে রেখেছে।
ওকে আরেকটু চেপে ধরে দুচোখের
দুফোটা
অশ্রু ফেলে মনে মনে ভাবতেছি।
এভাবেই সারাজীবন তোকে বুকে জড়িয়ে
রাখবো রে আমার পাগলি বউ।

সমাপ্ত………….

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here