Love_at_1st_sight   Part : 12  

0
428

Love_at_1st_sight ???
Part : 12

writer-Jubaida Sobti
স্নেহা : এতো কিপটা কেনো আপনি?.. আগে বলেননি কেন আজকে আপনার বার্থডে ছিলো…?
রাহুল : কখন বলবো,…যখন আমাকে দেবদাস বানিয়ে চলে গিয়েছিলে তখন?..?
নাকি,
যখন ঐ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারকে বিয়ে করতে রাজি হয়ে গিয়েছিলে তখন?.?
স্নেহা : দেখেন একদম বাজে কথা বলবেন না। আমি কবে রাজি হয়েছিলাম। হুম?..?
রাহুল : কেমনি পারলা স্নেহা তুমি ? রাজি হতে কেমনি পারলা ? (with naughty mind?)
রাহুলের এই কান্ডে রাহুল স্নেহার থেকে অনেক মার আর চিমটি খেলো ??
বিকেলে স্নেহা বাসায় ফিরে,…
স্নেহার মা স্নেহার বাবাকে ততোক্ষনে সবকিছু বুঝিয়ে বলে দেয়। কিন্তু স্নেহার বাবা কিছুতেই তা মেনে নেই না। আজ থেকে স্নেহার বাহিরে যাওয়া বন্ধ।?
স্নেহা বাসায় আসলে তখন স্নেহার বাবা তাকে অনেক বকাযকা করে,এবং স্নেহার মা স্নেহার বাবাকে বুঝানোর চেষ্টা করলেও তার বাবা কিছুতেই রাজি হয়না।
স্নেহা রুমে বসে কাঁদছে,
হঠাৎ রাহুলের ফোন আসে,
রাহুল : হ্যালো!
স্নেহা : ( no respons,?? স্নেহা রাহুলের কন্ঠ শুনে আরো ফুফিয়ে কেঁদে উঠে)
রাহুল : স্নেহা কি হয়েছে?.তুমি কাঁদছো কেনো?… কে কি বলেছে?…
স্নেহা কিছু বলতে পারছে না কেঁদেই যাচ্ছে,…
রাহুল : স্নেহা তুমি না বললে আমি বুঝবো কি করে বলো প্লিজ ?
স্নেহা : (কেঁদে কেঁদে) রাহুল বাবা, আমার আর আপনার বিয়ে মেনে নিচ্ছে না। আমার বিয়ে দিয়ে দিচ্ছে ঐ ছেলেটির সাথে??????
রাহুল : Don’t worry স্নেহা,…কিছু করতে পারবে না তোমার বাবা,..
স্নেহা : আপনি বোঝার চেষ্টা করছেন না কেন?…আপনি বাবাকে যতোটা সহজ মনে করছেন ততোটা সহজ নয়।বাবা আমার বিয়ের ডেট ফিক্সড করে ফেলছে..তার মানে আপনি বুঝতে পারছেন কি হতে পারে,…
রাহুল : ok I understand ?…now কি করতে হবে আমায়?..
স্নেহা : (কিছুক্ষন ভেবে)চলেন পালিয়ে যায় ????
রাহুল : কিন্তু স্নেহা এটা কি ঠিক হবে?..
স্নেহা : ঠিক হবে না কেনো অবশ্যয় ঠিক হবে,????? আপনি কি বলতে চাচ্ছেন তাহলে আপনি আমাকে নিয়ে পালাতে পারবেন না?..??????
(স্নেহা কেঁদেই যাচ্ছে)
রাহুল : স্নেহা কাঁদছো কেনো এভাবে, আমি কি বলেছি পারবো না, অবশ্যই পারবো…
স্নেহা : তাহলে কবে পালাচ্ছি ???
রাহুল : কাল সন্ধায় রেডি থাকবে,… আমি আসবো নিতে,…
পরদিন,
মা : স্নেহা কি ভেবেছিস,এখন আমিতো অনেক চেষ্টা করেছি কিন্তু তোর বাবা?
স্নেহা : মা তুমি টেনশন করিও না। বাবা যখন চাইছে না আমি রাহুলকে বিয়ে করি,তাহলে করবো না।
মা : ??? কিন্তু?
স্নেহা : মা I m ok ?
স্নেহার মুখ থেকে এই কথা শুনে স্নেহার মা কিছুটা অবাক হয়, আবার ভাবছে হয়তো সে বুঝতে পেরেছে, তার বাবার অমতে যাওয়াটা ভুল হবে 
[কিন্তু স্নেহার মাথায় কি খিচুরি পাকাচ্ছে তা স্নেহার মা মোটেও বুঝতে পারলো না?]
স্নেহা : বাবা আমার ভুল হয়েছে আসলে আমি বুঝতে পারিনি,…
বাবা : (স্নেহার মাথায় হাত বুলিয়ে) দেখ স্নেহা আমি তোর বাবা, তোর ভালোতেই আমার ভালো, তুই চিন্তা করিসনা দেখিস তোর বিয়ে কি ধুমধাম করে দিবো,
স্নেহা : [মনে মনে] আমার ভালো চাইলে রাহুলের সাথেই বিয়েটা দিতে বাবা, নিজের ভালো চাইছো বলেই তো ঐ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার টার সাথে বিয়ে দিচ্ছো, ওহ সরি ইঞ্জিনিয়ার বললে ভুল হবে মেকানিক একটা ?
সন্ধায়,
স্নেহা : মা… আমার কিছু শপিং করতে হবে,…একটু বের হচ্ছি।
মা : কিন্তু তোর বাবা বলেছে,
বাবা : একা যাবি নাকি আর কেউ যাচ্ছে সাথে?..
স্নেহা : [একটু ভয় পেয়ে] বাবা ঐ যে আমার ফ্রেন্ড আছে না মার্জান ও যাবে,?
বাবা : আচ্ছা ঠিকাছে তাহলে যা, কিন্তু তাড়াতাড়ি ফিরবি।
স্নেহা : ওকে বাবা।
স্নেহা তার সাথে করে কিছুই না নিয়ে বাড়ী থেকে বেরিয়ে গেলো। যাতে কেউ সন্দেহ না করে,
শপিং মলে গিয়ে রাহুলের অপেক্ষা করছে, দূর থেকে দেখে রাহুল গাড়ী থেকে নামছে স্নেহা রাহুলকে দেখে ইমোশনাল হয়ে কেঁদে দেই,?
রাহুল : ঐ কাঁদছো কেনো?…আবার?..
স্নেহা : ???
রাহুল : স্নেহা কি করছো মানুষ দেখছে,চলো,
রাহুল স্নেহাকে টেনে নিয়ে গাড়ীতে তোলে,
স্নেহা : কোথায় যাচ্ছি আমরা??
রাহুল : হানিমুনে?
স্নেহা : এটা মজা করার সময় রাহুল?.. আমি সিরিয়াসলি বলছি?
রাহুল : যাক বাবা! আমি আবার মজা কই করলাম আমিও তো সিরিয়াসলি বলছি।
আমার সাথেই পালাচ্ছো, আমার সাথে বিয়ে করবে, হানিমুনটাও তো আমার সাথে করবে তাই না?.?
স্নেহা : (sadness with blushing ?)
রাহুল : ভেবেছিলাম কয়েকমাসের জন্য অন্য কোনো কান্ট্রিতে চলে যাবো, কিন্তু একদিনের মধ্যে তো আর পাসপোর্ট বানানো যায় না। ট্রেন করে শুধু ইন্ডিয়া যাওয়া যায়, তাই দুজনের জন্য ট্রেনের টিকেট নিয়ে এনেছি।
স্নেহা : ???
রাহুল : আরে তুমিইতো বলেছো পালিয়ে বিয়ে করবে, আর এখন থেকে এতো ইমোশনাল হয়ে যাচ্ছো?
স্নেহা : আমার অনেক ভয় করছে,?
After few minutes,
রাহুল : স্নেহা I love u,?
[রাহুল স্নেহাকে সাহস দেওয়ার জন্য I love u বলে অমনি স্নেহার আরো ফুফিয়ে কেঁদে উঠলো?]
রাহুল : স্নেহা r u ok?.?
স্নেহা : (মাথা নাড়ালো)
[ yeah she is ok?]
রাহুল : তাহলে কাঁদছো কেন?.
স্নেহা : আপনি I love u বলেছেন তাই
রাহুল : ?????? তুমি না আসলেই একটা পাগলী।
রাহুল আর স্নেহা স্টেশনের পথে রওনা দিলো, গাড়ী চলছে দুজনেই চুপচাপ।
রাহুল : স্নেহা!
স্নেহা : হুম?..
রাহুল : আমার একটা জিনিস পাওনা ছিলো ?
স্নেহা : কি জিনিস?.. ?
রাহুল : ????
স্নেহা : [blushing? ]
রাহুল : দিবা না?..?
স্নেহা : ???
রাহুল : ঠিকাছ তো…?
স্নেহা : ????
রাহুল : oky, I understand… আমার পাওনা জিনিস কিভাবে নিতে হয় সেটা আমার ভালো করে জানা আছে।??
স্নেহা : দেখা যাবে,?
রাহুল একহাতে গাড়ী চালায় আরেক হাতে স্নেহার চুল নিয়ে, ওড়না নিয়ে স্নেহাকে ডিস্টার্ব করে যায়,? স্নেহা রাহুলকে বিরক্তিবোধ দেখালেও মনে মনে তার ও খুব ভালো লাগছিলো রাহুলের কান্ড গুলো?। এভাবে তারা স্টেশনে পৌছে যায়,
রাহুল : স্নেহা ট্রেন আসবে ১২টায়,
স্নেহা : তাহলে ততোক্ষন বসে থাকবো??..
রাহুল : কি আর করার, বসে তো থাকতেই হবে,…আগে থেকে বলে দিতে পারতাম তাহলে আগের ট্রেনের টিকেট পেয়ে যেতাম।
স্নেহা : ওহ!
রাহুল : আচ্ছা চলো ততোক্ষনে গাড়ীতে বসি, ট্রেন আসার কিছুক্ষন আগে না হয় আসবো।
স্নেহা মাথা নাড়ালো।
দুজনে মিলে গাড়ীর পেছনের সিটে বসলো…
রাহুল স্নেহার দিকে তাকিয়ে আছে,?
স্নেহা : [Blushing ] এভাবে তাকিয়ে আছেন কেনো…?
রাহুল : ??তুমি তাকিয়ে থাকার মতো তাই…
স্নেহা : ???
রাহুল : আচ্ছা স্নেহা এদিকে তাকাওতো..
স্নেহা রাহুলের দিকে ফিরে তাকালে..?
[যেই না স্নেহা রাহুলের দিকে ফিরে তাকালো রাহুল স্নেহার ?? করে দিলো ?]
After few second,
[Sneha nd rahul both r blushing nd blushing ?]
রাহুল : আগেই তো বলেছিলাম, ?না দিলে কিভাবে নিতে হয় তা আমার জানা আছে,…??
[স্নেহা লজ্জায় লাল হয়ে গেলো ??]
রাহুল স্নেহাকে ঝড়িয়ে ধরলে স্নেহা রাহুলের বুকে মাথা রাখে,…দুজন গল্প করতে করতে, স্নেহা কখন যে ঘুমিয়ে পড়লো রাহুলের বুকে সে জানে না।রাহুল ভাবছে হয়তো পাগলীটা সারারাত না ঘুমিয়ে কেঁদেছে, তাই এখন ঘুমিয়ে পরেছে
রাহুল স্নেহার ঘুমন্ত নিষ্পাপ চেহেরাটার দিকে তাকিয়ে রয়েছে,…কি মায়াবী লাগছে, পুরাই [Sleeping Beauty ??]
রাহুল স্নেহাকে তার বুক থেকে সরিয়ে আস্তে করে শুয়ে দে…
[then rahul start his car ]
প্রায় আধ ঘণ্টা পর হঠাৎ স্নেহার ঘুম ভেঙে গেলো…
স্নেহা ঘুম চোখে উঠে বসে…
স্নেহা : রাহুল!
রাহুল : ঘুম শেষ…
স্নেহা : yeah… 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here