devil love part: 22

0
592

devil love part: 22
writer-kabbo mahmud

সবাই বাসাই পৌছে যাওয়ার পর

রাতে
কাব্যঃ মা তানিশা যে ন কোনভাবেই কিছু বুঝতে না পারে:::

কাব্যর মাঃ হুম কোন ভাবেই জানবে না।

কাব্যরর বাবাঃ হুম কিন্ত আমি কী করব?

কাব্যঃ তুমি কী করবে মানে?

কাব্যর বাবাঃ এভাবে দাড়ি-গোপ রাখতে কেমন লাগে(বিরক্তি নিয়ে)

কাব্যঃ হুম নিজের পছন্দের বউমাকে পেতে হলে তো কষ্ট করতেই হবে তাইনা??

নীলাঃ হুম কিন্ত ভাইয়া আমাকেও তো কোন ভাবে সাজিয়ে নিয়ে যেতে পারতিস? কতদিন দেখিনি বান্ধবীটাকে😞

আবিরঃ হুম তুই তো দেখেছিস আর আমি এখনো দেখিও নি

কাব্যর মাঃ হুম যাবে সবাই বিয়ের পর আর নীলা তোকে কীভাবে নিয়ে যাই ভেবে দেখ? তুই যেভাবেই থাকিস বউমা চিনে ফেলবেই

কাব্যঃ হুম ঠিক

কাব্যর মাঃ আচ্ছা সকাল হলেই সবাইকে কাজে লেগে যেতে হবে কাব্য বেটা? সকল প্লান মোতাবেক কাজ করছ তো??

কাব্যঃ হুম

আবিরঃ তোর বিয়ের দিনেও যেন অফিস করতে দিস না বস মাফ চাই ওইদিন ইচ্ছা মত আনন্দ করব

কাব্যঃ একটা কাউকে জুটিয়েও নিস??(কানের কাছে যেয়ে)

আবিরঃ কী সব বলিস? আচ্ছা দেখা যাবে😎

কাব্যঃ ok

কাব্যর মাঃ হুম অনেক কথা হয়েছে এবার সবাই খাবার টেবিলে এসো

নীলাঃ চলো চলো খুব খুদা লেগেছে😃

–তারপর পুরো পরিবার dinner. করে নিজের নিজের রুমে প্রবেশ করল

তানিশাঃ (তানিশা চোখ বুজে সুয়ে সুয়ে ভাবছে) উনি এসব কী বল্ল? আমাকে এখনো ভুলে যেই নি? তিনি আমাই ভালবেসেছিলেন আর আমি তাকে।অবহেলা করেছি?? কোন খারাপ কিছুই তো করে নি তাহলে কেন আমি তাকে এভাবে কষ্ট দিলাম??

–তারপর চোখ বুজে ছিল

তানিশাঃ কেন করলে তানিশা???

তানিশাঃ ক ক কে?????(উঠে বসে)

তানিশাঃ আমি তোমার ভাবনা,,

তানিশাঃ মানে??

তানিশাঃ বুঝবে না

তানিশাঃ কী চাও তুমি?? আমার মতোই তো দেখতে(অবাক হয়ে)

তানিশাঃ কিছুইনা শুধু কিছু কথা বলব তোমাই

তানিশাঃ কী কথা? বলো–

তানিশাঃ কী কথা বুঝো না?? সামান্য একজন এর গল্প পড়ে ভালবাসলে আর যে তোমার চোখের সামনে ভালবাসা নিয়ে বসে থাকত হাত বাড়ালেই ধরা দিত তাকে অবহেলা করো??ভেবে দেখ সে তোমাকে একদিন না দুইদিন না সারাজীবন কাছে পেতে চাই ও সুখী রাখতে চাই। কী নেই তার ভেতরে? কতো সুন্দর দেখতে স্টাইলিশ চেহারা মাসাল্লাহ যেকোন মেয়েই তাকে চাইবে জীবনসঙ্গী হিসেবে আর তুমি তাকে ছেড়ে একটি লেখককে?? যে তোমার সব কিছুর কেয়ার করত শুধু তোমার না তোমার পরিবার এর ও খবর নিতো। আজ যদি তুমি তাকে একটি চড় ও মারো সে কোন প্রতিবাদ না করে হাসিমুখে মেনে নেবে আর তোমাকে বকা দিলে ভালবাসা দিয়ে পূরণ করে দেবে আর তুমি কোন লেখক এর পাল্লাই পড়লে?? ওই কাব্য কী তোমার অত্যাচার দুষ্টুমি ইচ্ছা স্বাধীনতা দেবে? এই কাব্যর মতো করে তাকে পাবে?? তার চরিত্র কেমন সেটাও তো জানোনা!!

তানিশাঃ চুপ করো কে তুমি এতো কিছু বলছ? সব মানলাম কিন্ত একটা না ওর চরিত্র নিয়ে কথা বলবে না ওর বাবা-মা যেহেতু ধার্মিক তাহলে সেও তেমনি

তানিশাঃ যে ছেলে অফিসের ব্যাস্ততা দেখাই কিন্ত অফিসে থাকে কী কী করে তার খেয়াল রাখো?? যদি চরিত্রবান হতো তাহলে সে তোমাকে বলেছে এসব এর কথা? আর সে অবশ্যই চাইতো তোমাকে একবার চোখের দেখা দেখে সব কথা শেয়ার করতে অবশ্য বাবা-মায়ের অবাধ্য সন্তান কী তার ও ঠিক নেই পারলে এখন তাকে এসে দেখা করতে বলো??

তানিশাঃ সে তো বলেছে একবারে বাসর রাতে দেখা করবে

তানিশাঃ হুম সেটাই করো একটা না জানা লোক এর সাথে হঠাৎ বিয়ে করে বাসর করবে?
আর কাব্য কী করত? একটু ও তোমাই চোখের আড়াল করতে চাইতো না সব সময় কাছে পেতে চাইতো আদর করতে চাইতো এর মানে খারাপ উদ্দেশ্য না সে জানতো যে তোমার সাথে ওর বিয়ে হবে তাই একটু ভালবেসে একসাথে দুজনে নিজেদের বুঝে নিতে চেয়েছিলো সে তোমার খেয়াল ও সকল কিছু বোঝার চেষ্টা করতো আর আদর জিনিসটার মর্ম তুমি বুঝো? ওটা হলো ভালবাসার বন্ধর। অবশ্য তুমি এসব কীভাবে বুঝবে? তুমিতো একটা না দেখা লোক যার মন কেমন? তোমার খেয়াল রাখা এমনকি ফোনেও কথা বলেনি তাকে ভালবাসো (একটা রহস্য জনক হাসি দিয়ে)

তানিশাঃ চুপ করোওওওও……………..(এক লাফে ঘুম থেকে উঠে)
–হ্যা তানিশা ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে গিয়েছিলো এতক্ষনে সপ্ন দেখছিল

–নিজেকে সান্ত্বনা দিয়ে দেখে শরীর ঘেমে গেছে তাই উঠে যেয়ে ফ্যান এর সুইচ দিয়ে সম্পন্ন ভলিউম দেই।

তানিশা:::: এসব কী দেখলাম আমি?? (মোবাইল হাতে নিয়ে রাত ১১.৪৭) এতো রাত হয়ে গেল? আর এটা কী ছিলো? মানলাম সপ্ন তাই বলে এমনটা?? সপ্ন তো মনে সান্ত্বনা দেই তাই বলে এমনটা তো সপ্ন হয় না? কী ইঈীত এটা??

–কিছুক্ষন নিজেকে সান্তনা দিয়ে

তানিশা::::: এসব কিছু না কিছুর জন্য তো আমি দেখলামই একটা কিছু হবে!! আর ও যে আমার মতো হবুহ দেখতে সে কী বল্ল সব?? (কিছুক্ষন ভেবে) যা বলেছে ঠিকিই তো বলেছে তানিশা সব তো সত্যিই ভেবে দেখ ওই কাব্য শুধু তোর না তোর পরিবার এরর সবার খেয়াল রাখত এতো অল্প দিনেই সে তোর বাবা-মাকে আপন করে নিয়েছিল:: কিন্ত যার সাথে আমার বিয়ে হবে সে কি আমাই পারবে এমন যত্ন করতে?? পারবে আমার পরিবার এর যত্ন নিতে?? তাকে আমি কত অপমান করলাম এবং চলে যেতে বললাম সে কিছু না বলেই চলে গেল কিন্ত যার সাথে বিয়ে হবে তাকে এখনো চোখের দেখা দেখলাম ও না এ কেমন পুরুষ যে নিজের হবু বউ এর খবর খেয়াল রাখে না কি করছে না করছে খবর রাখে না??

এখনই আমার এর প্রুভ চাই আজ রাতেই তা না হলে আমার এতো সুন্দর জীবনকে নষ্ট করার অধিকার কারোর নেই

–মোবাইল হাতে নিয়ে ফোন দেই

–কাব্য ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করছে কিন্ত একটু পরেই তার ফোনেত স্ক্রিনে একটি অনেক কাছে একজন এর কল আসে।

কাব্য:::(ফোনটি হাতে নিয়ে) এটা কীভাবে সম্ভব??? তানিশা এতো রাতে আমাই ফোন করেছে?? (বেশ অবাক হয়ে) কোন সমস্যা হলো নাকি??(রিসিভ করে) hello

(ওপাশ থেকে কোন উত্তর নেই)

কাব্যঃ কী হলো তানিশা?? কোন সমস্যা?? কথা বলো??

তানিশাঃ না ম ম ম্মানেএ

কাব্যঃ হুম বলো??

তানিশাঃ একটি রিকুয়েস্ট ছিল

কাব্যঃ রিকুয়েস্ট এর কী আছে বলো!

তানিশাঃ বলছি আমার চকলেট ফুরিয়ে গেছে তাই আপনি যদি একটু কষ্ট করে নিয়ে এসে দিতেন??

কাব্যঃ এই মেয়ে কী পাগল?? এতো রাতে আমাকে তার জন্য চকলেট নিয়ে যেতে হবে আর কাল তো তার আবার বিয়ে(মনে মনে) কেন? তোমার husband নেই? তাকে বলো?

তানিশাঃ আপনাকে বলেছি মানে আপনাকে কোন সমস্যা??

কাব্যঃ না মানে এতো রাতে একজন পর-পুরুষ একটি মেয়ের কাছে যাবে কাল নাকি তার আবার বিয়ে তাই যদি সবাই সন্দেহ করে

তানিশাঃ কিছু হবে না আপনি আসবে না কি??

কাব্যঃ হুম অবশ্যই আসব কতদিন পর তুমি একটি আবদার করলে আর আমি সেটা না রেখে পারি? মাত্র ১০মিনিট এর ভিতরেই আসছি

তানিশাঃ ok আসুন( ফোন কেটে দিয়ে) এবার অনলাইন এ যেতে হবে (ইন্টারনেট অন করে কোন কিছু না দেখেই কাব্যর ম্যাসেজ অপশন এ যাই) hi

কাব্যঃ (রুম থেকে বের হয়ে সোজা গাড়ীতে চলে এসেছে।এসে গাড়ীতে বসবে আর সেই সময় মোবাইলে ম্যাসেজ এর আওয়াজ) এখন আবার কে?
কী ব্যাপার তানিশা?? সব কী করছে এ??

তানিশাঃ কী হলো? উত্তর দিচ্ছেন না কেন?

কাব্যঃ hello, আসলে ফোনের কাছে ছিলাম না (মিথ্যা কথা) তা কেমন আছো??

তানিশাঃ ooh,, হুম ভালো, আপনি কেমন আছেন?

কাব্যঃ হুম ভালো,,,কিছু বলবে?? এতো রাতে এসএমএস দিয়েছো??

তানিশাঃ বিরক্তি হচ্ছো??

কাব্যঃ আরে আরে কী বলো! বিরক্তি হবো কেন??

তানিশাঃ আমার জন্য এখন একটি জিনিস নিয়ে এসে দেবেন

কাব্যঃ কী???

তানিশাঃ চকলেট এনে দিন

কাব্যঃ এতো রাতে? আর এই ঠান্ডাই( খুব দ্রুত ড্রাইভিং করছে)

তানিশাঃ আচ্ছা সমস্যা হলে থাক

কাব্যঃ সমস্যা হবে কেন আমি আসছি

তানিশাঃ ok আসুন

কাব্যঃ (ফোন রেখে দিয়ে) কি করতে চাইছে তানিশা? ওই একজন ও তো আমি সেটা কী ও বুঝে গেছে নাকি অন্য কিছু? কি করব এখন??????????
(কিছুক্ষন ভেবে)
Idea………..

চলবে,,,,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here