বাকি রয়ে গেছে শব্দকার

বাকি রয়ে গেছে শব্দকার
বাকি রয়ে গেছে শব্দকার

বাকি রয়ে গেছে শব্দকার

অনামিকা ইসলাম ‘অন্তরা

অনন্ত বিষাদময় করি, ভালোবাসা গেছে আমায় ছাড়ি। তুমি চলে যাওয়ার পরই বুঝলাম- আমাদের অনেককিছু’ই বাকি রয়ে গেছে। বাকি রয়ে গেছে ভোরে ঘুম থেকে ওঠার আগে তোমার একটা চুমুর আবদার আমার কাছে। বাকি রয়ে গেছে বহু আয়োজন, বহু কাজ আর… আর তোমার মুখের ঐ মিষ্টি আবদার — লক্ষ্মী! বাহিরে বৃষ্টি হচ্ছে চলো না বৃষ্টিতে ভিঁজি আজ। বাকি রয়ে গেছে বিকেলে সমস্ত কাজ সেরে ক্লান্ত আমার ব্যলকনির হাতলওয়ালা বেতের চেয়ারে বসে চেম্বার থেকে তোমার ফেরার অপেক্ষায় থাকা গভীর ভালোবেসে। বাকি রয়ে গেছে নোটখাতা ভরে তোমার নামটি লিখা, তারপর প্রচন্ড এক অভিমানে নামগুলো কেটেকুটে ছিড়ে ফেলে দেয়া, বাকি রয়ে গেছে ‘ লক্ষ্মী ভালোবাসি তো’ বলতে বলতে কপালে তোমার দেয়া চুমুর উষ্ণ পরশ নেয়া। বাকি রয়ে গেছে ক্লান্ত বিকেলে একসাথে ঘুরতে যাওয়া, বাকি রয়ে গেছে রুপকথা’দের গল্প বলা, একসাথে পথচলা। হ্যাঁ, তুমি চলে যাওয়ার পর’ই বুঝলাম আমাদের অনেককিছুই বাকি রয়ে গেছে। বাকি রয়ে গেছে কাঁধে কাঁধ রেখে দুঃখ সুখের গল্প বলা। বাকি রয়ে গেছে জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত একসাথে পথচলা।