ঝগরাটে ভালবাসা পার্ট-১

0
172
ঝগরাটে ভালবাসা পার্ট-১
ঝগরাটে ভালবাসা পার্ট-১

ঝগরাটে ভালবাসা পার্ট-১

লেখাঃতামান্না খান

ওই তুই আমার চুলে ধরলি ক্যান।

আরে আমি ভাবছি ওটা নারিকেল গাছের পাতা।কি?😠😠আমার চুলকে তোর নারিকেল গাছের পাতা মনে হল?হ্যা,হলো।তোমরা সবাই বলতো আমি কি ভুল বললাম।নারিকেল গাছের মতো লম্বা আর চুল পাতার মত লম্বা।কি ভুল বললাম।সবাই জোরে হেসে ওঠলো।ওই তোরা থামবি ।আর তুই?আমি নারকেল গাছের…দারা দেখাচ্ছি,এই বলে মাটি দিয়ে ঠিল শুরু করলাম।

এরে পাগল খেপেছে পালাই🏃🏃🏃

সব বান্ধবিদের সামনে অপমান, দেখে নিব।খুব রাগ হচ্ছে।

তুহি.……

হ্যা,বড় মা বল?

খেতে এলিনা যে,তোমাকে না বললাম আমি খাবো না ,তুমি অযথা কষ্ট করতে গেলে কেন?তুইতো না খেয়ে ঘুমাতে পারিস না।পরে রাতে পেট ব্যাথা করবে।আয়ানের ওপর রাগ হয়েছে বুঝি?অনিক সব বলেছে আমাকে।ওকে আমি আচছা করে বকে দিব।অ সবসময় আমার সাথে এরকম করে।আমার সব বান্ধবীদের সামনে অপমান……..আরে বাদ দেতো। এখন হ্যা কর আমি খায়িয়ে দেই।

বড় মা তুমি না অনেক ভাল।তুমি না থাকলে  আমি কখনো বুঝতেই পারতাম না বাবা-মায়ের আদর কেমন হয়।আমারতো মায়ের চেহারাও মনে নেই আর বাবাতো…..তুমি না থাকলে কবেই মরে যেতাম।

চুপ একদম চুপ,এরকম কথা যেন আর না শুনি।তোর কিছু হলে আমি কি বাচতে পারবো।সন্তানের কিছু হলে মা কি সোয্য করতে পারে।আমার কাছে তুই আর আয়ান এ্যাকি রকম।খাওয়া শেষ এখন ঘুমাতো।

আসলে বড় মা আমার খালামনি হয়।আমার বয়স যখন দুই বছর তখন আমার বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে।আমার মাকে আমাকে সহ নানার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়।মা কষ্ট সোয্য করতে না পেরে মারা যায়।তখন বড় আব্বু বড়মা আমাকে এখানে নিয়ে আসে।কোনো দিনও বাবা মায়ের অভাব বুঝতে দেয়নি।তাদের একমাএ ছেলে আয়ান।এই শয়তানটা সব সময় আমার সাথে ঝগরা করে। আর অনিক হচ্ছে আয়ানের চাচাত ভাই,আমরা দুজন একসাথেই পরি এস এস সি পরিক্ষার্থী আর আয়ান এইস এস সি পরিক্ষার্থী।

আয়ান…

হ্যা আম্মু ভিতরে আস।কিছু বলবা?মা বাবা ছারা মেয়েটাকে  কেন খেপাস বলতো।আরে মা তুমি জান? অ কাল আমার বন্ধুদের সামনে আমাকে বাদর বলেছে।

আরে ওতো মজা করেছে। আর তুইতো বড়, তোকে তো বুঝতে হবে।

অ মজা করলে মজা আর আর আমি করলে…. আর বড়র কথা বল।ওকে তুই বলতে না করলে বলে দুই বছরের বড় নাকি বড় না।আম্মু তুমি খালি অর হয়ে কথা বল।বুঝি না তুমি অর আম্মু না আমার আম্মু।

আমি দুজনের আম্মু।আমার মেয়েকে আর জালাবি না।আর এখন ঘুমা।

আমার নামে বিচার ।দেখাচ্ছি তুহির বাচ্চা😠😠😠😠(এক একা)

সকলে ওঠে ব্রাশ করতে ভাতরুমে… ..

মুখ এরকম লাগে কেন।এটাতো পেষ্ট না। পেষ্টের খাপে ফেস ওয়াস ! এটা ওই শয়তানটারি কাজ।বমি আসলে ভাল হতো ।মুখের ভিতরা কেমব লাগছে।বাথরুম থেকে বের হয়ে দেখি শয়তানটা হাসছে।ওই শয়তান তুই আমার পেষ্টএ …..কুত্তা,বানর।

ওই বান্দুন্নী,আমার নামে বিচার-বুঝ এবার।

হ্যারে, তোরা আবার শুরু করলি।সব সময় ঝগরা করে দুজনে (বড় মা)

আরে করতে দাও।ওদের জন্য বাড়িটা ভরা থাকে(বড় আব্বু)