হারিয়ে যাওয়া পথ খুঁজে পাওয়া part: 10

1
198

হারিয়ে যাওয়া পথ খুঁজে পাওয়া

part: 10

লেখা –সুলতানা ইতি

প্রিন্সিপাল : তা বললে কি আর হয়রে মামুনি,তুই তো এখন আমাদের সবার গৌরব, আচ্ছা অনেক কথা হলো আজ তা হলে আসি,

আনুশার আম্মু: আপনারা এতো দূরর কষ্ট করে এলেন, আপনাদের কে ভালো করে,,

প্রিন্সিপাল : না না আপনি এতো ব্যাস্ত হবেন্না,আমরা এমনিতে ই অনেক খুশি,(আনুশার মায়ের কথা টা প্রিন্সিপাল স্যারর বুঝতে পেরে থামিয়ে দিলেন)আচ্ছা কাল আপনি ও আপনার মেয়ের সাথে যাবেন আপনি ও কিন্তু ইনভাইটেড

আনুশা আম্মু: কিচ্ছু বললেন না,(মনে মনে আল্লাহর কাছে শত কুটি শুকরিয়ে আদায় করলাম)

আনুশা: স্যার রা চলে গেছে,এখন আপুদের এই খবর টা জানাই কি করে,মোবাইলে যে ব্যালেন্স শূন্য, (মন খারাফ করে বসে আছে আনুশা,আজকের এই দিনে ও টাকা নেই হাতে, এই ভেবে মন টা খুব খারাফ)

#
তানভীর : এতো কিছু ভিতরে আনুশার সাথে একটু ও কথা বলতে পারলাম না,,ঠিক আছে কোন ব্যাপার না,আজকের, আর কালকের এক সাথে দুই দিনের কথা ওর সাথে বলবো কাল,, এখন বাসায় যাই

তানভীরের আম্মু: ছেলেটার যে কি হলো ফোনটা ও রিসিভ করছে না, কি এলো রেজাল্ট এ কিছুই জানালো না কি যে করি

তানভীর : খুশি খুশি মনে বাসায় ডুকলাম

তানভীরের আম্মু: কিরে এতো খুশি খুশি লাগছে কেনো তোকে, বলনা রেজাল্ট কেমন হলো নিশ্চয় অনেক ভালো তাই না

তানভীর : ওহ আম্মু আমার কথা বাধ দাও তো তুমি জানো আজ কি হয়েছে।

তানভীরের আম্মু: তুই না বললে জানবো কি করে

তানভীর : আনুশা সবার প্রথম হয়েছে শুধু তাই নয় পুরো জেলা দিয়ে প্রথম স্থান আনুশা পেয়েছে

তানভীরে আম্মু:সে না হয় বুঝলাম, কিন্তু তোর রেজাল্ট কি, সেটা তো বলবি,(তানভীর যেনো ওর মায়ের। কথা শুনতেই পাচ্ছে না)

তানভীর : দাড়া আম্মু এতক্ষনে তো টিভি তে খবর টা দেয়ার কথা,টিভি টা অন করি আগে

তানভীরের আম্মু:ছেলেটার যে কি হলো, কি জানতে চাইছি, আর ছেলেটা কি করছে, ওর মাথা ঠিক আছে তো
হ্যারে তানভীর আমি তোর কথা জানতে চাই আনুশার কথা নয়,বল আম্মুকে কি রেজাল্ট আসলো তোর

তানভীর : কিছু বলতে যাবে অমনি বাসার দরজাতে টোকা পড়লো, আম্মু যাই দেখে আসি কে আসছে

তানভীর দরজা খুলে দেখলো তানিম আসছে

তানভীর : কিরে তুই কি মনে করে এলি,

তানিম: এলাম আর কি, না এলে তো আর তোর পাগলামি দেখতে পারতাম না,রেজাল্ট পূরো এফ। তাতে ও তোর মধ্যে কোন এফেক্ট পড়েনি তুই আনুশার জন্য পাগল হয়ে আছিস

তানভীরের আম্মু:কিইইই তানিম তুমি কি বললে

তানিম: কেনো আন্টি তানভীর আপনাকে কিছু বলেনি, ওর তো রেজাল্ট ই আসেনি
তানভীরের আম্মু: স্তব্ধ হয়ে গেলাম ছেলের রেজাল্ট এর কথা শুনে,কিছু বলার ভাষা নেই

তানভীর : ওসব কথা ছাড় তুই কেনো এসেছিস সেটা বল

তানিম: প্রিন্সিপাল স্যারর তোকে ফোনে পাচ্ছে না তা আমাকে বল্লো তোকে বলতে কালকের অনুষঠানের কিছু আয়োজনে তোকে থাকতে বলেছে, তোকে আমি একটা মেসেজ সেন্ট করছি,সেখানে কি কি আনতে হবে সব লিখা আছে,অই গুলা স্যারর কে এনে দিবি

তানভীর : খুশি হয়ে,, ওও তাই দাড়া তো দেখি মোবাইল টা কোথায়,ইসসস চার্জ ই তো নাই দাড়া চার্জ দিচ্ছি

তানিম: আমি তা হলে যাই
তানভীর : মোবাইল টা চার্জে দিয়ে অন করে এক নজর দেখে নিলো লিস্টে কি কি আনতে হবে,তার পর মোবাইল রেখে বের হয়ে গেলো

তানভীরের আম্মু: কি বলবো আমি তানভীরের আব্বুকে কতো স্বপ্ন ওর ছেলেকে নিয়ে এখন,এখন কি হবে

আনুশা: রাত আটটা বাজলো এখন ও আমি কাউকে খবর টা জানাতে পারিনি,
আনুশার আম্মু: আল্লাহর খুশি সব মা, আজকের এমন একটা খুশির দিনে আমরা কাউকে খবর টা দিতে পারছি না,সবই আল্লাহর ইচ্ছে,আয় এশার নামায পড়ে নে

আনুশা: তুমি যাও মা আমি আসছি
রুমের জানলা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে আছে, রাতের শহরটা খুব ভালো লাগছে বিশেষ করে এই মন খারাফ এর রাতে, আজ তো খুব খুশি হওয়ার কথা আমার,তবু ও কেনো যেনো খুশি হতে পারছি না,মনে হচ্ছে কিছু একটা নেই, (আনুশার ভাবনায় পাটল পড়লো, কেন না মোবাইল টা বেজে উঠলো)
আনুশা: স্কিন এ তাকিয়ে দেখলাম অন্নি,কলটা রিসিভ করলাম

অন্নি:ঐ বান্দুরনি আজকের এমন একটা খুশির খবর আমাকে সবার আগে জানালি না কেনো,আমি একটু আগে খবর টা টিভি তে দেখলাম,তাই আমি এখন তোর উপর রেগে আছি

আনুশা:রাগ করিস না, ইচ্ছে থাকা সত্তেও তোকে জানাতে পারিনি,শুধু তুই কেনো,শিলা আপু, সুমি আপু, কাউকে বলতে পারিনি

অন্নি: যা আন্দাজ করেছি তা ই তো হলো তোর মোবাইলে ব্যালেন্স নাই,ওয়েট এ মিনিট,

আনুশা: যাহ লাইন কেটে দিলো কিছুক্ষন পর আনুশার মোবাইলে মেসেজ টোন বেজে উঠলো,আনুশা মোবাইলের দিকে তাকিয়ে নিশ্চয় পাগলি টা মোবাইলে টাকা রিসার্চ করছে
এই বার কলটা আমি করি, সে কি কল টা কেটে দিলো,

অন্নি: আনুশা আমাকে কল করেছে কল কেটে দিয়ে নিজে কল করলাম,ঐতোকে কি আমাকে কল করার জন্য রিসার্চ করে দিয়েছি,তুই এই গুলা দিয়ে সুমি এন্ড শিলা আপুর সাথে কথা বলবি

আনুশা: কিন্তু ওদের সাথে কথা বলতে তো এতো টাকা লাগবে না

অন্নি: তো না লাগলে ওগুলা মোবাইলে থাক পরে দরকার হতে পারে, আচ্ছা বাদ দে এগুলা,বল আজ তোর কেমন লাগছে

আনুশা: কেমন লাগবে আবার,অন্যদিন যেমন লাগছে আজ ও তেমন লাগছে
অন্নি: বুদ্ধ অন্য দিন আর আজ এক হলো, তোর এই সাকসেস এ আমি কিন্তু খুব খুশি, কতটা খুশি তোকে বলে বুঝাতে পারবো না
নেক্সট প্ল্যান কি বল

আনুশা: কি আবার হবে কিছুই না,একটা জব খুজবো পেলে ভালো, না পেলে আর কি করার বল

অন্নি: কি যে বলিসনা তুই অনায়াসে যে কোন ভার্সিটিতে সান্স পাবি

আনুশা: এগুলা নিয়ে আমি ভাবি না রে, আমার ভাবনা জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত যেন মাকে ভালো রাখতে পারি

to be continue

হারিয়ে যাওয়া পথ খুঁজে পাওয়া

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here