শ্বশুড়েরশর্তেবিয়ে (পর্ব:- ৩)

0
188

শ্বশুড়েরশর্তেবিয়ে (পর্ব:- ৩)
!!
লেখা :- মোহাম্মদ সৌরভ
!!
শ্বশুড়ের কর্ম কান্ড আমার মুটেও সুবিদার লাগছেনা, যখন তখন ভিডিও কল করে বসে। খাইতে গেলে ভিডিও কল ঘুমাতে গেলে ভিডিও কল। মনে হচ্ছে দুনিয়াতে ওনার এক মাত্র মেয়ে আর কারো মেয়ে নেয়। আর এদিকে সোনালী ওর বাপের চেয়ে একটু এগিয়ে কোলে করে বাথরুম থেকে রুমে আনছি এখন সে একা একা হেটে নিছে চলে যাচ্ছে। আরে সোনালী শুনো তুমি না পরে গেছিলে বলে আমিও খাবার টেবিলে গেলাম।
!!
ভাবি:- সৌরভ তোমার চাইতে তো তোমার বউ এগিয়ে আছে।
!!
দুলাভাই:- মনে হয় বাসর ঘরে বিড়ালটা ঠিকমত মারতে পারেনি।
!!
সোনালী:- কি করে মারবে বিড়াল তো বাসর ঘরে ছিলো না। তখনি সবাই আমার দিকে তাকিয়ে একটা হাসি দিয়েছে।
!!
ভাবি:- সোনালী রাতে তুমি বাসর ঘরে ছিলে না?
!!
আমি:- হ্যা রুমে ছিলো আরে ভাবি তুমিও না দাও নাস্তা দাও খিদা লাগছে। আমরা সবাই নাস্তা করতেছি এনমি আব্বু এসে আমাকে বলে,,,
!!
আব্বু:- সৌরভ বউ মাকে নিয়ে তুই আজকে ঐ বাড়ীতে চলে যাবি, সকালে তোর শ্বশুড় ফোন করে বলছে।
!!
আমি:- আচ্ছা ঠিক আছে! আমি আর সোনালী দুজনে এক সাথে খাবার শেষ করেছি। আমি আগে রুমে এসেছি সোনালী একটু পর রুমে এসেছে।
!!
সোনালী:- আমাকে যে কোলে নিয়েছো এইটা যদি আব্বুকে বলি তাহলে তোমার জামাই গিরি আজ থেকে শেষ। সতুরাং আর কোন সময় আমাকে কোলে বা স্পর্শ করবে না যদি ওয়াদা দাও তাহলে আমি আব্বুকে কিছু বলবো না।
!!
আমি:- বলো তাও আমি এমন ওয়াদা দিতে পারবো না, তুমি পরে যাবে আর আমি চেয়ে চেয়ে দেখবো তা কি করে হয়?
!!
সোনালী:- তাহলে তুমি এমন শর্ত মেনে আমাকে বিয়ে করছো কেনো?
!!
আমি:- আরে তখন তো মনে করছিলাম যে তোমাকে যখন একা পাবো তখন একটু আদর টাদর করবো। কিন্তু শ্বশুড় যে তোমাকে শর্তের কথা বলবে আর ভিডিও কল দিতে থাকবে কে যানে?
!!
সোনালী:- তুমি যানোনা এইটা আধুনিক যোগ এখন ঘরে বসে সারা বিশ্বের খবর রাখা যায়।
!!
আমি:- আচ্ছা আমাকে কি ক্ষমা করা যায়না?
!!
সোনালী:- করা যাবে তবে আব্বুর শর্ত যেদিন শেষ হবে। দেখি এখন সরেন আমি রেডি হবো বাড়ীতে যাওয়ার জন্য।
!!
আমি:- হ্যা হোনন আমার কি? আমি কি আপনাকে ধরে রাখছি নাকী?
!!
সোনালী:- ধরার সাহোস আছে নাকী লুকিয়ে লুকিয়ে কিস করতে পারবে। জীবনেও সামনা সামনি কিস করতে পারবে না। তুমি রুম থেকে এখন যাবে নাকী সব কিছু এখুনি আব্বুকে ফোন করে বলে দিব।
!!
আমি:- ফোন করতে হবে না আমি এখুনি বাহিরে যেতেছি। আমি বাহির হয়ে নিছে চলে এসেছি নিছে এসে দেখি ভাবি আর ভাইয়া দুষ্টমি করতেছে আমাকে দেখে ওরা আলাদা হয়ে গেছে।
!!
ভাবি:- সৌরভ তুমি রেডি হওনি?
!!
আমি:- সোনালী রেডি হচ্ছে আর আমি তো রেডি আছি।
!!
ভাবি:- আসলে তুমি সেই সনাতন জামানার আদি মানুষ রয়ে গেলে। যাও রুমে গিয়ে দেখো সোনালী শাড়ী কাপর নিয়ে বসে আছে আর তোমার জন্য অপেক্ষা করছে।
!!
আমি:- মানে ও বসে থাকলে কি আমাকে বের হয়ে আসতে বলে নাকী?
!!
ভাবি:- আরে বোকা বলছে বলেই তুমি চলে আসবে, আমিও এমন করেছি তোমার ভাইয়ারর সাথে আর পরে তোমার ভাইয়ার জন্য অপেক্ষা করেছি। যদি সোনালী তোমার জন্য অপেক্ষা করে তাহলে বুঝবে সোনালী তোমাকে মন থেকে বর হিসাবে মেনে নিয়েছে।
!!
আমি:- ধন্যবাদ ভাবি বলে এক দৌরে রুমে চলে এসেছি। এসে দেখি সোনালী রেডি হয়ে বসে আছে আমাকে দেখে বলে,,,,
!!
সোনালী:- কি হলো এমন ভাবে দৌরে এসেছো কেনো?
!!
আমি:- এমনিতেই চলো এবার বের হওয়া যাক। (সোনালী মনে হয় এই বিয়েটাতে খুশি হয়নি) আচ্ছা তুমি নিছে যাও আমি আসতেছি, সোনালী নিছে গেছে আমি একটু চেইঞ্জ করে একদম ফ্রেস হয়ে নিছে গেছি। সোনালী আমার দিকে তাকিয়ে আছে।
!!
আব্বু:- মা দুই দিন থেকে চলে এসো কেমন আর তোমার বাবা মাকে আমার সালাম জানিয়ে দিও কেমন?
!!
সোনালী:- আচ্ছা!
!!
আমি:- সোনালী আসো! দুজনে এসে গাড়িতে বসেছি গাড়িটা আমাদের নিজেদের। আমি সোনালীর পাশে বসে আছি সোনালীকে দেখতে অনেক সুন্দর লাগছে নেভিব্লু লাল শাড়িতে মনে হচ্ছে একদম পরী বসে আছে। সোনালীর দিকে তাকিয়ে আছি আমি এক দৃষ্টতে।
!!
সোনালী:- ঐ এমন ভাবে তাকিয়ে আছো কেনো? জীবনে কোনো দিন মেয়ে মানুষ দেখোনি?
!!
আমি:- মেয়ে মানুষ দেখেছি তবে বউ দেখেনি তো তাই দু নয়ণ ভরে দেখে নিতেছি।
!!
সোনালী:- এমন ভাবে তাকিয়ে থাকবে না থাকলে চোখ তুলে ফেলবো। ঐ আবার তাকিয়ে আছে বলে আমার চোখে গুতু দেওয়ার বান করছে আর আঙুল এসে আমার চোখে লেগে গেছে,, আর সাথে সাথে আমি চোখ বন্ধ করে নিয়েছি। আরে কি হয়ছে আমাকে দেখতে তো দিবে বলে সোনালী দেখতে চাইছে কিন্তু আমি দিতেছিনা।
!!
আমি:- আচ্ছা যদি আমার চোখটা নষ্ট হয়ে যায় তাহলে কি করবো আমি?
!!
সোনালী:- বোকার মত কথা বলো কেনো এইটুকু গুতোতে কি চোখ নষ্ট হয় নাকী?
!!
আমি:- হতেও তো পারে যদি হয়ে যায় তাহলে কি করবে?
!!
সোনালী:- কি আর করবো বাকী চোখটা নষ্ট করে দিবো আর তোমাকে আজীমপুর কবরস্থানের সামনে বসিয়ে দিয়ে আসবো। এখন হাতটা সরাবে নাকী বাকীটাও নষ্ট করে দিবো?
!!
আমি:- তোমার বাবা তোমার চাইতে শত গুনে ভালো আর তুমি বউ না জল্লাদ এমন ভাবে কেও চোখে গুতো দেয় নাকী?
!!
সোনালী:- আমি কি ইচ্ছে করে দিয়েছি নাকী আমি তো মজা করে দিয়েছি আর আমি কি জানতাম লেগে যাবে?
!!
আমি:- তুমি ইচ্ছে করে দিয়েছো তখনি সোনালী আমার হাতটা ধরে চোখ থেকে সরাতে চাইছে। কিন্তু আমি সরাচ্ছিনা অনেকক্ষন জুরা জুরি করার পর হাতটা সরিয়েছি তখনি সোনালী আমার বুকের মাঝে চলে এসেছে। আমিও সুযোগ পেয়ে জড়িয়ে ধরেছি সোনালী নিজেকে এক জাটকাই ছাড়িয়ে নিয়ে মোবাইল বের করে শ্বশুড় মসায়কে ভিডিও কল করে বসছে,,,,,
!!
চলবে,,,,,,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here