স্যার যখন স্বামী পার্ট_০২

0
293

স্যারযখনস্বামী
পার্ট_০২
#লিখা জান্নাতুল ফেরদৌস

ওর এই মেসেজ পড়ে আমার মাথা ব্যথা শুরু হয়ে গেছে। মেসেজে এই লিখা ছিল।
আজকে তো অনেক সুন্দর করে সেজেছ।আমাকে বিয়ে করবে বলে তোমার এই সাজ।যে দিনটার প্রতীক্ষায় এতদিন তুমি ছিলে আজকে সে দিনের অবসান ঘটিয়ে তোমার সে স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। জানোতো মেঘ ছোটবেলা থেকে আমার একটা বদঅভ্যাস ছিল কারও চোখেমুখে হাসির ঝলক ফুটে উঠলে যতক্ষণ পর্যন্ত আমি তার এই হাসিখুশি মুখে মেঘের শ্রাবণ নামাতে না পারি ততক্ষণ পর্যন্ত আমার হাত পা নিষপিষ করে।তাকে কাঁদানোর আগ পর্যন্ত আমি শান্তি পায় না। তাকে আমি আগে হোক বা পিছে হোক কাঁদিয়েই ছাড়ি। আচ্ছা ভাবো তো মেঘ বরপক্ষ আজকে বিয়েতে আসল না,তোমার সব স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে,তোমার মা বাবা সমাজে মুখ দেখাতে পারবে না, সবার চোখে মুখে কান্নার অশ্রু। পরিস্থিতিটা কেমন হবে বলতো?দারুণ হবে তাই না? এতক্ষণে হয়ত তোমার ব্রিলিয়ান্ট মাথায় এটা ঢুকে গেছে আমি কি বলতে চাচ্ছি। হ্যা তুমি ঠিকই ভাবছো তোমার ভালবাসার সাগর, যাকে তুমি অনেক ভালবাসো সে আজকে তোমাকে বিয়ে করতে আসছে না।আজকে খুব খুশি লাগছে আমার। এতদিন ধরে আমি যে প্রতিশোধের আগুনে জ্বলছিলাম আজকে তোমাকে কাঁদিয়ে,পুরো সমাজের সামনে তোমার মুখে চুনকালি মাখিয়ে আজকে আমার এই প্রতিশোধের সমাপ্তি করাবো। আজকে তোমাকে কাঁদিয়ে আমি শান্তির নিদ্রাতে ডুব দিব। ভালো থেক মেঘ, পরবর্তী সীন দেখার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করিও হাহাহা।

সাগর কেন এইসব করছে?কিসের প্রতিশোধের কথা বলছে। বুঝতে পারছি না।ও হয়ত আমার সাথে ফাজলামি করছে। প্রথমদিকে ওর এই ধরণের মেসেজ দেখে খুব ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম,ভেবেছি সত্যি সত্যি ও বিয়েতে আসবে না। কিন্তু পরক্ষণেই আমার মনে হল,ও তো সবসময় যে কোন মূহুর্তে আমার সাথে ফাজলামি করে বসে। আমাদের রিলেশন চলাকালীন ও এরকমভাবে আমাকে ভয় দেখিয়ে প্রথমে আমাকে কাঁদাত, তারপর আমার কান্না দেখে ও অট্টহাসিতে ফেটে পড়ত।বলত আরে বোকা মেয়ে ফাজলামি করেছিলাম এতক্ষণ ধরে। আসলে দেখতে চাচ্ছিলাম কাঁদলে তোমাকে কেমন লাগে?
কিন্তু সেদিনের সে কথাগুলো মেনে নিলেও আজকে মেনে নিতে পারছি না।সেসময়ের পরিস্থিতি একরকম ছিল আর আজকের পরিস্থিতি আরেকরকম। এমন দিনেও কেউ এভাবে ভয় দেখিয়ে ফাজলামি করে। এরকম ফাজলামির মানে কি?এখন কল দিয়ে ওকে ইচ্ছামত বকা দিব, আজকে ও আমাকে যতই কাঁদাতে চাক না কেন আমি কিছুতেই কাঁদবো না,ওর এই ফাজলামি আমি এখনি বের করছি।

ওকে কল দিলাম,সাথেসাথে কল রিসিভ করল।সাগর এইরকম ফাজলামির মানে কি?প্লিজ আজকের দিনেতো এইসব বাদ দাও।আমাদের বিয়ের পর আমার সাথে যতখুশি ফাজলামি করো কিন্তু এখন এইসব ফাজলামি বন্ধ কর।তুমি জান প্রথমে তোমার এই মেসেজ পেয়ে আমি কত ভয় পেয়ে গেছি।ভেবেছি তুমি সত্যি সত্যি আমার সাথে এরকম করবে। কিন্তু পরে মনে হল তুমি আমার সাথে ফাজলামি করছ। আমি তো জানি তুমি আমার সাথে কখনো এরকম করবেনা।আমি আমার সাগরকে চিনি।সাগর তোমার মুখ দিয়ে একটাবার শুধু একটাবার বল তুমি আমার সাথে এতক্ষণ ধরে ফাজলামি করছিলে, আমাকে মেসেজে তুমি যা জানিয়েছ সব মিথ্যা।শুধু একটাবার আমি তোমার মুখ থেকে এই কথা শুনতে চাই,প্লিজ… তাহলে আমি মনে খুব শান্তি পাব।আমার এখনো মনের ভয় কাটেনি।সাগর…. কিছু বলছ না কেন?কিছু বল?

এই মেয়ে তুমি কি এক কথায় বুঝ না।মেসেজে তোমাকে যা বলেছি সব সত্যি। আমি মিথ্যা কিছু বলি নি।তোমাকে আমি বিয়ে করতে আসছি না।

সাগর এইসবের মানে কি?এই মূহুর্তে তুমি এইসব কি বলছ?তুমি বুঝতে পারছ তুমি কি বলছ?দেখ আমার উপর যদি তোমার কোন রাগ থাকে বিয়ের পর আমরা দুইজন এই বিষয় নিয়ে কথা বলে সমস্যার সমাধান করতে পারি।কিন্তু প্লিজ এইসব ফাজলামি এখন বাদ দাও। বিয়েতে তাড়াতাড়ি চলে আস।আমি তোমার জন্য অপেক্ষা করছি।

এই তোর সমস্যা কি?তোর কোন কারণে মনে হচ্ছে আমি তোর সাথে ফাজলামি করছে।আমাকে কি তোর জোকার মনে হয় যে আমি তোর সাথে ফাজলামি করব।

সাগর তুমি আমার সাথে এইরকম ব্যবহার কেন করছ?তোমার এই ধরণের কথায় আমার খুব কষ্ট হচ্ছে।প্লিজ সাগর তোমার এইসব কথা আমার ভালো লাগছে না।তুমি চলে আস বিয়েতে সবাই তোমার জন্য বসে আছে।

তুই সহ তোর মা বাবা বসে থাক আমার তাতে কিছু যায় আসে না।আমি আসছি না। তোর সাথে আমি এতদিন ভালবাসার নাটক করেছি,আর তুই কি বোকা মেয়ে আমার এই ভালবাসাকে সত্যি ভেবে বসেছিস। আবার আমাকে বিয়ে করার জন্য পাগল হয়ে গেছিস।আসলেই তুই একটা বোকা।

ভালবাসার নাটক!!সাগর এইসব তুমি কি বলছ?আমি তোমার কি এমন ক্ষতি করেছি যার জন্য তুমি আমার সাথে এই জঘণ্য খেলা খেলছ।আমার অপরাধটা কি?

অপরাধ হাহাহা….তোর মেমোরী এমন কেন বলতো?আগের সব কথা ভুলে গেছিস।দাঁড়া আমি তোকে মনে করিয়ে দিচ্ছি… মনে আছে ৪ বছর আগে তুই আমাকে পাব্লিক প্লেসে আমার বন্ধুদের সামনে আমাকে থাপ্পড় মেরেছিলি। তুই এই কথা এত তাড়াতাড়ি কেমন করে ভুলে গেলি?আমি তো এইসবের কিছুই ভুলে নি।বারবার আমার কানে সেই থাপ্পড়ের আওয়াজ বাজে।ওইদিন থেকে মনে মনে প্রতিজ্ঞা করেছি তোর উপর আমি প্রতিশোধ নিব। প্রথমে তো ভেবেছিলাম তোর সর্বনাশ করব।কিন্তু তোর সর্বনাশ করলে তুই হয়ত নিজের জীবন শেষ করে দিতি,নাহলে ঘটনাটা ধামাচাপা দিয়ে রাখতি।তাহলে আমার প্রতিশোধটা ও পূরণ হত না।আমাকে যেমন করে পাব্লিক প্লেসে,আমার বন্ধুদের সামনে অপমানিত করেছিস,আমিও তোকে ঠিক একিভাবে অপমান করতে চেয়েছি।তাইতো তোর সাথে ভালবাসার মিথ্যা অভিনয় করে গেছি এতদিন।আমি এতদিন এই দিনটার আশায় ছিলাম।আজকে তোর মতন আমার ও সেই স্বপ্নের দিন হাজির হয়েছে। আজকে বিয়েতে আমি যখন আসবো না তখন সবার সামনে তুই, তোর মা বাবা অপমানিত হবি।তোর সে থাপ্পড়ের অপমান আমার ইগোকে হার্ট করেছিল সেদিন। আজকে তুইসহ তোর ফ্যামিলি অপমানিত হলে আমার কলিজা ঠাণ্ডা হবে।তোর সেই ভুলের শাস্তি আজকে তুইসহ তোর ফ্যামিলি ভোগ করবে।

সাগর আমি সেইদিনের সে ঘটনার জন্য তোমার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছি।আর তুমি!!এত্ত ইগো তোমার!! তোমার মনে এই ছিল এতদিন?তোমার মতন একটা অমানুষকে আমি ভালবেসেছি….আজ তোমার এই ইগোর জন্য আমাকে অপমানিত হতে হবে….অপমানিত হতে হবে আমার মা বাবাকে। যে দোষ আমার মা বাবা করেনি সে দোষের শাস্তি তাদের পেতে হবে। সাগর তুমি এতদিন আমার সাথে ভালবাসার মিথ্যা অভিনয় করে আমাকে ঠকিয়েছ….. আমাকে আজকে যে পরিমাণ কষ্ট দিয়েছ আল্লাহ যদি এইসব দেখে থাকে তাহলে আমি বলছি আমার সাথে যেমন তুমি ভালবাসার মিথ্যা অভিনয় করেছ তোমার সাথে ও এরকমভাবে কেউ ভালবাসার মিথ্যা অভিনয় করবে….একটুকরো ভালবাসার পরশ পাওয়ার জন্য তুমি কেঁদে কেঁদে বেড়াবে কিন্তু তোমার কপালে কখনো কারও ভালবাসা জুটবে না।আই হেইট ইউ সাগর।

আরে…যা যা… এই সাগর ভালবাসার জন্য কারো পিছনে দৌঁড়ায় না,সাগরের পিছনে মেয়েদের ভালবাসা দৌঁড়ায়।তোর এইসব ফালতু কথার ঝুড়ি তোর কাছে রাখ।আর কয়েক মিনিট পর তামাশার খেলা দেখতে নিজেকে তৈরী কর। Best of luck. এই বলে কল কেটে দিল।

সাগর আমার সাথে এইরকম করতে পারল?আমি এখন এই মুখ কেমন করে দেখাবো… আমার মা বাবা ওদের কি হবে?যে বিশ্বাস আমার উপর তারা করেছিল সে বিশ্বাসের কি হবে?এর থেকে যদি ওরা আমাকে ওদের পছন্দের ছেলের সাথে বিয়ে দিত তাহলে হয়ত আজকে এইদিন দেখতে হত না।আমার মা বাবাকে অপমানিত হত না। বাইরে থেকে চিল্লাচিল্লি কান্নাকাটির আওয়াজ শুনলাম। জানালা দিয়ে দেখছি সাগরের মা বাবা আসছে কিন্তু সাগর আসে নি। সাগর নাকি পালিয়ে গেছে।সাগরের মা বাবার কথাবার্তা শুনে আমার মা বাবা পাগলের মতন কান্নাকাটি শুরু করে দিয়েছে। বিয়ের বাড়িতে আমন্ত্রিত মেহমানরা নিজেদের মধ্যে কানাঘুষা লাগিয়ে দিয়েছে।মা বাবাকে সান্তনা দেওয়ার জন্য তন্ময় স্যার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তাদের কান্নাকাটি কিছুতেই থামছে না। তারা তো জোরে জোরে কান্নাকাটি করতে পারছে কিন্ত আমি… আমিতো সেটাই পারছি না।খুব কষ্ট হচ্ছে আমার। মা বাবার মতন কেঁদে এই কষ্টের ব্যথা কমাতে চাচ্ছি। কিন্তু আমার হাত পা বাঁধা। মেয়েদের এত জোরে কাঁদার কোন অধিকার নেই।আমার জন্য শুধু আমার জন্য তাদের আজকে এই অবস্থা।আমার পছন্দের উপর অগাধ বিশ্বাস ছিল তাদের, তাই আমার পছন্দ অনুযায়ী তারা আমার বিয়ে দিতে রাজি হয়েছে সাগরের সাথে।কিন্তু সাগর….ও কি করল? ও আমার বিশ্বাস ভেঙ্গে দিয়েছে। আমার জন্য আজকে আমার মা বাবাকে লোকের কথা শুনতে হচ্ছে। আমি কাঁদছি,মা বাবা কাঁদছে।এটাই তো তুমি চেয়েছিলে!! তুমি না আসাতে হাসি খুশিতে ভরা বিয়ে ঘরে আজ শশ্মানঘাটের মরা কান্নাতে পরিণত হয়েছে।এটাই তো তুমি দেখতে চেয়েছিলে। কোথায় তুমি?তোমার প্রতিশোধ নেওয়া সফল হয়েছে। কাপুরুষের মতন কেন পালিয়ে গেলে? সাহস করে একটাবার এসে দেখে যেতে কি অবস্থা করে গিয়েছ তুমি? (কেঁদেকেঁদে) আজ শুধু আমি ঠকি না আমার সাথে আমার মা বাবাও ঠকেছে। ওদের সামনে আমি এই মুখ কি করে দেখাবো। আমি পারবো না এই মুখ নিয়ে তাদের সামনে যেতে। তাই এই জীবন শেষ করে দিব।আমি জানি আত্মহত্যা করা মহাপাপ।কিন্তু আমার কিছু করার নেই। আমি ওদের এই কষ্ট এই কান্না আর দেখতে পারছি না।আমাকে মাফ করে দিও মা বাবা।তোমাদের মেয়ের জন্য আজকে তোমাদের এই অবস্থা,আমার উপর তোমাদের যে বিশ্বাস ছিল সে বিশ্বাসের মর্যাদা আমি রাখতে পারি নি।
চলবে…

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here