প্রেগন্যান্ট শেষ পর্ব

1
455

প্রেগন্যান্ট শেষ পর্ব
লেখক✍ধ্রুব

কিন্তু কত বোকা ছিলাম আমি কখনও বুঝতে পারিনি

মাছ ধরার আগে তাকে খাবার দিতে হয় আর যখন সে মাছ হাতে আসে তখন তাকে খাবার নয় আছাড় দিয়ে মেরে ফেলতে হয়

যেমনটা তুমি করেছো আমার সাথে

আসলে তোমার কারও ভালাবাসা দরকার ছিলোনা দরকার ছিলো শুধু একটা শরীরের

ভালোবেসে যখন তোমায় পাবোনা বুঝতে পারছি তখন তোমাকে একটা মিথ্যা বলেছি

আমি তোমার সন্তানের মা হতে চলেছি

বিশ্বাস করো শুধু তোমাকে পাওয়ার জন্য বলেছি আর কিছু নয়

কিন্তু যখন বুঝতে পারছি তখন সিদ্ধান্ত নিয়েছি তোমায় যখন ভালোবাসা দিয়ে নিজের করে নিতে পারিনি তখন মিথ্যে অপবাদ দিয়ে নিজের করে নিয়ে কি হবে

তাই এ জীবন আর রাখবনা শেষ করে ফেলবো নিজেকে

আমার জন্য নয় তোমাকে সুখী করার জন্য

তুমি হয়তো অন্য একটা মেয়ে নিয়ে বিছানা যেতে পারবে
সাজাতে পারবে স্বপ্নের বাঁসর কিন্তু না আমি পারবো অন্যকারও বিছানার সঙ্গী হতে আর না পারবো তোমাকে অন্যকারও সাথে বিছানা দেখতে

তোমার কাছে আমার শেষ একটা অনুরোধ

যদি সময় হয় একবার দেখে আমার কবরে একমুঠো মাটি দিও

আমার সব ভালোবাসা রেখে গেলাম তোমার জন্য
ভালো থেকো তুমি ভালো থেকো প্রিয়

বৃষ্টির SMS টা দেখে কেন জানি মনে হলো আমার জীবন থেকে কি যেন হারিয়ে যাচ্ছে

বৃষ্টিকে ফোন দিতে দেখি বৃষ্টির ফোন বন্ধ বলছে

অনেকটা ভয় পেয়ে গেলাম জানিনা ভয়টা কিসের বৃষ্টিকে হারানোর নাকি সারাজীবন অপরাধী হয়ে থাকবো তার জন্য

অনেকবার ফোন দেয়ার পরও বলছে ফোনটা বন্ধ

তাই কোনকিছু না ভেবে ছুটে গেলাম বৃষ্টির বাসায়

সেখানে গিয়ে জানতে পারি বৃষ্টি নাকি বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করতে গেছে

হাসপাতালের ঠিকানাটা নিয়ে ছুটে গেলাম সেই হাসপাতালে

সেখানে গিয়ে জানতে পারি বৃষ্টি এখন বিষ মুক্ত

তার ছোটভাইটা তার পাশে আছে

আমি ভিতরে ঢুকতে সবাই বলে
কে আপনি এখানে এভাবে ঢুকলেন কেন

তখন আমি সবাইকে সত্যটা বলে দেই

আমি/ আমি সেই ছেলে যার জন্য আপনার বোন বিষ খেয়েছে

সবাই হা করে আমার দিকে তাকিয়ে আছে

বৃষ্টির ছোটভাইটা এসে আমার শার্টের কলার ধরে বলতে লাগলো

ছোটভাই/ বল কি করেছিস আমার আপুর সাথে কি বলেছিস আমার আপুকে যার জন্য বিষ খেয়ে মরতে চাইছে আমার বোনটা

আমি কিছুই বলিনা কি বলবো আর কি বা বলার আছে আমার শুধু তাকিয়ে আছি বৃষ্টির দিকে

অন্যসব লোক গুলো বৃষ্টির ভাইকে বাহিরে নিয়ে গেছে

আমি বৃষ্টির পাশে বসে ওর হাতটা ধরে কাঁতে লাগলাম

আমি/ বৃষ্টি আমি বুঝতে পারিনি তুমি আমাকে এতটা ভালোবাসো কিন্তু আজ যখন বুঝলাম তখন তুমি কেন আমাকে একা করে চলে যাচ্ছো একবার চোখ খুলো বৃষ্টি একবার চোখ খুলো এই দেখ আমি এসেছি

এভাবে বলে বলে কাঁদতে লাগলাম আমি

হঠাৎ করে দেখি বৃষ্টির হাতটা নড়ে

খুব ছোট ছোট করে বৃষ্টি বলতে লাগলো

বৃষ্টি/ এই পাগল কাঁদছো কেন তুমি আমি কি তোমায় একা করে চলে যেতে পারি

আমি চলে গেলে আমার পাগলটার কি হবে

আমি কখনও পারবনা তোমায় ছাড়া থাকতে

আমার চোখের জলটা মুছে দিতে দিতে বৃষ্টি আরও বলে

না পারবো আমি তোমায় ছাড়া বাঁচতে আর না পারবো তোমায় ছাড়া মরতে

আমি আর কি বলবো মুখে যে কিছু আসেনা তাই খুব শক্ত করে জড়িয়ে ধরেছি দুজন দুজনকে

প্রাণ শুধু বৃষ্টির দেহে নয় আমার দেহেও ফিরে এসেছে

আজ বুঝেছি ভালোবাসা দেহ দিয়ে নয় মনে মন দিয়ে হয়

💙💙💙সমাপ্ত💙💙💙

✍✍✍ছোট ছেলে

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here