হারিয়ে যাওয়া অনুভূতি পাঠ-১১

0
355

হারিয়ে যাওয়া অনুভূতি পাঠ-১১
#আরিশা অনু

–অনুুউউউউ।মেয়েটার কি হল আবার দৌঁড়ে ওর কাছে গেলাম।ওর মাথাটা কোলের মধ্যে নিয়ে ডাকতে লাগলাম ওকে।অনু কি হয়েছে তোমার প্লিজ চোখ খোলো। এই মেয়ে কথা বলনা কেন।উফ্ কেনো যে এসব বলতে গেলাম ওকে নিজের উপরি মেজাজ খারাপ হচ্ছে এখন আমার……!!!

–নিপা দ্রুত ডক্টর কে কল করো…!!!

–জ্বী স্যার….!!!

–অনন্যা কোলে তুলে নিয়ে গেস্ট রুমের দিকে এগলাম। গেস্ট রুমে নিয়ে যেয়ে সোফায় শুইয়ে দিলাম ওকে। একটু পর ডক্টর আসলো….!!!

–ডক্টর সবকিছু দেখার পর বললো প্রেশার অনেক লো আর হঠাৎ কোনো মানসিক আঘাত পেয়েছে হয়তো উনি তাই সেন্স হারিয়েছেন তবে চিন্তার কোনো কারন নেই।ঠিকমত রেস্ট নিলে আর মেডিসিন নিলে ঠিক হয়ে যাবে।তারপর ডক্তর কিছু মেডিসিন লিখে দিয়ে চলে গেলেন…!

–একটু পর অনন্যার সেন্স ফিরে আসলো।উফ্ এতখন খুব ভয়ে ছিলাম ওকে নিয়ে…..!!!

–তখন পড়ে যাওয়ার পরে আর কিছু মনে ছিলনা আমার।এখন চোখ খুলে দেখি একটা রুমে শুয়ে আছি। আর রোহান আমার একটা হাত ওর দুহাতের মুঠোয় নিয়ে করুন চোখে আমার দিকে তাকিয়ে আছে যেন এখনি কেঁদে ফেলবে।আরোও একটু সামনে তাকাতে দেখি তৃধা অগ্নি দৃষ্টি দিয়ে তাকিয়ে আছে আমার দিকে।এখন একটু একটু করে সবকিছু মনে পড়ছে আমার।হঠাৎ রোহান আর তৃধাকে তখন ঐ ভাবে দেখেছিলাম সেটা মনে পড়তেই ধড়ফড় করে ঠেলে উঠে বসলাম আমি।বুকের ভেতরটা যেন যন্ত্রনায় ছিড়ে যাচ্ছে আবার….!!!

–একি অনু তুমি উঠছো কেনো। তোমার শরীর এখনো ঠিক হয়নি শুয়ে থাকো তুমি।অনন্যা কে উঠে বসতে দেখে রোহান কথাটা বললো…!!!

–স্যার আমি একদম ঠিক আছি।আমার মত সামান্য এটা স্টাফ এর জন্য এত চিন্তা করা লাগবে না আপনার।তারপর সোফা থেকে উঠে পড়লাম। উঠে দাঁড়ানোর সাথে সাথে মাথার ভেতর টা আবার ঘুরে উঠল।পড়ে যাচ্ছিলাম তখন রোহান ধরে ফেললো আমায় ……!!!

–অনন্যা তোমায় বললাম না তুমি রেষ্ট নাও।দেখলে তো কি হতে যাচ্ছিল আবার বললো রোহান….!!!

–নিজেকে সামলে নিয়ে রোহানের কথার উওর দিলাম স্যার আমি একদম ঠিক আছি।তারপর রুমথেকে চলে এসে নিজের কেবিনে ডুকলাম..!!

–চেয়ারে বলে ভাবতে লাগলাম তৃধার কথা।এই মেয়েটার জন্যেই আজ আমি রোহানের থেকে আলাদা…..!!!

–তৃধা রোহানের মামাতো বোন।রোহান কে ও ভালোবাসে।হঠাৎ করে রোহানের আর আমার বিয়ে হয়ে যায়।তৃধা এটা শুনে আমাদের আলাদা করার জন্য রিতিমত পাগল হয়ে উঠেছিল।আর শেষমেস ও ওর চক্রান্তে সফল ও হয়….!!!

–আলাদা করে দিল চিরদিনের জন্য আমাকে আমার রোহানের থেকে।বার বার রোহান কে বলেছিলাম এসব মিথ্যা কিন্ত রোহান কিছুতেই আমায় বিশ্বাস করেনি সেদিন ভাবতে ভাবতে চোখে পানি জমা হল আবার।হঠাৎ সামনে চোখ পড়তেই দেখি তৃধা অগ্নি দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে আছে।তারপর আমাকে বললো…..!!!

–খুবতো নাটক করতে পারো তুমি বাহ্ সুন্দর করে মাথা ঘুরে পড়ার নাটক করলে।অবশ্য এই সুযোগে রোহানের কোলেও উঠলে পারলে।তোমার মত নিলজ্জ বেহায়া মেয়ে আর দুটো দেখিনি আমি।আজ কত খেল দেখাবে বাপু এবার তো ওর ঘাড় থেকে নামো একরাশ খোব নিয়ে কথাটা বললো তৃধা…….!!!

–আমি কোনো নাটক করিনি তৃধা নাটক তো তুমি করে ছিলে সেদিন।তোমার সাজানো নাটকের জন্য আজ রোহান আমার থেকে দূরে সরে গেছে।আর কত খেল দেখাবা তুমি?আমাকে বেহায়া বল তুমি তো বেহায়া কে ও ছাড়িয়ে গেছ……..!!!

–রাগে গজ গজ করতে করতে তৃধা বলে উঠলো কি বললে তুমি আমি বেহায়া? তবে এবার দেখো তোমার কি হাল করি আমি। শুধু দেখতে থাকো তৃধাকে বেহায়া বলার রিভেঞ্জ কি করে নি তোমার থেকে আমি জাস্ট ওয়েট এন্ড ওয়াচ। তারপর বেরিয়ে আসলাম অনন্যার কেবিন ছেড়ে….!!!

–আবার কোন নাটক করবে এই মেয়ে কে যানে।একবার নাটক করে তো আমার পুরো জীবনটাই ওলট পালট করে দিয়েছে।কথাগুলো ভাবতেই অনন্যার বুকচিরে বেরিয়ে আসলো একরাস দীর্ঘশ্বাস…….!!!
.
.
.
.
.
Continue….
।ভুলত্রুটি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here