স্বামীর ভালোবাসা part : 38

0
449

স্বামীর ভালোবাসা part : 38

লেখিকা সুরিয়া মিম

!
অসভ্য তোর ভাইকে গিয়ে জিজ্ঞেস কর,
……
হা হা হা,
……
ইসসস,
আমার বুঝি লজ্জা করেনা?
বড় ভাই, চাচাতো না আমার নিজের ভাই কে এসব জিজ্ঞেস করলে কি ভাববে হুমম?.
….
তোর মাথা আমার মুন্ড,
!
হা হা হা,
…..
মোটে ও দাঁত কেলাবিনা বুঝলি?

হ্যা বুঝলাম,
তবে আমার ভাই তোকে খুব ভালোবাসে,

মাগো মা,
তোর জামাই বুঝি বাসে না?
……
বাসে তো খুব বাসে,
তবে একটা কথা বলি?
….
কি?
…..
আমার ভাই টাকে না ঘৃণা করা ছেড়ে দে,

তুই জানিস?
তুই ওকে ছেড়ে চলে আসার পর থেকে,
ও আমাকে ফোন করে পাগলের মতো করতো,
….
ফোন রিসিভ করে হ্যালো বলার আগে কেঁদে ফেলত ভাইয়া,

আমি জানি ভাইয়া যেটা করেছে সেটা ক্ষমার যোগ্য না,
….
তবু ও তুই ওকে ক্ষমা করে দিয়েছিস,
এখন ওকে আগের মতো ভালোবাসা দিয়ে ভরিয়ে দেনা প্লিজ?
…..
আমার ওনা কে কিছু দিয়ে ভরিয়ে দেওয়ার দরকার নেই,
…..
কারন তোর ভাই আমাকে ভালোবাসা দিয়ে ভরিয়ে দেয়,
…..
ইদানীং ওনার মধ্যে পুরনো অভ্যাস গুলো প্রকাশ পাচ্ছে,
আর আমি পাগল থেকে পাগলী হয়ে যাচ্ছি,
…..
কেন রে?
……
বিয়ের পরে তোর ভাইয়ের যে অভ্যাস গুলো ছিলো,
ও গুলো তো দিন কে দিন বাড়ছে বই কমছে না,
….
কমবে কি করে?
ও যে তোকে সত্যি করারের ভালোবাসে,
….
আর তাই তো আল্লাহ যার জিনিস তাকে ফিরিয়ে দিয়েছে,
!
হয়েছে বুঝেছি এখন তাড়াতাড়ি রান্নাবান্না শেষ কর সন্ধে হয়ে এলো তো?

হয়ে গেছে তো,
….
কোই চোখে কি কম দেখ?
এখনো তো চিংড়ি মাছের মালাই কারি টা বাকি আছে?
….
মিশশশ মালাই কারি তুই রান্না করবি,
তোর হাতের মালাই কারি খেতে অনেক ভালোলাগে হুমম,

আচ্ছা বাবা ঠিক আছে,
..
রান্নাবাড়া শেষে আমি শাওয়ার নিতে রুমে চলে যাই,
শাওয়ার শেষে ডায়নিং এ গিয়ে দেখি,
………
সবাই কবজি ডুবিয়ে ভুড়ি ভোজ করছে,
…..
আমি যেতেই সবাই আমাকে জোর করে ওনার পাশে খেতে বসায়,
…..
আর আমি ও চুপটি
করে খেয়ে নেই,
তখন আঙ্কল আমার রান্নার প্রশংসা করে বলে,
…..
তোমার হাতে যাদু আছে মা,
তোমার হাতের রান্নায় যেন অমৃতের স্বাদ,

আশ্চর্য আব্বু তুমি শুধু ওর প্রশংসা করছ?
শুধু ও রান্না করেছে আমি কিছু করিনি?
..
হ্যা করেছ,
তুমি তো শুধু ঘটি বাটি নাড়াচাড়া করছ,
হা হা হা,
!
তোমরা সবাই পঁচা,
…..
হয়েছে বুঝেছি,
এখন একটু খেতে বয় প্লিজ,
…..
তারপর রিয়া খেতে বসে,

খাওয়াদাওয়া সেরে যে যার স্বামী ও বাচ্চাকাচ্চা নিয়ে রুমে চলে যাই,
..
রুমে গিয়ে বাবুদের ঘুম পারিয়ে,
ওনার মাথায় হাত বোলাতে শুরু করি,
….
তারপর উনি আমার চুল নিয়ে দুষ্টুমি করতে শুরু করে,
….
দুষ্টুমি করতে করতে বলে,

তুমি কি এখানে এসে ভুলে গেছ?
তোমার একটা স্বামী
ও দুটো বাচ্চা আছে
..
না ভুলে যাইনি,
যাবো কি করে?
আপনি ভুলতে দিলে তবে তো?
….
তুমি কেন আমাকে আপনি করে বলো?
তুমি করে বলো না তুমি,
. . .
একটু কষ্ট করে আমাকে ভালোবাসার চেষ্টা করে দেখ,
….
দেখবে সব আগের মতো ঠিক হয়ে গেছে,
বলো তুমি করে বলো,

আমি বলছি তুমি শান্ত হয়ে বস প্লিজ,
এভাবে চাকু টা হাতে নিয়েছ কেন?
রাখো বলছি রাখো,

আগে বলো আমাকে আপনি করে বলবেনা তে?
.
না আমি বলবো না,
তুমি চাকু টা ফেলে দাও ভয় করছে আমার,
…..
না আমি ফেলবো না,
..
তোমার লেগে যাবে সোনা,
ব্যথা পাবে তো,
….
আমি ব্যথা পেলে পাবো তাতে তোমার কি?

আমার কি তাইতো?
আমার কিছুনা,
….
তুমি একটা স্বার্থপর,
তুমি শুধু তোমার কথা ভাবো,
….
তাই তো সবকিছু ঘেটে “ঘ” করে দাও,
….
তোমার যখন আমাদের প্রয়োজন নেই,
তখন আমাদের ও তোমার প্রয়োজন নেই ,

আমি কালকেই আমার বাচ্চাদের নিয়ে তোমার জীবন থেকে অনেক দূরে চলে যাবো,
….
তারপর থেকো তুমি তোমার এই পাগলামো নিয়ে,
….
আমার কথা শেষ হওয়ার আগেই চাকু টা ফলে মুখ টা চেপে ধরে আমার,
!
আমি ছাড়ানোর চেষ্টা করতেই,
.. ..
আমার আচল দিয়ে আমার হাত দুটো বেধে দিয়ে,
…..
আমাকে জড়িয়ে ধরে কাঁদতে কাঁদতে বলে,
…..
হাত বেধে দিয়েছি কোথাও যেতে পারবেনা তুমি,
….
এখন দেখি তুমি পালিয়ে যাও কি করে?

হাত বেধেছ পা তো বাধনি,
পা দিয়ো হেটে হেটে যাবো,

যেতেই দিবো না,

এভাবে কিছুক্ষণ বেধে রাখার পর,
নিজেই আমার হাতের বাধন খুলে দিয়ে কপালে, দু গালে চুমু খেয়ে বলে,
. .
তুমি আমাকে ছুঁয়ে প্রমিছ করেছ,
..
তুমি কোথাও যেতে পারবেনা হুমমম,
..
বললেই হলো?
আপনি ঘুমলেই আমি পালিয়ে যাবো,
..
ঘুমবোই না,
….
এই মেলা ফ্যাচফ্যাচ করবেননা তো যতসব বিরক্তকর,

বেটা বদ কে ঝাড়ি মেরে বাচ্চাদের জড়িয়ে লাইট অফ করে শুয়ে পরি আমি,

হঠাৎ অনুভব করি উনি আমার হাতে পিঠে আলতো করে চুমু একে দিচ্ছেন…
…..
বেটা নাইজেরিয়ান এ্যানাকন্ডা,
…..
আমার রাগ ভাঙাতে ঘুষ হিসেবে চুমু প্রদান করছে,
….
হা হা হা

চলবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here