স্বামীর ভালোবাসা part : 17

0
449

স্বামীর ভালোবাসা part : 17

লেখিকা সুরিয়া মিম

!
গেল তো গেল পাবলিক প্লেসে আমাকে লুচ্চা বলে গেল,
!
কি হলো মুখ টা বাংলার পাঁচের মতো করে আছিস কেন?
!
পাঁচ নাতো কি দশের মতো করে থাকবো?
!
ক্যান কি হয়েছে হুমম?
!
এক লুচ্চার জ্বালায় অতিষ্ঠ,
আরেক লুচ্চা আবার হেলফ করতে চায়,
!
এম্মা কি কও কি তুই?
!
আরে মিশকা আরিয়ানের কথা বলছে,
!
কি এই মদনা টাকে তুই আবার কোথায় পাইছ?
!
কোথায় আবার?
বাস মিস করে দাঁড়িয়ে ছিলাম,
….
তখন এসে বলে,
মে আই হেলফ ইউ?
!
ওর আবার এতো হেলফ করার সখ হলো কবে থেকে?
!
জানিনা জিসা তবে আমার মনে হয়,
!
কি?
!
“ডাল মেয়ে কুছ কালা হ্যায়”
!
বাট আরিয়ান তো ধলা,
!
আর আমার মতে ওর ক্যারেক্টার ঢিলা,
!
আমার কথা শুনে ওরা সবাই হেসে দেয়,
!
তারপর আমরা ক্লাস করতে যাই,
!
দুটো ক্লাসের পরে ক্যান্টিনে গিয়ে লাঞ্চ করতে বসি,
লাঞ্চ শেষে মিস্টার মানাফ চৌধুরি এসে বলে,
!
মা আমি তোমার সাথে একটু কথা বলতে চাই,
!
কিন্তু আমি আপনার সাথে কথা বলতে চাই না মিস্টার চৌধুরি,
!
আমি তোমার অপরাধী তুমি আমাকে শাস্তি দাও কিন্তু,
আমার কথা গুলো শোনো প্লিজ?
!
মিস্টার মানাফ চৌধুরি ফর ইউওর কাইন্ড ইনফরমেশন শুধু আপনি না আপনার পুরো ফ্যামিলি আমার অপরাধী,
!
কোর্টে তো অপরাধী ও নির্দোষ সবার বয়ান সমান নেওয়া হয়,
তুমি আমার বয়ান নিবে না?
!
নো মিস্টার চৌধুরি,
কারন,
আমার কাছে যে অপরাধী সে অপরাধী আর আমার কোর্টে তার বয়ানের কোনো প্রয়োজন নেই গেট দ্যাট?
!
মা আমি তোমার বাবা,
!
সেটা আপনি বলেন,
লোকে কি বলে?
লোকের কথা শুনেছেন?
কয়জন লোকে আপনাকে আমার বাবা হিসেবে দেখেছে?
আপনি বলতে পারেন?
কি হলো চুপ করে আছেন কেন?
!
দুধের শিশু ছিলাম,
তখন আমার আপনাদের প্রয়োজন সবচেয়ে বেশি ছিল,
তখন কোথায় ছিলেন আপনি এবং আপনারা?
!
আমার দুঃখের সময় ছিলেননা এখন এই সুখের সময়ে ভাগ নিতে আসছেন?
!
কি হলো চুপপ করে আছেন কেন?
বাবা নামের ট্যাগ লাগিয়ে ঘুরলেই বাবা হওয়া যায় না মিস্টার চৌধুরি,

আমি আমার ছোটো বেলা থেকে আমার পাপার হাত ধরে মেলায় গিয়েছি,
আপনার আপনার হাত ধরে নয় মানাফ চৌধুরি,
..
জন্মের পরে আমার সব সখ আল্লাদ আমার পাপা
মাহির চৌধুরি পুরণ করেছে,
আপনি নন,
………..
আমি যখন অসুস্থ থাকি,
আমার মাম্মা পাপা সারারাত আমাকে যত্ন করে,
একটু ব্যথা পেলে তারা তারা ব্যথা পায়,
!
তাদের তো একজন নয় দুজন নয় আটজন ছেলে আর একটি মাএ মেয়ে আছে তবুও তাদের আমাকে কেন দরকার জানেন?
!
কারন তারা আমাকে ভালোবাসে অনেক ভালোবাসে,

এতো ভালোবাসে যেটা নিজের জন্মদান মাতাপিতা ও বাসতে পারেনা বুঝলেন মিস্টার মানাফ চৌধুরি,
!
তারপর মিশকা ওখান থেকে চলে যায়,
….
আর মানাফ চৌধুরি ওখানে দাঁড়িয়ে নিঃশব্দে চোখেরজল ফেলতে থাকে,
!
মিশকা বাসায় ফিরে বাচ্চাদের বুকে জড়িয়ে চুপটি বসে থাকে,
….
রাতে ওদের খাইয়ে দাইয়ে ঘুম পারিয়ে দেও ও,
!
আমি বুঝতে পারছিনা ইশা কেন?
আমাকে মিথ্যে কথা বলছে?
তবে ওর গলায় স্পষ্ট ওটা কামড়ের দাগ,
আচ্ছা ওকি আমাকে চিট করছে?
……
নাহহহ না ও এটা করতে পারে না,
ও আমাকে অনেক ভালোবাসে,
আর এসব আমারি মনের ভুল,
!
যাই হোক রাতে মিটিং শেষে বাসায় ফিরে ওর সাথে এ বিষয়ে খোলাখুলি আলোচনা করতে হবে,
এখন এসব নিয়ে ভাবলে চলবে না,
!
পরেরদিন ইমান বাসায় ফিরে দেখে,
!
ইশা বিবস্ত্র হয়ে বিছানায় ঘুমিয়ে আছে,
আর বেড রুমের জিনিস পএ এদিকওদিকে পরে আছে,
!
ইশা কে বিবস্ত্র হয়ে থাকতে দেখে ইমানের ওর প্রতি ঘৃণার সৃষ্টি হয় হয়,
তাই ও চুপটি করে হলে গিয়ে টিভি ছেড়ে বসে থাকে,
!
তখন ময়না পাখি ওর পেছনে দাঁড়িয়ে একে অপরের মুখ চাওয়াচাওয়ি করে হাসতে হাসতে আস্তে আস্তে বলে,
!
“বেচারার তো ঘর শত্রু বিভীষণ ”
!
তা তো হবেই তাই না কারন?
এ কয়দিন স্বামীর অভাবে ইশা ম্যাম আরিয়ান সাহেব কে তার স্বামী বানিয়ে ফেলেছে,
!
হা হা হা,
!
মাইয়া মানুষে এতো বেশি কিসের খোদা মালুম,
!
সেদিন মুই দেখছি কি জানো?
!
কি?
!
ইয়ে মানে ইশা ম্যাম দারোয়ানের সাথে চুমাচুমি করে,
!
ছিঃ মুই তো আরিয়ান সাহেবের লগে দেখছি,
এই দারোয়ান টা আবার আসলো কোথা দিয়া,
!
ব্যভিচার করতে গেলে যেকোনোভাবে আসতে পারে ময়না,
আমি চাই এই ব্যভিচার
আল্লাহ যেন ওনাকে স্বচক্ষে দেখার তৌফিক দান করে ,
!
আমিন,
বেচারা ইমান সাহেব ওনার জন্যে কাঁদতে কাঁদতে আমার চক্ষের জল শুকাইয়া গেছে,
!
তুই আবার এই এনার জন্যে কাঁদলি কখন?
!
মনে মনে,
!
হা হা হা,
মনে মনে ও কান্দা যায়?
!
ইমান সাহেবের জন্যে,
মোর তো মনে মনে কান্দন আয় রে বুইন,
!
আমার হেরে দেখলে বোএিশ টা দাঁত বেড় কইরা হাসি পায়,
!
এ কও কি তুই?
হা হা হা
!
ময়না চুপ কর তুই,
হা হা হা,
!
!
!
চলবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here