স্বামির অধিকার-২ 4rd part(শেষ পাট)

0
575

স্বামির অধিকার-২ 4rd part(শেষ পাট)

লেখা/রুবেল(ছদ্দবেশী হিংসুটে ছেলে)
—–


সকাল ৮টা রিমু ঘুম থেকে উঠে দেখে উনি পাশে
নেই।
মানুষ টা এত সকালে উঠে কই গেলো ।
আশে পাশে কোথাও তো দেখছি না,তাহলে কি
উনি আজ ও না খেয়ে ব্যবসার কাজে গেছেন,
রিমুর অজান্তে রিমুর মনটা খারাপ হয়ে গেলো,
রিমু রান্না করে নিজে খেয়ে টেবিল এ খাবার
রেখে বিছানায় বসে আনমনে টিভি
দেখতেছিলো।
দুপুর দুটা হঠাৎ দরজায় নক।
রিমু/আপনি কি মানুষ? সকালে উঠে কই গেছিলেন
আপনি?আমায় ডাক দিতে পারতেন।না খেয়ে তো
গেছেন।
আমি রিমুর মুখে এমন কথা শুনে সত্যি অবাক হয়ে
গেছি।
আমি/আমি মানুষ সেটা দেখতেই পারছো।আর আমি
প্রতিদিন কই যাই সেটা ও তুমি যানো।
রিমু/দেখে বুজতে পারছি সারা দিন কিছু খান নাই।
ফ্রেশ হয়ে আসেন আমি খাবার দিচ্ছি।
আমি/রিমু আমায় দেখি শুধু এটাই বুঝলা সারাদিন কিছু খাই
নাই।আর কিছু বুঝতে পারো না?
রিমু/আপনি বেশি কথা বলেন জন্য আপনাক আমার
ভালো লাগে না।
আমি/শুধু কি এই একটাই কারনে আমাক ভালো লাগে
না?
রিমু/না আরো অনেক কারন আছে
আমি/একটা কাগজ এ লিখে দিবা আমার কি কি তোমার
ভালো লাগে না।শুধরে নেয়ার চেষ্টা করবো
রিমু/আপনাক আমি বলছি ফ্রেশ হয়ে এসে ভাত খান ।
তখন থেকে কথা বলেই যাচ্ছেন।
আমি/আজ তাহলে রান্না করছো?
রিমু/ধ্যাত যা বলি তা শুনে না উনি কথা বলে যাচ্ছে।
রিমুর কথা গুলো শুনে কেন যানি মনে হচ্ছে ও
আমাকে ভালোবাসতে শুরু করছে।কিন্তু মেয়ে
দের মন বুজা বড় মুশকিল।ফ্রেশ হয়ে আসলাম।
আমি/তুমি খাইছো?
রিমু/তো কি না খেয়ে আপনার জন্য না খেয়ে
বসে থাকবো?
আমি/বউরা তো তাই করে স্বামীর জন্য না খেয়ে
বসে থাকে।
রিমু/হা হা হা কিন্তু আমি তো আপনাক স্বামী মানি না।
একটু আগে রিমুর কথা শুনে মনে হলো মেয়েটা
বুঝি আমাকে একটু হলে ও ভালোবাসে।
কিন্তু না,রিমুর হাসি বলে দিচ্ছে ও আমি যা ভাবছি তা ভুল
ও কখনোই আমাকে স্বামী মানবে না।
যদি ও আমি রিমু কে এ রকম হাসি মুখে দেখতে চাই।
কিন্তু রিমুর এ হাসিটা আমার কাছে সত্যি অনেক
কষ্টের ।
আর কথা না বলে চুপ চাপ খেয়ে নিলাম।
আমি/শোন ও আমি কাজে যাচ্ছি ফিরতে একটু রাত
হবে।
রিমু/কেনো কই যাবেন?নেশার আড্ডায়?
আমি/দেখো তুমি ভালো করে যানো আমি বেশ
কিছূ দিন থেকে নেশার আড্ডায় যাই না।আর গেলে
বা তোমার কি?
রিমু/হুম ঠিক বলছেন আমার কিছু না।
আমি/আচ্ছা আমি যাচ্ছি..
রিমু/এই যে শুনেন?
আমি/হ্যা কিছু বলবে?
রিমু/না কিছু না।
আমি/তোমার কি কিছু লাগবে?কোন কিছুর প্রয়জন
হলে আমাক বলতে পারো।
রিমু/না কিছু লাগবে না।আর আপনার কাছ থেকে কেন
নিবো।এমনিতেই খাচ্ছি আপনার ঘড়ে থাকছি এটাই
অনেক কিছু।
আমি/তুমি যদি নিজে কে আশ্রীতা ভাবো,আমার কিছু
করার নাই।তবে আমি তোমাক দয়া বা করুনা করছি না।
আমি গেলাম।
মানুষা হঠাৎ এতোটা পরিবর্তন হলো কি করে,আচার
আছরন চাল চলন কথা বার্তা সব কিছু কেমন যেন
হয়ে গেছে।হুম বুজছি আমার মন পাওয়ার জন্য এ
সব ভন্ডামি করছে।পশু চরিত্রের মানুষ কখনো
ভালো হয় না আমি যানি।আমি অতো সহজে ওনাক
বিশ্বাস করতে পারবো না।
|
রাত ১২ টা বেজে যাচ্ছে উনি এখনো আসতিছে
না।কই গেলো ১০টার আগে তো উনি বাড়ি
ফেরে।
দুর আমি ও আর ওনাকে নিয়ে ভাবছি ,হয়তো নেশার
আড্ডা বসে আছে।আমি গুমাই।।
তার পর রিমু স্বর্থপর গুলোর মত ঘুমিয়ে পরলো।
|
ব্যবসার কাজে আজ লেট হয়ে গেলো না যানি
মেয়েটা কি করছে।আচ্ছা ও কি না খেয়ে আমার
জন্য পা গুটিয়ে বিছানায় অভিমান করে বসে আছে?
না কি আমার কথা না ভেবে ঘুমিয়ে পরছে?
|
রাত ১টা বাসায় আসলাম দরজা লাগিয়ে ঘুমাছে
মেয়েটা,ঠাকবো কি না ভাবছি,না ডেকে বারান্দায়
ঘুমালে আবারো ভাববে আমি নেশা করে আচ্ছি.
|
আমি/রিমু এই রিমু,ও তো সত্যি ঘুমিয়ে গেছে,এই
রিমু,
কিছু একটার শব্দ পেলাম ও বুঝায় জেগে গেছে।
|
এই যে রাত কয়টা বাজে এত ক্ষনে আসার সমায়
হলো আপনার?
আমি/না মানে একটু কাজের চাপ ছিলোতো তাই..
রাতে খেয়ে রিমুর পাশে শৃুয়ে পড়লাম,

এভাবে আর কত দিন? এভাবে একটা সংসার চলতে পারেনা।আমি রিমু কে ওর ভালোবাসার মানুষের হাতে তুলে দিবো.
!
বলছি কি পরশু দিন যাবে অামার সাথে (অামি)
কোথায় (রিমু)
অামার এক বন্ধুর সাথে দেখা করতে
ও তোমাকে দেখবে বলছে(অামি)
না যা বো না (রিমু)
প্লিজ শেষ বার অনুরোধ করছি (অামি)
অাচ্ছা ঠিক অাছে, তবে ও খানে বউ বউ বলে ডাকতে পারবেন না (রিমু)
ঠিক অাছে(অামি)

!
সকাল ৮ টা কাজে যেতে মন চাচ্ছে না,

রিমুর প্রেমিকের সাথেও কথা হয়ে ছে কাল অামি রিমু কে ওর হাতে তুলে দিবো হয়তো দুজন এ খুব খুশি হবে,।

অাজ অার কাজে গেলাম না, সারা দিন রিমুর কাছে কাছে থাকলাম,
মানতে পারছি না কাল থেকে রিমু অার অামার থাকবে না,
চিৎকার করে কাদতে ইচ্ছা করছে,
কিন্তু না অামি যে ছেলে মানুষ অামার কাদতে নেই।

সকাল ৮ টা..

বলছি কি কোন শাড়িটা পড়বো( রিমু)
তোমার ইচ্ছা (অামি)
ওহ (রিমু)

!

তার পর রিমু কে রেডি করে সেই পাককে গেলাম যেখানে রিমুর প্রেমিক রিপন কে অাসতে বলছি .
!
রিমু তোমার চোখের জ্বল অার কষ্ট সত্যি অামার ভালো লাগে না(অামি)
নাটক বাদ দেন
কই অাপনার বন্ধু অার এখানে কেন অানলেন অামাক(রিমু)
ওয়েট করো ও অাসবে (অামি)

দুরে তাকিয়ে দেখি রিপন অামাদের দিকে অাসতিছে,
!
রিমু ঐ যে অামার বন্ধু অাসতিছে

বলে রিমু কে ও খানে রেখে অামি চলে অাসলাম
!একবার পিছন ফিরে তাকাবো,,, না থাক. কেন জানি মন বলে রিমু হয়তো একবারের জন্য হলেও আমাকে ডাকবে কিন্তু ডাকেনি চলে আসলাম ওদের মাঝখান থেকে।
আজ আর বাসায় যাবোনা।
আর বাসায় গিয়ে কি করবো তাই সব হারিয়ে দেউলিয়ে হয়ে এদিক ওদিক ঘুরি আর খোদাকে বলি শুধু একটা কারন দাও আমাকে যার জন্য রিমুকে ঘৃণা করতে পারব
সন্ধ্যা হয়ে এলো তাই চলতে লাগলাম বাসার দিকে।
বাসায় গিয়ে দরজা টোকা দিলাম। ওহহহহ আমিতো ভুলে গেছি দরজা খুলার মত এখন কেউ নেই।
দরজাটা খুলে ভিতরে গিয়ে বসলাম উফফফ খুব ক্লান্ত লাগছে চোখটা বন্ধ করলাম কিছুক্ষন পরে একটা কণ্ঠ শুনতে পেলাম,,
খুব ক্লান্ত লাগছে? তাইনা এই নিন শরবত খান,, আমি একটু ভয় পেলাম চোখটা খুলে……
.
আমি: এ কি আপনি এখানে,, কখন আসলেন? আর কেন আসলেন, আপনাকে না আপনার শেষ ঠিকানা রেখে আসছি।
রিমু/ হুহহহহহ… আমার বাড়িতে আমি আসছি, তাতে আপনার কি?
আর আপনি কি বলুনতো লজ্জা করেনা আপনার নিজের বউকে অন্যের হাতে তুলে দিতে এই বুঝি আপনার স্বামীর অধিকার।
খুবতো বড় বড় কথা বললেন সেখানে আমার চোখের জল আপনার সহ্য হয়না আমাকে সুখী দেখতে চান আমার মুখে হাঁসি দেখতে চান কিন্তু একবারও কি জানতে বা বুঝতে চেয়েছেন আমার মন কি চায়?..
আমি:মানে
.??
রিমু/মানে আবার কি
আমি কি বাজারের পণ্য যে চাইবে সেই পাবে।
আমি কারও প্রেমিকা হয়ে নয় আমি কারও লক্ষী বউ হয়ে থাকতে চাই আর সে হলেন আপনি। আমি আপনাকে না বলছি আপনাকে একটা কথা বলার ছিলো জানেন সে কথাটা কি জানেন না
তবে এখন শোনেন আমি তোমাকে অনেক অনেক ভালোবেসে ফেলেছি দয়া করে একটু জায়গা দাও তোমার বুকে। রিমুর চোখের জল মুছে দিয়ে রিমুকে বললাম,,
খুব কষ্ট হয়েছে তোমাকে সেখানে রেখে আসতে,
ম!ন চেয়েছে আবার ও জোর করে নিয়ে আসি সঙ্গে,,, কিন্তু পারিনি।
.
রিমুতখন পারেন নি এখনতো পারবেন…
.
আমি:কি
.
রিমু:খুব শক্ত করে জড়িয়ে ধরতে রিমু বলতে করেছে কিন্তু আমি বুকে নিতে একটুও দেরি করিনি
রিমুকে বুকে নিয়ে বললাম
আমি স্বামীর অধিকার চাইনা শুধু তোমাকে চাই যে তোমাকে নিয়ে হারিয়ে যাবো আমি তোমার ভালোবাসায়।
রিমু: তাইই,তাহলে আমার একটা ইচ্ছা পূরন করতে হবে।
আমি:কি সেই ইচ্ছা?
রিমু: আমি একটা বেবি চাইই,,,আর সেটা আমাকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দিতে হবে,,,কি দিবে না?
আমি: হুম,,,আমার লক্ষী বউ টার কোনো ইচ্ছা কি আমি অপূরণ রাখতে পারি?…
রিমু: ধন্যবাদ,,,আর স্বামীর অধিকার আর জোর করে নিতে হবে নাহ,,,সেটা আমি এমনিতেই দিবো….
আমি: অবশেষে যা চেয়েছি তাই পেয়েছি…ধন্যবাদ
সমাপ্ত!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here