সমাপ্তি ২য় এবং শেষ পর্ব

0
2418

সমাপ্তি ২য় এবং শেষ পর্ব

আপনার এত বিয়ে করার শখ জাগছে কেন??(তুলি)

তুলির কথা শুনে হা হয়ে তাকিয়েছিলাম কিছুক্ষণ৷ এরপর না বোঝার ভান করে একই প্রশ্ন করলাম….. মানে??(আমি)

মানে??,,,রাগে তুলি আমার চোখ থেকে চশমা টা খুলে বিছানার উপরে ফেলে দিয়ে,,, একদম বিয়ের কথা মুখেও আনবেন না। আনলে একদম খুন করে ফেলবো…(তুলি)

তুলির এই রুপ আমি আগে কখনো দেখিনি। সত্য বলতে ভয় পেয়ে গেছি,,, আমি আমতা আমতা করে বললাম,,,

ইয়ে না মানে বাবা মা বলছে,,৷ আর তাছাড়া বয়স ত আর কম হলো না…তাই আর কি!!(আমি)

বয়স ত আর কম হলো না জন্য বিয়ে করবেন তাই না?? ওকে ফাইন যান বিয়ে করেন।… (তুলি)

তুলি,,, তুমি ঠিক আছো ত,,,??(আমি)

তুলি রাগিভাবে আমার দিকে তাকালো,,, আমাকে কি আপনার পাগল মনে হচ্ছে??(তুলি)

আমি দাত গুলো বের করে এক গাল হেসে বললাম,,, ওটা পাগল না পাগলী হবে…(আমি)

তুলি পাশে থাকা চশমা টা তুলে,,, যাবেন না…..কি??

এ এই,, আচ্ছা যাচ্ছি, যাচ্ছি বলেই চলে আসছিলাম,, কিন্তু তুলির ডাকে আবার পিছনে ফিরতে হলো,৷

আবার কি??(আমি)

চশমা… আপনার…(তুলি)

ওহ, হুম, দাও..(আমি)

তাজ বাবু,, আপনি কি সত্যি বিয়েটা করবেন??(তুলি)

তুলির কথাটাতে কেমন যেনো ভেতর টাতে বিধলো,,,কিন্তু তবুও খুব শান্তভাবেই জবাব দিলাম,,

বাবা মা রাজি থাকলে করবো,,, আর ওনাদের বয়স ত কম হলো না বলো,,, ওনাদেরো ত ছেলে আর ছেলের বউ কে দেখতে ইচ্ছা করে তাই না বলো??(আমি)

এতই যদি বাবা মায়ের কথার ছেলে হয়ে থাকেন,, ত ৩ বছর আগে কি হয়েছিলো?? তখন কি বাবা মা রাজি ছিলো না??(তুলি)

ম, মানে??(আমি)

মানে ঘর থেকে বেরোন…(তুলি)

কিন্তু তুমি কি যেনো বলতেছিলা??(আমি)

কচু আর আন্ডা বলছিলাম বুঝলেন। যান বেড়োন.. (তুলি)

আ, আচ্ছা…বলে চলে আসছি ঠিক তখনি আবার তুলি আমায় ডাক দিলো…

তাজ সাহেব…(তুলি)

পিছনে ঘুরে,, হুম বলো..(আমি)

আমাকে হোস্টেলে পাঠিয়ে দিন,, আর আপনার বিয়েতে আমি এখানে থাকতে পারবো না..(তুলি)

অবাক হয়ে,,, কি বলছো এগুলো,,?? মাথা ঠিক আছে তোমার??(আমি)

তুলি আমার দিকে তাকিয়ে,, পাঠাবেন কি না??(তুলি)

না,, পাঠাবো না। (আমি)

কেনো পাঠাবেন না?? কোন পরিচয়ে এই বাড়িতে আমায় রাখবেন?? ২ দিন পরে আপনার স্ত্রী যখন আমায় বাসা থেকে বের করে দিতে চাইবে তখন কি করবেন আপনি??(তুলি একদমে কথাগুলো বলে দিলো)

কি বলবো ভাবছি,, ঠিক সেই সময়ে তুলি বলে উঠলো,, তাজ সাহেব আপনি অনেক বোকা জানেন??(তুলি)

মাথা চুলকাতে চুলকাতে বললাম,, বন্ধুরাও বলতো এটা,,..

তুলি এবার হেসে দিলো….

ওর হাসিটাতে আমি ২য় বারের মতো প্রেমে পড়লাম।

কি হলো??(তুলি)

কত সময় ওর দিকে তাকিয়ে ছিলাম জানি না,, তবে তুলির কথাতেই আবার বাস্তবে ফিরলাম,, ক, কই কিছু নাতো..(আমি)

তুলি এবার আমার কিছুটা কাছাকাছি এসে,,

তাজ সাহেব…(তুলি)

আমি শার্ট টা ঠিক করতে করতে,, হু বলো..

আমাকে এই বাসার পারমানেন্ট জায়গাটা আপনি দিতে পারবেন না??(তুলির চোখ ভেজা)

আমি অবুঝের মতো তুলির দিকে তাকিয়ে,, ক, কি বলো তুমি?? মানে কি.??.(আমি)

তুলি এবার পুরো রেগে গিয়ে বললো,, আপনি আমার রুম থেকে বেড়োবেন???

আমি আর কিছু সময় ওয়েট না করে তাড়াতাড়ি করে বেড়োয়ে এলাম….

তুলির কথা ভাবছি,, পার্মানেন্ট জায়গা মানে কি?? ছোট থেকে বন্ধুরা বোকা বলতে বলতে আমি কি সত্যিই বোকা হয়ে গেছি নাকি??

কিছুসময় ভেবেই আমার চোখ ছানাবড়া হয়ে গেলো…তারমানে তুলি কি আমায় ভালোবাসে??(আমি)

কিন্তু কই ও ত আমায় কখনো কিছু বলেনি….নাহ,, তুলি আমায় কেন ভালোবাসবে?? ভালোবাসলে ত সেই ৩ বছর আগেই বিয়েতে রাজি হয়ে যেতো,,,নাহ। আমি ভুল ভাবছি….

এরকিছু দিন পরে,,,

একদিন বাসায় এসে তুলিকে দেখতে না পেয়ে,,আম্মুকে বললাম,,

আম্মু,,তুলি কই??(আমি)

আম্মু অবাক হয়ে জবাব দিলো,,সে কিরে,, তুলি তোকে জানায় নি??(আম্মু)

কি জানাবে??(অবাক হয়ে আমি)

তুলি ত আজ হোস্টেলে উঠেছে,,, কিন্তু ও ত আমাদের বলে গেলো ও নাকি তোকে সব কিছু বলেছে,, তুই নাকি রাজিও হয়েছিস??(আম্মু)

আম্মুকে কিছু বুঝতে না দিয়ে বললাম,,,

ওহ হ্যা আম্মু,, তুলি আমাকে বলেছিলো,৷ আমারি মনে ছিলো না…(পুরো মিথ্যা বললাম,,, কারণ ওইদিনের পর ত তুলির সাথে আমার কথায় হইনি)

পরের দিন ই তুলির হোস্টেলে চলে যায়ঃ

কিন্তু কি পরিচয় দিয়ে দেখা করবো তুলির সাথে?? আর তুলি বা কি আইডিন্টি দিয়েছে এখানে ভাবতে ভাবতেই দেখি তুলি গেট দিয়ে বের হচ্ছে…

আ, আপনি এখানে??(তুলি)

তুলির পাশে হইতো হোস্টেলের মালিক ছিলো,,সে বললো,,

তুলি মা,, এইটা কে??(ভদ্রলোক)

তুলি আমতা আমতা করে,, ওই যে,, না মানে….(তুলি)

ওওহ,,, তোমার বড় ভাই?? যে তোমার সমস্ত দায়িত্ব নিয়েছে??(ভদ্রলোক)

ভ, ভাই….(বলেই তুলির দিকে তাকালাম)

তুলি কিছু বললো না,, মাথা নিচু করে রইলো…

আমি আর কিছু বলতে পারিনি,, শুধু ভদ্রলোকের বলা কথাগুলো শুনছিলাম,, আর যতগুলো কথা উনি বললেন প্রায় প্রতিটা কথা আমার বুকে এসে বিধছিলো,, মোটকথা,, তুলিকে নিয়ে আমি যেই ভাবনাটা ভেবেছিলাম সেটা ওইদিন ওই কথাগুলো শোনার পরেই ভেঙে গিয়েছিলো….

রাত্রে এসে বাবাকে বললাম বিয়ের দিন টা যতটা তাড়াতাড়ি পারো কনফার্ম করো,,

বাবা কিছুটা অবাক হয়েছিলো…

আম্মু বলেছিলো,, কিন্তু তুই না বলেছিলি তোর এই মেয়েও পছন্দ হইনি

ভুল বলেছিলাম। হয়েছে পছন্দ…। এখন তোমাদের যা করার সেটাই করো….(কথাটা বলেই চলে এলাম)

আজ প্রথম তুলির জন্য আমার চোখ থেকে জল ঝড়ছে,,, আমি নাকি তুলির আশ্রয়দাতা?? আমি নাকি ওর ভাই?? আমি নাকি ওর ছিহ…..

তুলির প্রতি যেই ভালোবাসা টা আমার কাছে জমানো ছিলো সেটা একটু একটু করে রাত্রের কালো আধারে মিলিয়ে দিয়েছিলাম…

তুলিকে বিয়ের কার্ড দিয়েছিলাম বন্ধু সজিব কে দিয়ে…

শুনেছিলাম তুলি নাকি হাসিমুখে সেটা গ্রহণ করেছিলো।

আনিকা(আমার স্ত্রী) কে আমি তুলির মতো করে কখনো দেখি নি…

শুধু বিয়ের সম্পর্কে আবদ্ধ জন্য যতটুকু দায়িত্ব আমার ছিলো সেটা পূরণ করেছিলাম…

কিন্তু আমার মনেতে সারাক্ষণ শুধু তুলিই ছিলো…সত্যি বলতে আমি তুলিকে অনেক ভালোবাসি। কিন্তু কখনো বলতে পারিনি…আজ বলছি….. তুলি আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি পাগলি,, অনেক বেশি…শুধু রাগ, জেদ আর ইগোর জন্য আমি তোমাকে হারিয়ে ফেলেছি।

আচ্ছা তুলি,, তুমি কি আমাকে একটুও ভালোবাসোনি ?? নাকি সত্যিই বাসতা??

ডায়েরি টা বন্ধ করলো তুলি….

তাজের মৃত্যুর ৫ বছর হচ্ছে আজ।

বিয়ের ৩ বছরের মাথায় তাজ শারীরিক ভাবে দূর্বল হয়ে পড়ে…ডাক্তারি চেকাপের পরে জানা যায় তাজের শরীরে ক্যান্সার বাসা বেধেছে…

শেষ সময় গুলোতে তাজ নাকি অনেক করে তুলিকে নিয়ে কথা বলতো,, পাগলের মতো একবার বলতো,, বাবা তুলিকে একটু বলবা এখানে আসতে??আমি ওকে একবার দেখবো…কিন্তু পরক্ষণে আনিকার দিকে তাকিয়েই বাবাকে বলতো,, না বাবা,, কোন প্রয়োজন নেই….

আনিকা সবকিছু জেনেও তাজ কে ভালোবেসেছিলো…তাই তাজের নিষেধ সত্বেও তুলিকে তাজের ব্যাপারে জানিয়েছিলো…

তুলি প্রথমে অনেক বড় ধাক্কা খেলেও,, আনিকা কে দেখে অভিমানে,, নিজেকে সামলে নেয়,, সাধারণ রাখে নিজেকে…তারপর আনিকা কে উত্তর দিয়েছিলো আমি যেতে পারবো না….

আনিকা যখন তাজ কে তুলির প্রতিউত্তরের কথা বলেছিলো,, তাজের মুখে বিদ্রুপাত্নক হাসি ফুটে উঠেছিলো…

সেই রাতেই তাজ ওর শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করে…

তুলিকে যখন জানানো হলো,, তুলি কান্নায় ভেঙে পড়ে হোস্টেলে…সেদিন কার সেই ভদ্রলোক বুঝতে পারলো,, তাজ তুলির ভাই না,, অন্য কিছু ছিলো…

তুলি তাজের প্রতি মৃত্যুবার্ষিকীতে এই ডায়েরি টা পড়ে আর চোখের জল ফেলে…

আম্মু তুলি,, এবার ত বিয়েটা করবি??(তাজের মা)

তুলি আম্মুর দিকে তাকিয়ে হালকা হেসে উত্তর দিলো…

ভালোবাসার মানুষ টার জীবনের সমাপ্ত ঘটেছে,,, মানে,, নিজের জীবন টার সমাপ্তি ঘটেছে মা….(তুলি)

সমাপ্ত

[রাগ,জেদ,ইগো এই ৩ টা শব্দ ২ অক্ষরের হলে কি হবে?? একটা সম্পর্ক কে শেষ করতে এরা ২ মিনিট ও সময় নেয় না]

লেখাঃ তাসকিনা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here