♥Love At 1st Sight $2 Part – 12

0
566

Love At 1st Sight $2

Part – 12

writer-Jubaida Sobti

পরদিন সকাল হলো…

স্নেহা ঘুম থেকে উঠে…আগে জানালা দিয়ে উকি দিলো রাহুল উঠেছে নাকি…
দেখলো উঠেনি…
ফ্রেশ হয়ে খাবার খেয়ে উঠোনে বের হলো…আশেপাশে দেখছে..কেউ আছে নাকি…দেখলো কেউ নেই…তাই স্নেহার মাথায় বুদ্ধি এলো একটু গিয়ে দেখে আসুক মিষ্টার হ্যান্ডসাম কি করছে…রুমের বাইরে দাঁড়িয়ে দেখে দরজা বন্ধ…তাই জানালার ফাক দিয়ে উকি দেওয়ার চেষ্টা করছে…

হঠাৎ, পিছনে মাথার মধ্যে কেউ টুকা মাড়লো….

স্নেহা : তুই?..?

গীতালি : [স্নেহাদের বাসায় কাজ করে] কি গো দিদি…কি দেখছো অমন করে?

স্নেহা : আমি! কই নাতো কিছু না…ও হে আসলে…দেখছি যে সবাই উঠে গেছে অনিও উঠেছে কিনা…

গীতালি : আইচ্ছা…তাও আমার থেকে লুকাই লাব কি বলো…?

স্নেহা : দেখ গীতালি! তুইনা বেশী পেকে গেছিস… মা কে বলে তোদের দূর্গা পূজাই ছুটি দিতে দেবো না…?

গীতালি : আরে আমার ছুটির পেছন লাগছো কেনো…হয়ছে যাও আমি কিচ্ছু দেখি নাই…

স্নেহা : হুম! এইবার যা!? [গীতালি একটু হেসে চলে গেলো ]

হঠাৎ,দরজা খুলে রাহুল বেড়িয়ে এলো…

রাহুল : [চোখ কচলে] কি হলো এতো চেঁচাচ্ছা কেনো?… [ স্নেহা রাহুলকে দেখে এমন ভাবসাব করছে যেন সে কিছুই জানে না]

স্নেহা : চেঁচাচ্ছে কে?..কই এখানে তো কেউ নেই…বোধ হয় সপ্ন দেখেছো?

রাহুল : Shut-up?

স্নেহা : [ মুখ ভেংগিয়ে] হুহ..

রাহুল : অউ গুড মর্নিং?

স্নেহা : হুম হুম?… [ স্নেহা চলে যাচ্ছে ]

রাহুল : স্নেহা তোমার সাথে আমার কথা আছে…

স্নেহা একবার পেছন ফিরে তাকিয়ে আবার চলে গেলো… রান্নাঘরে গিয়ে দেখে মা, চাচী সবাই মিলে কাজ করছে…

মা : স্নেহা কোথায় হারিয়ে যাস বার বার, ধর নে…এই চা গুলো তোর বাবাকে দিয়ে আয়…

মিলি [স্নেহার বড় বোন] স্নেহাকে টেনে একপাশে নিয়ে গিয়ে

মিলি : [ফিসফিস করে].. স্নেহা তুই নাকি বাড়িতে আসা হ্যান্ডস্যাম ছেলেটার ঘরে উকি দিচ্ছিলি..?

স্নেহা : কে বলেছে?..? ঐ গীতালি তাই না?… [ স্নেহা মায়ের কাছে এগিয়ে গিয়ে] মা! তুমি না ঐ গীতালিকে ওর পূজোর সময় ছুটি দিবানা..বলে দিলাম..

মা : কেনো ও আবার তোকে কি করেছে.. [ গীতালি মুখে হাত দিয়ে হাসতে লাগলো ]

স্নেহা : তুকে তো আমি পড়ে দেখে নিবো..? [ স্নেহা চায়ের বাটি নিয়ে রান্নাঘর থেকে বেরিয়ে গেলো.. মিলি স্নেহার পিছে পিছে]

মিলি : আরে স্নেহা বলনা!…উকি দিয়েছিলি?..?

স্নেহা : আরে আপু তুমিও না..চিনিনা জানিনা অই ছেলের ঘরে আমি কেনো উকি দিবো…

মিলি : হে তাও ঠিক কিন্তু ছেলেটা হ্যান্ডস্যাম আছে দিলে ও দিতে পারিস..?

স্নেহা : ???

মিলি : না না ঠিকাছে তুই যা! চা দিয়ে আয়?

[ স্নেহা তার বাবাকে উঠোনে চা দিতে গেলো… দেখে রাহুল বারান্দার চৌকাটে বসে রাশুদের সাথে দুষ্টুমি করছে.. রাহুল স্নেহাকে দেখে ইশারা করে… যে তার কথা আছে স্নেহার সাথে…স্নেহা রাহুলকে মুখ ভেংগিয়ে ভেতরে চলে গেছে…]

রুমে গিয়ে দেখে…অরণি, গীতালি, মহিমা,আর মিলি আপু একসাথে কি কি জানে বলে ফেলছে..স্নেহা ঢুকাতে সবাই চুপ হয়ে যায়…

স্নেহা : কি হলো? আমি আসাতে চুপ?..

অরণি : তাই ভাবছি..আমরা অই ছেলেটার আশেপাশে গেলে তুমি এতো তেলে বেগুন হয়ে জলে উঠো কেনো..?

মহিমা : না থাক থাক…সমস্যা নেই আমরা বুঝেছি…

স্নেহা : আই এতো বুঝিস কেনো হুম?..আমার অই ছেলের প্রতি কোনো ইন্ট্রেষ্ট নেই… আরে আমার পেছনে হাজারটা লাইন লেগে আছে..আমি কেনো ওর জন্য..

অরণি : তাই!?…তাহলে তো আমার লাইন ক্লিয়ার ?….

স্নেহা : ? [ রেগে রুম থেকে বেড়িয়ে পড়ে নিজের রুমে চলে যায় ]

রাশু : আপু তোমাকে ডাকছে…

স্নেহা : কে??..

রাশু : অই যে রেষ্টুরেন্ট ওয়ালা..

স্নেহা : ওহ! ডাকুক..? ওকে গিয়ে বল তাড়াতাড়ি এই বাড়ী ছেড়ে চলে যেতে..

রাশু : [ হাহা??ওকে! রাশু রুম থেকে বেরিয়ে গেলো ]

কিছুক্ষণ পরে,

রাহুল : স্নেহা! [ স্নেহা Shocked?]

স্নেহা : তুমি এইখানে?..?

রাহুল : দেখো স্নেহা! অনেক হয়েছে হুম?.. চলো তোমার সাথে কথা আছে…

স্নেহা : আরে পাগল নাকি তুমি?..?কেউ দেখলে সমস্যা হবে প্লিজ যাও এইখান থেকে…

রাহুল : এক পা ও নড়াবো না…তুমি আসছো কি আসছো না বলো?..

স্নেহা : শিসস! ধীরে বলো প্লিজ! কেউ শুনতে পাবে!…

রাহুল : ওকে enough! এবার চলো!

স্নেহা : দেখো এখন আমি তোমার সাথে কথা বলতে পারবো না…বাবা ও বাড়ীতে..সবাই আশেপাশে…

রাহুল : ওকে তুমি আসতে পারবে না! ঠিকাছে..আমি তোমার বাবাকে গিয়ে সব সত্যি বলে দিচ্ছি.. ভার্সেটিতে কি হয়েছে না হয়েছে.. Then তোমার আর আমার লুকিয়ে কথা বলতে হবে না…

স্নেহা : [রাহুলের হাত ধরে] আরেহ আরেহ! কি আজিব! বাবাকে কেনো ওসব বলতে যাবা! আমি কি বলেছি কথা বলবো না?..? ঠিকাছে ঠিকাছে..তুমি যাও আমি আসছি!

রাহুল : m waiting! so hurry up…?

[স্নেহা বিড়বিড় করে…কি যেন বলছে]

রাহুল : What!?

স্নেহা : আসছি তো যাওনা!?

রাহুল : সন্ধায় এসো তখন রুমের বাতি অফ থাকলে কেউ দেখবে না…

স্নেহা : ছিঃ ?

রাহুল : ছিঃ কেনো?..

স্নেহা : তুমি কি কি করবা?..

রাহুল : Shut-up ok?..যেটা বলেছি সেটা করবা নাহলে তো জানোই আমি কি কি করতে পারি!? [ রাহুল বেরিয়ে গেলো ]

স্নেহা : Stupid, idiot ?সব জায়গায় নিজের রাজত্ব… হুহ..আমিও দেখি তুমি কিভাবে বাবাকে বলো..?

সন্ধ্যায়, বিজলি চলে গেছে..

..কিন্তু চারদিক হারিকেলের আলোয় ভরে আছে..

স্নেহা উঠোন পেরিয়ে,গায়ে চাদর মুড়িয়ে..রাহুলের রুমে যায়…

রাহুল : এত্তো লেইট করলা কেনো?..

স্নেহা : শিসস! ধীরে বলো..আর কেউ শুনবে… তুমি কই কিছুইতো দেখছিনা..

[ রাহুল স্নেহার কোমোড়ে হাত দিয়ে স্নেহাকে কাছে টেনে নিলো ]

স্নেহা : আরেহ!?

রাহুল : এইতো আমি!?

স্নেহা : ছাড়ো প্লিজ!

রাহুল : শিসস! ধীরে বলো স্নেহা কেউ শুনবে!…??

স্নেহা : দেখো যা বলবা তাড়াতাড়ি বলো..আমার যেতে হবে..বিজলি আসলে তখন..কারো চোখে পড়ে যাবো.. ?

রাহুল : ওকে রিলেক্স! তুমি বের না হওয়া পর্যন্ত বিজলি আসবে না..?

স্নেহা : মানে কি!…

রাহুল : মানে আমার যাদু??

স্নেহা : তার মানে তুমিই..করেছো এসব?..

রাহুল : ইয়েস!? [ স্নেহা ব্লাশিং?]

স্নেহা : আচ্ছা হয়েছে..এবার বলো কি বলবা… [ স্নেহা রাহুলের হাত স্নেহার কোমোড় থেকে ছুটাতে চাচ্ছে..রাহুল আরো শক্ত করে ধরে রাখছে?]

স্নেহা : কি আজিব! ছাড়ো প্লিজ!?

রাহুল : [ হেসে ]? ওকে! রিলেক্স.. [স্নেহাকে ছেড়ে দিয়ে রাহুল স্নেহার চোখের উপর স্লাইড করলো স্নেহা চোখ বন্ধ করে ফেলে]

রাহুল : আমি না বলা পর্যন্ত চোখ বন্ধ রাখবে….?

স্নেহা : কিন্তু কেনো! ?

রাহুল : Shut-up বলেছি করবা..ব্যাস!

রাহুল… আগুন জালালো…স্নেহার মুখের উপর হলুদ অগ্নি আলো এসে পড়লো…

রাহুল : Shut-up স্নেহা! একদম চোখ খুলবা না…

স্নেহা : ওকে ওকে..! খুলছি না…?

[ কিছুক্ষণ পরে রাহুল স্নেহার পেছন থেকে…দু-পাশে হাত দিয়ে কোমোড়ে…ঝড়িয়ে ধরলো..]

রাহুল : Sooo… now u can open ur eye’s ?….

স্নেহা চোখ খুলে দেখে…গোলাপের? পাপড়ি দিয়ে সাজিয়ে লিখে রেখেছে…
?I Love You Miss Dramaqueen?মাঝে একটি কেট্রোস্ গাছ…

স্নেহা কেট্রোস্ গাছটি হাতে ছুয়ে অবাক হয়ে রাহুলের দিক ফিরে তাকালো…??

রাহুল স্নেহার হাত দুটো তার হাতে নিয়ে চুমু খেলো…

রাহুল : স্নেহা! মনে আছে ভার্সেটিতে…প্রথমদিন তুমি এই কেট্রোস্ গাছ গুলোকে আলতো ভাবে ছুয়ে দেখছিলে..

তখন আমি দূর থেকে তোমাকে দেখে যাচ্ছিলাম… তোমার চুল গুলো উড়ছিলো…চোখের পাতা ঝুকে ছিলো…মিটিমিটি করে হাসছিলে তুমি..?

তখন আমি ভাবছিলাম কে এই মেয়ে..আগে তো দেখিনি…আমি অবাক দৃষ্টিতে তোমার দিকে তাকিয়ে ছিলাম… ?

স্নেহা.. আমি তোমার আগে অনেক মেয়ে দেখেছি কখনো কারো দিক এভাবে তাকিয়ে থাকিনি… কেনো জানিনা ঐদিনই তোমায় দেখে আমি তোমার প্রেমে পড়ে যায়, u know যেটাকে বলে Love at 1st sight…?

স্নেহা : ???

রাহুল : ঐ রেসিং কারটার থেকে তোমাকে বাচানোর পর তুমি আমার সাথে যে রিয়েক্ট করলা… আমি তখন ভাবলাম নাহ দেখি এই মেয়ের কান্ড?…তোমার ছেলেপনা…বাচ্চাদের মতো কান্ড করা নেহার সাথে আমাকে দেখলে তোমার রাগ উঠা…সব কিছু আমার রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে…?

কিন্তু আমি কিছু বলে উঠার আগেই তুমি পালিয়েছ ?

স্নেহা : আমাকে একটু চিমটি কাটো?

রাহুল : [ স্নেহাকে চিমটি কাটলো..] dream না reality…

স্নেহা : আই! ?আমিতো তোমাকে সব বলেদিয়েছিলাম…তোমার পিছে পিছে ঘুরেছি…তুমি আমাকে ইচ্ছে করে নাচিয়েছ?..

রাহুল : হি -হি- আমি তো মজা করেছিলাম..?

স্নেহা : আচ্ছা ওকে! মজা নিচ্ছিলা তাই না!…এবার আমিও দেখাবো তোমাকে মজা?

রাহুল : তোমার মাথায় কি কোনো বুদ্ধি আছে হুম?….? আমি তোমাকে প্রপোজ করেছি..আর তুমি কি না…

রাহুল : [স্নেহাকে ধাক্ষিয়ে দেওয়ালের সাথে লাগিয়ে] দেখো স্নেহা আমি অনেক সিরিয়াস… ? আমি তোমাকে অনেক ভালোবেসে ফেলেছি…

স্নেহা আই লাভ ইউ..

স্নেহা : [মনে মনে] আমিও তো প্রথম দেখাতে ভালোবেসেছি…? মিষ্টার হ্যান্ডস্যাম…

রাহুল : কি হলো জবাব দিবে না…

স্নেহা : হুম! সরে দাঁড়াও…

রাহুল সরে দাঁড়ালো…

স্নেহা : দেখো.. তুমি না আমাকে নেহা পাওনি…যে তোমার মিষ্টি মধুর কথা বলবা আর আমি সত্যি সত্যি বিশাস করে তোমাকে মেনে নিবো…?

রাহুল : কিন্তু স্নেহা তুমিওতো আমাকে..

স্নেহা : এহ এহ! একটা সময় ছিলো..তখন আমিও তোমাকে…??

রাহুল : [রেগে স্নেহার কাছে এসে] দেখো স্নেহা সবসময় ড্রামা মানায়না বুঝেছো?

স্নেহা : এই যে মিষ্টার চাছোড়া..? ড্রামা ড্রামা করে আমার কানের মার্ডার করে দিয়েছো… তুমি ১২ফিটের চাছোড়া হলে…আমি ৬ ফিটের ইগো বুঝেছো..

রাহুল : ওকে i accept it?

স্নেহা : তুমিও না এসব ড্রামা আমার সামনে করো না…এভাবে টিনের ঘরে থাকলে তুমি অসুস্থ হয়ে পড়বে…যাও গিয়ে..তোমার নরম খাটে এসি ছেড়ে ঘুমাও..

রাহুল : [স্নেহার কাছে এসে with naughty mind?]

তুমি?

আমাকে?

ভালোবাসোনা?

তাইতো??

স্নেহা : হুম! বাসি না… দূরে গিয়ে দাঁড়াও

রাহুল : ওকে…?

স্নেহা : কি হলো এভাবে তেডি স্মাইল দিয়ে দাঁড়িয়ে আছো কেনো…

বললাম তো আমি তোমাকে ভালোবাসি না..

রাহুল : Yeah..i see?

স্নেহা : [মনে মনে] আব তুমেভি তারপানা পাডেগা মিষ্টার তেডি স্মাইল…?

স্নেহা রুম থেকে বেড়িয়ে গেলো…

রাহুল : [মনে মনে] ড্রামাকুইন..? আমিও দেখি তুমি কেমনি আমাকে ভালো না বাসো…

স্নেহা রুমে গিয়ে ব্লাশিং হতে লাগলো…
ফাইনালি রাহুল বলেছে…সেও স্নেহাকে ভালো বাসে…?ভাবতেই স্নেহা লাল হয়ে যাচ্ছে..তার মানে রাহুল ও স্নেহাকে প্রথম দেখাতে….??

রাতে স্নেহা খাবার খেয়ে জানালা দিয়ে উকি দিলো রাহুল কি করছে দেখার জন্য… কিন্তু দরজা জানালা সব বন্ধ কিছুই বুঝতে পারছে না…

একটু পর পর দেখছে…কিন্তু এখনো বন্ধ…

রান্নাঘরে গেলো স্নেহা,

স্নেহা : গীতালি সবার খাওয়া দাওয়া শেষ..?

গীতালি : হুম শেষ…

স্নেহা : সবার..?

গীতালি : হে বাবা সবারই শেষ..

স্নেহা : ধুর! মানে…! হুম সবার বুঝেছি..বাড়ীতে বাড়তি যারা আছে তারাও…

গীতালি : [একটু হেসে] ঐ যে ছোড়াটার কথা বলছেন?.. ওনারে দিসি্লাম খাবার..বললো খিদা নাকি নাই…পাঠাই দিসে্ খাবার…

স্নেহা : ওহ..আমি ওর কথা জিজ্ঞেস করছিলাম না…মানে বলছিলাম যে হরিকাকারা সবাই খেয়েছে কিনা..

গীতালি : হুম আমি বুঝছি..কই এত্তোদিন তো হরিকাকার কথা জিজ্ঞেস করোনি..

স্নেহা : আই! ? একদম পাকনামি কথা বলবি না… যা কাজ হলে ঘুমিয়ে পর.. [স্নেহা বেরিয়ে যায় গীতালি হাসতে থাকে]

স্নেহা জানালার ধারে বসে বসে দেখছে…রাহুল না দরজা খুলছে না জানালা খুলছে..খুব অস্থির লাগছে..স্নেহার

স্নেহা : [মনে মনে] কি আজিব! করছেটা কি এতোক্ষণ ভেতরে…এখনো বের হচ্ছে না…কিছু খায়ইওনি…?

নাহ থাক আর পারছিনা… [ স্নেহা ধীরেধীরে রুম থেকে বের হলো সবাই রুমে ঢুকে পড়েছে…চারদিক অন্ধকার.. উঠোন পেরিয়ে স্নেহা রাহুলের দরজার ফাক দিয়ে উকি দিচ্ছিলো কিছুই দেখা যাচ্ছে না…কি আজিব! আবার গেলো জানলার দিকে…তাও কিছু দেখা যাচ্ছে না…এবার মাটিতে বসে পড়ে দরজার নিচের ফাকদিয়ে দেখার ট্রাই করতে লাগলো]

হঠাৎ, পেছন থেকে,

রাহুল : কি এমন দেখছো..কাতচিৎ হয়ে..?

স্নেহা : [ঘাবড়ে গিয়ে রাহুলের দিকে তাকায়..এবার স্নেহা সোজা তাড়াতাড়ি উঠে দাঁড়ায় মনে মনে বলতে থাকে..হায় আল্লাহ এতো বাইরে আর আমি..ধ্যাত?]

কি দেখছি মানে! ওও..একটা বিড়াল ছিলো…এদিক ওদিক…ঘুরঘুর করছে তাই দেখছি কোনো তোমার রুমে ঢুকে পড়েছে কিনা..?

রাহুল : হ্যা দেখতেই পাচ্ছি বিড়ালটাকে..

স্নেহা : কি বললে…?

রাহুল : আবারো ড্রামা..

রাহুল স্নেহার হাত ধরে রুমের ভেতরে ঢুকিয়ে নেই…

স্নেহা : আরেহ! কি হচ্ছে এসব…

রাহুল : শিসস!..?? তুমি যে বললে আমাকে ভালোবাসো না…

স্নেহা : হুম বলেছিলাম! তো?

রাহুল : তাহলে আমাকে না দেখাতে অস্থির হয়ে…দরজার ফাকে কাতচিৎ হয়ে উকি দিচ্ছো যে?..?

স্নেহা : এক্সকিউস্ মি! আমিতো বি.. বি [ রাহুল স্নেহার কাছে এগুতে লাগলো ]

রাহুল : তুমিতো বি.. বি? কি? বলো..?

[স্নেহা দেওয়ালের সাথে লেগে পড়লো…রাহুল স্নেহার অনেকটা কাছে এসে দাঁড়ায়..]

স্নেহা : দেখো প্লিজ! আমাকে যেতে দাও..

রাহুল : সত্যি বলো যেতে দেবো.. ?

স্নেহা : আমিতো সত্যিই বললাম…?

রাহুল স্নেহার মুখে একটা ফু দিলো…স্নেহার মুখের উপর উড়ে আসা চুল গুলো সরে গেলো… ?

রাহুল : একটা সেকেন্ড ও থাকতে পারছিলে না.. আমাকে ছাড়া তাই না?..?

স্নেহা : কই নাতো?

রাহুল : জানালা দিয়ে বার বার উকি দিয়ে কাকে দেখছিলে?..?

স্নেহা : [Shocked হয়ে] ?আ আ.. আকাশ দেখছিলাম

রাহুল : [ স্নেহার একদম কাছে ] ওহ! রিয়েলি? [ with tedi smile ]

স্নেহা : ?দেখো তোমার এই তেডি স্মাইল দেওয়া বন্ধ করো..

রাহুল : কেনো এটা দেখে তোমার কুচ্ কুচ্ হয় নাকি?..?

স্নেহা : হ্যা হয়?..

রাহুল : তাই?

স্নেহা : নাহ! মানে!..?

রাহুল : Shut-up stop the drama…come on স্নেহা এইবার তো বলো যে তুমিও আমাকে??

চলবে….

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here