ভালোবাসি তোমাকে Part-05

0
855

ভালোবাসি তোমাকে Part-05
 jannatul_ferdous

 

পুষ্প মা হতে চলছে জেনেই অনেক খুশি হলো শিমু।সুস্থ হলেও শিমু সম্পূর্ণরূপে ভুলে গেছে জিহাদকে।

জিহাদ-কেনো এটা হলো।আমি যে তোমাকে ভালোবাসি বলতে চেয়েও বলতে পারলাম না।তার আগেই ভুলে গেলে তুমি আমাকে।চোখ মুছে বের হয়ে আসলো হাসপাতাল থেকে।

শিমু-বাবা ও কে ছিলো?

শিমুর আব্বু-তুই জিহাদকে ভুলে গেলি?

ডাক্তার শিমুর আব্বুকে ডেকে নিয়ে চলে গেলো।

তারপর বললো—–
একসিডেন্টে ওর পুরোনো অতীত মনে পরলেও ভুলে গেছে এই কয়েকদিনের সব কিছু।ওর যে অনুভূতিটা এক জায়গায় স্থির ছিলো,সেটা ওর মন থেকে হারিয়ে গেছে।সাথে হারিয়ে গেছে ৬মাসের ঘটনাগুলো।এগুলো মনে করাতে গেলে ওর নিজের-ই ক্ষতি হবে।এমনও হতে পারে ও সব ভুলে যাবে।তাই জোর করবেন না কেউ ওকে।

শিমু-বলো না আম্মু ও কে ছিলো।

নিশাত-আপু তুই জিহাদ ভাইয়াকে ভুলে গেলি কীভাবে?ভাইয়া তোকে কত ভালোবাসতো।

শিমু-আমার কিছু মনে পরছে না কেন?

শিমুর আব্বু-থাক মা কষ্ট করতে হবে না তোর।ভুলে যা ওইসব।

কয়েকদিনের মধ্যেই শিমুকে বাড়ি নিয়ে গেলো।জিহাদ শিমুকে দেখতে আসছিলো,কিন্তু শিমু চিনতে পারলো না জিহাদকে।

পুষ্প-এখন কী করবে ভাইয়া?

জিহাদ-জানি না।আমি যাচ্ছি।

পুলক-কই যাবে?

জিহাদ-জানি না,আবার দেশ ছেড়ে চলে যাবো হয়ত।

নিশাত-যেয়ো না ভাইয়া।

জিহাদ-কী করবো,ও আমাকে চিনছে না।

নিশাত-অপেক্ষা করো।

জিহাদ-ডাক্তার তো বলেই দিলো ওর উপর জোর দেওয়া যাবে না।আমি জানি ওর আর কিছু মনে পরবে না।

পুষ্প-ওকে ছেড়ে গিয়ে ভালো থাকতে পারবে ভাইয়া?

জিহাদ-জানি না আমি কিছু।

শিমুর আব্বু-জিহাদ একটা কথা বলার ছিলো।

জিহাদ-বলেন আঙ্কেল।

শিমুর আব্বু-আমি তোমার বাবা মায়ের সাথে কথা বলতে চাই তোমার আপত্তি না থাকলে।

জিহাদ-কি ব্যাপারে আঙ্কেল?

শিমুর আব্বু-আমার ইচ্ছে তুমি শিমুকে বিয়ে করো।

নিশাত-ওয়াও আব্বু তুমি অনেক ভালো কথা বলছো।তাড়াতাড়ি বিয়েটা দিয়ে দাও আব্বু।

জিহাদ-কিন্তু শিমু রাজি হবে তো?

শিমুর আব্বু-দেখি কী হয়.

জিহাদ-আমি তাহলে আব্বু আম্মুকে আসতে বলে দিবো।

শিমুর আব্বু-বলো।

জিহাদ চলে যেতেই শিমুর রুমে আসলো শিমুর আব্বু আম্মু।

শিমুর আম্মু-এই ভাবে আর কয়দিন?

শিমু-আম্মু আমার ভালো লাগছে না যাও।

শিমুর আব্বু-মা রে তোর সব কথা আমি রাখছি।যে চলে গেছে সে কী আর ফিরে আসবে বল।

শিমু-আমার ভালো লাগছে না এইসব নিয়ে কথা বলতে।

শিমুর আম্মু-দেখ জিহাদ তোকে ভালোবাসে।

নিশাত-হ্যা আপু ভাইয়া তোকে খুব ভালোবাসে।

শিমু-আমি এইসব নিয়ে কঅ বলতে চাই না নিশু।

নিশাত-কেনো আপু।তুই যখন অসুস্থ ছিলি,ভাইয়া তোর সব কথা রাখতো।যখন যা বলতি তাই করতো।ভাইয়া তোকে ভালোবাসে তাই এইসব করতো।আজ তুই কেনো অতীতের জন্য….

শিমু-প্লিজ যাও সবাই আমার রুম থেকে।প্লিজ যাও।

শিমুর রাগ দেখে সবাই চলে গেলো।দরজা বন্ধ করে কান্না করছে শিমু।জিহাদও জানতে পারলো শিমু বিয়েতে রাজি না।
কয়েক দিন কেটে গেলো।আজ জিহাদ দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে।পিছনে রেখে যাচ্ছে ভালোবাসার পাখিটাকে।গাড়িতে চুপচাপ বসে আছে জিহাদ।

নিশাত-ভাইয়া চলে গেছে আপু।তোর জন্য এই ডায়েরীটা দিয়ে গেছে।

ডায়েরিটা খুলতেই একটা ছবি পেলো।ছবিটা দেখেই চিনতে পারলো শিমু।সেই জিহাদ,যে ভালোবাসতো শিমুকে।

মায়াবতী,,,,,,
সেদিন তোমার যোগ্য ছিলাম না ভেবেছিলাম যোগ্য হয়েই ফিরবো।কিন্তু যোগ্য হতে গিয়ে তোমাকে হারিয়ে পেলছিলাম।তারপর আবারও ফিরে পেতেই হারিয়ে গেলো তুমি।সেদিনও বলছিলাম তোমাকে ভালোবাসি।আজও বলছি আমি আজও তোমাকে ভালোবাসি।
ভালো থেকো।আমি চলে যাচ্ছি।অনেক ভালো থেকো।

স্মৃতির পাতায় কোনো দিন যদি এসে যায় আমি, ভাবনার গভীরে যদি কোনোদিন আমি হতে পারি তোমার একটু ভাবনার কারণ।সেদিনও যদি আসো আমি শুধুই বলবো তোমাকে ভালোবাসি।

চলবে…….

প্রিয় পাঠক আপনারা যদি আমাদের (গল্প পোকা ডট কম ) ওয়েব সাইটের অ্যাপ্লিকেশনটি এখনো ডাউনলোড না করে থাকেন তাহলে নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে এখনি গল্প পোকা মোবাইল অ্যাপসটি ডাউনলোড করুন => ??????

https://play.google.com/store/apps/details?id=com.golpopoka.android

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here