পেগন্যান্ট পর্ব/ ২

0
547

পেগন্যান্ট পর্ব/ ২
লেখক✍ছোট ছেলে

বৃষ্টি তুমি আমার সাথে তখন এমন ব্যবহার করলে কেন

আমি/ এমনি বাসা থেকে অনেক বিয়ের চাপ দিচ্ছে তাই

বৃষ্টি/ কি বলছো তুমি
তুমি কি বললে

আমি/ কি আর বলবো রাজি হয়ে গেছি

কাল মেয়ে দেখতে যাবো

বৃষ্টি/ না এটা হতে পারেনা
তুমিনা আমাকে ভালোবাসো

তাহলে অন্যকাউকে নিয়ে কিভাবে সংসার করবে

আমি/ ভুলে যাও আমাকে তোমাকে আমার পরিবার কখনও মেনে নিবেনা

বৃষ্টি/ কি বলছো তুমি এসব
দুবছরের সম্পর্ক আমাদের এত সহজে কিভাবে বলছো ভুলে যেতে তোমায়

আমি/ দেখ এ নিয়ে আমি আর বাড়াবাড়ি করতে চাইনা

আমি চাই আজ থেকে তুমি আমায় আর কখনও ফোন দিবেনা

বৃষ্টি/ বাহ্ বাহ্ কত সহজে তুমি বলে দিলে

এই তুমি কি জানো তোমার সন্তান আমার পেটে

কথাটা শুনে মাথা ঘুরলো আমায় তবে ভয় পাইনি

এটা আর নতুন কি এরকম এখন অনেক হচ্ছে

আমি/ কি বলছো এসব তুমি আমার সন্তান তোমার পেটে
এটা কি করে সম্ভব

বৃষ্টি/ কেন সম্ভব নয়

আদর করার সময় মনে ছিলোনা

যাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিতে পারবেনা তার সাথে এমন করা উচিত নয়

আমি যা বলছি সত্যি বলছি
আমি তিন মাসের গর্ভবতী

আর শোন আমাকে রেখে যদি অন্যকারও জন্য বিয়ের পিঁড়িতে বসো তাহলে সবার সামনে ভালো মুখোশের আড়ালের শয়তানের মুখোশটা খুলে দিবো

সত্যি আমি কিন্তু এবার ভয় পেয়ে গেছি বৃষ্টির কথা শুনে

কি করবো বুঝতেছিনা

আমি/ এই শোন তোমাকে আমি অনেক টাকা দিবো

তোমার থেকে আমাকে মুক্তি দাও

বৃষ্টি/ টাকা দিয়ে আমি কি করবো

আমি/ কি করবো মানে বাচ্চা নষ্ট করে ফেলবে

বাকী টাকা দিয়ে নিজের ভবিষ্যত গড়বে

বৃষ্টি/ ছিঃ রিয়ান ছিঃ ভাবতে আমার ঘৃণা হয়

তুমি এত নীচ এতটা ছোট
তোমার মত একটা অমানুষকে ভালোবেসে বিশ্বাস করে সব দিয়েছি কি করে

আমি একটু ভয় পেয়ে গেলাম

যদি সত্যি এমনটা হয় মান সম্মান সব চলে যাবে

কিন্তু এটা বুঝতে পারছিনা দুবছরে যাকে আজ বিছানা পেলাম সে কি করে মা হতে চলেছে

মাথায় কিছুই আসতেছেনা

এর সাথে আমার সম্পর্ক আছে ঠিক-ই কিন্তু ওর পেটের সন্তানটা তো আমার নয়

কি করবো বুঝতেছিনা

মায়ের পছন্দ করা মেয়েকে করবো

নাকি যার সাথে মিথ্যে ভালোবাসার অভিনয় করলাম তাকে

ব্যপারটা খুব ভাবাচ্ছে আমায়

যে আমি মেয়ে মানুষকে এতদিন নাচিয়েছি সে মেয়ে আজ আমায় ধরা খেলাম জায়গা মত

মনে মনে ভাবতে লাগলাম বৃষ্টি শুধু আমার সাথী বিছানায় যায়নি

আমি ছাড়াও অন্যকোন পুরুষ তার জীবনে আছে

কিন্তু কে সে যার পাপের ফসল বৃষ্টি আমাকে উপহার দিতে চাইছে

কি আর করা বলে দেখি যদি বাচ্চাটা নষ্ট করা যায় বৃষ্টিকে বুঝিয়ে তাহলে ভালো হয়

এখন নয় মাঝরাতে ওকে সব বুঝিয়ে বলবো

দেখি ফলাফল কি হয়

দোকানে গিয়ে একটা চা খেয়ে একটা সিগারেট জ্বালালাম

কিন্তু মনে শান্তি একটুও নেই

কোন পথটা আমার জন্য শুভ বৃষ্টি নাকি মায়ের পছন্দ

আড্ডা দিতেও ভালো লাগছেনা কে যেন তাড়া করে বেড়ায় আমাকে

দ্যাতততত বাসায় চলে যাই

বাসায় ঢুকতে আম্মু বলে

আম্মু/ রিয়ান শোন বাবা

আমি/ কিছু বলবে আম্মু

আম্মু গলার সুরটা শুনে বুঝে গেছে কিছু একটা হয়েছে আমার মাঝে

নাহলে আমিতো এমন শান্ত ভাবে কথা বলিনা মায়ের সাথে

আম্মু/ কিরে বাবা তুই ঠিক আছিস

আমি/ হ্যাঁ আমি একদম ঠিক আছি

কি যেন বলতে চাইলে তুমি

আম্মু/ ওহহহ হ্যাঁ

শোন মেয়ে পক্ষকে আমি বলে দিছি আমরা কাল-ই যাবো মেয়ে দেখতে

তোকেও কিন্তু যেতে হবে

আমি/ আমি না গেলে হয়না

মাঝখানে
ছোটবোন/ না হয়না কারন বিয়েটা তোর আমাদের নয়

সংসার করবি তুই বউ নিয়ে থাকবেও তুই তাই মেয়েটাও তোর পছন্দমত হতে হবে

আম্মু/ হুমমমম ঠিক- ই বলছে মেঘা(ছোটবোনের নাম)

আমি/ আচ্ছা দেখি যেতে পারিকিনা

বলে নিজের ঘরে চলে গেলাম

মা আর মেঘা দুজনে খুব ভাবছে আমার শান্ত নম্র ভদ্র ব্যবহার দেখে

আমি আমার ঘরে শুয়ে রইলাম

দরজা সামনে মেঘা এসে টোকা দেয়

চলবে…

উপদেশ/ কাউকে ঠকাতে যেওনা তাহলে তুমি নিজে ঠকবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here