তিনি এবং ও ! ৫.

0
335

তিনি এবং ও !

৫.
অদ্রি ভ্রু কুঁচকে মগ মেঝেতে রেখে বলল
– আমি জানবো কীভাবে?
নিদ্র বলল
– আমি এর একটা উত্তর জানি। তবে ঠিক হবে কিনা জানি না।
– তাহলে আমাকে কেন জিজ্ঞেস করছেন?
– কিছু প্রশ্নের উত্তর একাধিক হয়ে থাকে। ধরুন আমি যেই প্রশ্নটা আপনাকে করলাম সেটার একাধিক উত্তর হয়।সবগুলোই আমার গবেষণা করে বের করা।
– আপনি গবেষণাও করেন?
নিদ্র লাজুক লাজুক স্বরে বলল
– ওই টুকটাক। তো বলি?
– আপনি আমাকে যেভাবেই হোক বলবেন। আমি সম্মতি দানে হয়তোবা আপনি বিষয়টা ঘুরিয়ে বলবেন না আর সম্মতি না দিলেও…..
নিদ্র, অদ্রির কথার মধ্যেই বলল
– বুঝতে পেরেছি আপনি অনেক বুদ্ধিমান।
অদ্রি বাধা দিয়ে বলল
– বুদ্ধিমতী।
নিদ্র হা হা হা হা করে হাসতে শুরু করলো। অদ্রি তার হাসির দিকে তাকিয়ে ভাবছে, কতদিন পর এই বাড়িতে কেউ একজন মন খুলে হাসলো।
নিদ্র হাসি থামিয়ে কিছু একটা বলতে যাচ্ছিলো তখন অদ্রি বলল
– আপনি হাসি থামাবেন না প্লিজ। হাসুন প্রাণ খুলে, অনেকদিন এই বাড়িতে কাউকে এভাবে হাসতে দেখিনি।
নিদ্র হাসতে হাসতেই বলল
– কেনো? আপনার বাড়িতে হাসির উপর ১৪৪ ধারা জাড়ি করা নাকি?যে হাসলেই ফায়ার….. ঢুস ঢুস ঢুস ঠা ঠা ঠা…. ফায়ার হবে?
অদ্রি কফির মগ হাতে নিয়ে বলল
– আপনার কফি ঠাণ্ডা হচ্ছে।
– আপনি বললেন না তো?
– কী বলি নাই?
– আপনার বয়ফ্রেন্ড আছে কিনা?
– বললামই তো নেই।
– তাহলে কী কারণে মন খারাপ?
– আমার মন খারাপ আপনাকে কে বলল?
– আমি খুঁজে কিছুটা বের করেছি। বলি?
– হ্যা বলুন।
– আপনি হাসছেন না। যাও একটু আকটু হাসছেন কিন্তু তার পরপরই নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করছেন।
– আমি খুব কম হাসি তাই…..
– আর আপনি খুব হালকা রঙের জামা কাপড় পড়েছেন।তবে অনেকে হালকা রঙ পছন্দ করে কিন্তু এতোটা সিম্পল তো হয়না। আর আপনার এলো চুলেই ধরা দিয়েছে কোনো একটা বিষয় নিয়ে আপনি খুব চিন্তিত বা মন খারাপ। আর আপনার বয়সী মেয়েরা বেশ সাজগোজ করে। এমনকি খুব সাধারণ মেয়েরাও অন্ততপক্ষে চোখে কাজল দেয়।
অদ্রি মাথার ঘোমটা ঠিক করে নিলো যদিও সেটা ঠিক করার প্রয়োজন ছিলোনা।
নিদ্র বলল
– আপনার চোখের দৃষ্টি খুব উদাসীন। একটা শূন্যতা খেলা করছে।
অদ্রি কঠিন স্বরে বলল
– আপনি এখন যেতে পারেন।
নিদ্র মেঝে থেকে উঠে চলে যেতে লাগলো। কিছুক্ষণ পর অদ্রি তার হাতের কফির মগ আর নিদ্রের রেখে যাওয়া মগ স্বযত্নে তার পছন্দের টেবিলের উপর রেখে দিলো।
কী যেন মনে করে নিদ্রের কফি মগের ঠাণ্ডা কফিতে চুমুক দিলো।
চিনি ছাড়া কফি, কী ভয়ংকর তিতা। তার কফি তো এমন ছিলোনা।
অদ্রির রাতের ঘুমটা ভালোই হলো। এদিকে নিদ্র সারারাত জেগে রুমের চার দেয়ালে নকশা করেছে। ভোররাতে সে ঘুমাতে গিয়ে বুঝতে পেরেছে এখন ঘুমালে তার পুরো দিন পার হয়ে যাবে।
আবার না ঘুমালে সারাদিন মাথা ঝিম ধরে থাকবে। শেষ পর্যন্ত সে ঘুমিয়ে পরলো। ঘুমের মধ্যে নিদ্র স্বপ্নে দেখলো – সে বিশাল রঙের নদীতে নৌকায় বসে আছে।
নদীটা বিভিন্ন রঙের মিশ্রণ।
ঢেউ আসছে একেক সময় একেক রকম। নিদ্র হাত বাড়িয়ে ঢেউ স্পর্শ করার চেষ্টা করলো কিন্তু পারলো না। অনেক চেষ্টা করেও সে স্পর্শ করতে পারলো না। স্বপ্নের মধ্যেই নিদ্র বুঝতে পারলো সে স্বন দেখছে।
এতো রঙিন স্বপ্ন মনে হয় সে আজই প্রথম দেখলো। সে ভেবে নিলো, ফিরে গিয়ে রঙের ব্যবসা করবে।

চলবে……..!

#Maria_kabir