ডেভিল হ্যাজবেন্ডের পিচ্চি বৌ♥part : 10+11

0
556

ডেভিল হ্যাজবেন্ডের পিচ্চি বৌ♥part : 10+11
সুরিয়া মিম

.
সোনাপাখি একটা খুব রাগ হয়েছে তাই না?
!
তোমার রাগ যদি আমি ঘুচিয়ে না দেই আমি ও তোমার স্বামী নই,
!
তখন হঠাৎ খেয়াল করে দেখি,
আমার পিচ্চি বৌয়ের হাত পা খুব গরম হয়ে আছে,
!
তাই তখনি আমি ওকে কোলে তুলে বিছানায় শুইয়ে দেই,
!
আর ওর গালে গলায় হাত দিয়ে দেখি জ্বরে গা পুরে যাচ্ছে ওর,
!
তাই সাথে সাথে ওর জ্বর মেপে,
আমি গিয়ে সবাই কো ডেকে আনি আর আমার ডক্টর বন্ধু ওয়াহিদ কে পিচ্চির চেকআপ করার জন্যে ফোন লাগাই,
!
ওয়াহিদ ওর প্রপার চেকআপ করে জানায় যে,
!
ভাই তোদের চিন্তা করার কোনো কারন নেই,
!
আসলে সিজন চেইঞ্জ হচ্ছে তার ওপরে ঠান্ডা গরম আবহাওয়া আর তাই ভাবির একটু ভাইরাল ফিভার হয়েছে,
!
এ্যাকচুয়ালি এই সিজন চেঞ্জ টা ভাবির শরীর একটু ও টলারেট করতে পারছেনা তাই এমন টা হয়েছে,
আচ্ছা ভাবির কি কোল্ড এ্যালাজি আছে?
!
হ্যা বাবা একটু ঠান্ডা লাগলেই খুব অসুস্থ হয়ে পরে মেয়ে আমার,
!
তাহলে তো ভাবি কে দেখে শুনে রাখতে হবে,
নয় তো তার আরো বেশি অসুস্থ হয়ে পরার চান্স আছে,
!
তাই আমি যে ঔষধ গুলো লিখে দিয়েছি ও গুলো ঠিক মতো খাওয়ালে ও যত্ন নিলে ভাবি শীঘ্রই সুস্থ হয়ে যাবে,
!
পিচ্চির চেকআপ করে ওয়াহিদ যেতেই আমি আমার পিচ্চি কে আমার বুকে জড়িয়ে বসে থাকি,
!
ও তার কিছুক্ষণ পরে আমার বৌ টা জেগে গিয়ে আমাকে ওর থেকে দূরে ঠেলে দেয়,
!
কিন্তু আমি সে দিকে খেয়াল না করে,
ওকে জোর করেই খাবার খাইয়ে ঔষদ খাইয়ে দেই,
!
আর ও তাতে রেগে গিয়ে অন্যপাশ ফিরে শুয়ে থাকে,
ধুব বাবা ভাল্লাগেনা এখনো রেগে আছে ও,
!
কি করলে যে আমি ওকে আবার আমার কাছে ফিরে পাবো?
সেটা তো আমি ও জানি না,
!
আর হঠাৎ তখনি চট করে আমার মাথায় বুদ্ধি এসে যায়,
আর আমি ও বৌয়ের অভিমান ভাঙানোর প্লান করে ঘুমিয়ে পরি,
!
পরেরদিন ভোর বেলা উঠেই বৌয়ের রাগ ভাঙানোর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা শুরু করে দেই,
আর রাতে ভাবি কে বলি ওকে নিয়ে ছাদে চলে যেতে,
!
রাতে পিচ্চি একাই ছাদে চলে যায়,
আর সেখানে গিয়ে দেখপ পুরে ছাদ টাই বেলুনে বেলুনে ভরে আছে,
!
বেলুন গুলো রেখে আর একটু সামনে এগোতেই দেখে আমি ডেভিলের মতো ছাদের মাঝ বড়াবর লাভ বেলুন দিয়ে সরি লিখে দাড়িয়ে আছি শুধু তাড়ি জন্যে,
আর আমার পিচ্চি বৌ আনার আর একটু তার কাছে আসতেই আমি তাকে লাল গোলাপ দিয়ে প্রপোজ করি,
কিন্তু আমার পিচ্চি
তাতে কোনো রিঅ্যাক্ট না করে আমার হাত থেকে ছে মেরে গোলাপ গুলো নিয়ে রুমে এসে,
ঘুনের ভান ধরে পরে থাকে,
!
আর তার কিছুক্ষণ পর আমি ওর বুকে মুখ গুজে কান্নাকাটি জুড়ে দেই,
!
কারন এই সবকিছুই আমার জন্যে হয়েছে আর তাই ও খুবি রেগে আছে,
!
হঠাৎ কেউ আমার মাথায় হাত বুলাতে শুরু করে,
!
তাই মাথা তুলে বৌয়ের দিকে তাকাতেই দেখি,
!
সে আমাকে দেখে মৃদু মৃদু হাসছে ও আমার মাথায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছে ,
!
কি হলো কাঁদছ কেন ভাইয়া?
!
বৌয়ের এই প্রশ্ন শুনে আমি হতভম্বের মতো, ওর দিকে তাকিয়ে থাকি,
!
কি হলো চুপ করে আছো কেন?
!
তুমি আমাকে ক্ষমা করে দিয়েছ সোনা?
!
ক্ষমা আর তোমাকে কখনওই না,
তোমার এতো কান্না আসলে তোমার রিয়ার কাছে গিয়ে কাদোঁ আমার কাছে বসে কাঁদছ কেন হুমমমমম?
!
তুমি আমার সব আর আমি তোমার কাছে বসেই কাঁদবো,
!
তোমার কান্না করতে ইচ্ছে করলে বাহিরে গিয়ে কাদোঁ,
আমার কাছে বসে কেঁদো না প্লিজ,
!
কারন আমার না খুবি ঘুম পাচ্ছে ,
আর আমি এখন ঘুমুতে চাই,
!
কিন্তু কে শোনে কার কথা?
আমি সেই আমার বৌয়ের বুকে মুখ গুজেই পরে আছি বিছানায়,
!
কিছুক্ষণ পর বৌ আমাকে বলে,
!
হয়েছে জান ভাগেন আমি আপনাকে ক্ষমা করে দিয়েছি,
!
সোনা তুমি আমাকে ক্ষমা করে দিলে রেগে রেগে কথা বলছ কেন হুমম?
!
আমার ইচ্ছে করছে তাই,
আপনি আমাকে মোটেও বিরক্ত করবেন না গট ইট?
প্লিজ আপনি চলে জান ভাইয়া,
!
কোথাও যাবো না আমি,
তুমি আমাকে আপনি করে বলছ কেন?
!
আপনি আমার থেকে বয়সে বড় তাই,
!
আমি তোমার থেকে
অনেক বড় তো নই বড়জোর বছর দশেকের বড়,
!
ওই তো আপনি বুড়ো ভাম,
আপনি নাকি আমাকে কোলে নিয়েছেন?
আম্মু আমি বলতে শুনেছি,
!
হ্যা নিয়েছি তো?
আমার বৌ কে আমি কোলে নিয়েছি কারো কোনো সমস্যা?
!
আমার সমস্যা,
কারন আমার বিয়ে হয়েছে আপনার মতো বুড়োর সাথে,
!
দেখো সোনা আমার আঠাশ বছর,
তাই তোমার কোনো বুড়োর সাথে বিয়ে হয়নি,
!
কানের কাছে ঘ্যানঘ্যান কইরেন নাতো,
বুড়ো ভাম জানি কোথাকার,
!
তুমি কি রেগে গেলে সবাই কে আপনি আপনি করো?
তাই আমাকে ও আপনি আপনি করছ ?
!
আপনি কি এখান থেকে যাবেন?
না আমি চিৎকার করে সবাই কে এ ঘরে ডাকবো?
!
তখনি আমি ওকে আমার বুকের সাথে চেপে ধরে বলি,
আমি তোমাকে ছেড়ে কোথাও যাবো না আর যাচ্ছি ওনা গট ইট,
তাতে তুমি যতই রেগে যাও না কেন?
!
প্লিজ ভাইয়া আমি আপনাকে আর টলারেট করতে পারছিনা,
আপনি তো জানেন আমি অসুস্থ তাহলে আপনি এমন কেমন করছেন?
!
কারন আমি তোমাকে ভালোবাসি আর তোমাকে ফেলে কোথাও যাবো না আমি,
!
আবারো,
!
আমি কোনো মিথ্যে কথা বলছি না,
এটাই সত্যি আর আমি তোমাকে সত্যি কথা বলছি,
সেদিন রাগের মাথায় আমি তোমাকে উল্টোপাল্টা বলে ফেলেছি আর সেটা সত্যি নয়,
!
অসভ্য তুই যা এখান থেকে,
মিথ্যুক জানি কোথাকার,
বুড়ো জানি কোথাকার, বিরক্তিকর জানি কোথাকার,
!

তুমি আমার কথা শোনো?
!
কি শুনবো ভাইয়া?
!
আসল সত্যি টা তো আমি বাসরেই যেনে গেছি,
যে আপনি অন্য কাও কে ভালোবাসেন,
মানছি আমি বোকা অতো সতো বুঝি না,
তবে যে টুকু বুঝি সে টুকু তেই চলে যায় আমার,
আর যে টুকু বুঝতাম না সেটুকু ও বুঝে গেছি আমি,
কারন আমাকে আমার মায়েরা ভালো করে বুঝিয়ে ছেন,
!
আপনি তো আপনার জান কে বলে ছিলেন,
!
আমার সাথে বিয়ে হলে ও আপনি শুধু ওকেই ভালোবাস বেন,
সবি তো ঠিক চলছিল দেন হঠাৎ কি হলো যে আপনি আমাকে নিয়ে পরলেন?
আপনার গলফ্রেন্ডের সাডেনলি বিয়ে হয়ে যাওয়ায় কি আপনার মত টা বদল হয়ে গেল?
তাই আপনি কালকে ওকে সবার সামনে অপমান করে এটাই বোঝাতে চেয়েছেন যে আপনি শুধু আমাকেই ভালোবাসেন?
লিসেন আমি আপনার ভালোবাসার ধার ধারিনা মিস্টার খান,
!
এভাবে অবাক হয়ে কি দেখছেন মিস্টার খান?
নিজের কানে যে গুলো শুনেছি সেগুলোই আপনাকে বলছি,
!
আপনি কি আপনার মা বাবা খুশির জন্য আমার সাথে সংসার করতে চাই ছেন না গালফ্রেন্ডের দুঃখ্যে এমন টা করছেন শুনি?
!
তুমি আমার কথা শোনো?
!
আপনার কথা শোনার কিছু নেই মিস্টার খান,
!
কারন আপনি একটা কাওয়ার্ড,
আগে তো আপনার আমার কথা কস্মিনকালে ও মনে পরেনি,
আর এখন যেই আপনার গার্ল ফ্রেন্ড আপনার মায়া ত্যাগ করে অন্য কাও কে আপন করে নিয়েছে,
!
তখন আপনি আপনার পাত্তাড়ি গুটিয়ে আমাকে এসে বলছেন যে আপনি আমার স্বামী, আপনি আমাকে ভালোবাসেন,
আপনার আমাকে চাই আমার ওপরে অধিকার ফলানো চাই?
!
শুনুন আপনার এই মিনিংলেস কাজকর্ম অন্য কোথাও গিয়ে করবেন আমার কাছে না কারন আমি কোনো ফেলনা নই গট ইট,
!
আপনার আমার সাথে থাকতে হয় আমার থেকে দূরে দূরে থাকবেন,
কখনো মনের ভুলেও স্বামীর অধিকার নিয়ে দাবি জানাতে আসবেননা কেমন?
আর আমারো আপনার বৌয়ের অধিকার চাই না গট ইট,
!
তারপর ও আবারো ফ্লোরে মাদুর বিছিয়ে কাঁথা মুড়ো দিয়ে শুয়ে পরে,
!
এসব কি হচ্ছে আল্লাহ?
যখন আমি আমার ভুল গুলো বুঝতে পরে নিজেকে ওর হাতে তুলে দিয়েছি তখনি ও আমাকে দূরে ঠেলে দিলো?
!
অামি কি ওর এবং ওর ভালোবাসা পাওয়ার যোগ্য নই?
.
Part : 11
=========
!

আজ রাতে কিছুতেই ঘুম হবেনা আমার,
কি করে হবে?
যাকে আমার প্রয়োজন সেই তো আমার কাছে নেই,
!
এসব ভাবতে ভাবতে খেয়াল করে দেখি,
আমার পিচ্চি টা ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে কাঁপছে,
তাই আমি ওকে কোলে তুলে বিছানায় এনে শুইয়ে দেই,
আর ও ঘুমের মধ্যে আমার নিয়ন মনে করে আদর করতে থাকে,
!
পরেরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি আমার পিচ্চিটা বাচ্চাদের মতো হাত পা গুটিয়ে আমার কোলের মধ্যে ঘুমিয়ে আছে,
!
তাই আমি ওর গালে আলতো করে চুমু একে দেই,
আর তখনি ও উঠে গিয়ে আমাকে বকা দিয়ে বলে,
!
নিজের লিমিটের মধ্যে থাকবেন গাজোয়ারি করবেননা কেমন?
!
তুমি তো আগে এমন টা ছিলোনা?
এমন কেন করছ সোনা?
!
ওহহহহহহ,
সেটা আপনি জানেনা বুঝি?
আপনার জন্যেই তো এতকিছু,
এরি মধ্যে ভুলে গেলেন আপনি?
!
ওর প্রশ্নের উওর দিতে না পেরে বোকার মতো তাকিয়ে থাকি আমি,
!
কি হলো চুপ করে আছেন কেন ভাইয়া?
!
দেখো তুমি আমাকে ভাইয়া বলে ডাকবেনা.কেমন?
!
টপিক চেঞ্জ করলেন কেন?
আমি আমার প্রশ্নের উওর চাই?
!
আর তখনি আমার পিচ্চি বৌয়ের ফোন টা বেজে ওঠে,
ও ফোনটা রিসিভ করে কলার কে বলে,
!
তুই একটু ওয়েট কর আমি এখন আসছি,
!
তুমি এই অসুস্থ শরীরে কোথায় যাচ্ছে সোনা?
!
দ্যাটস নান অফ ইওর বিজনেস মিস্টার খান,
!
আমার পিচ্চি টা আমাকে এভাবে ইগনোর করলো?
!
তার কিছুক্ষণ পর আমার পিচ্চি টা ফ্রেস হয়ে নিজেই সাড়ি পরে বাথরুম থেকে বেরিয়ে আসে,
আর আমি অবাক হয়ে ওর দিকে জিজ্ঞাসুর দৃষ্টি তে ও সেটা বুঝতে পেরে ও আমাকে ফেলে চলে যায়,
!
জানিনা আমার অভিমানী টা কোথায় গেলো?
আমাকে তো সে বলে ও গেল না?
এখন আমি জানবো কি করে, যে আমার সোনাটা কোথায় গেল?
!
তখনি আম্মু এসে আমাকে বলে যে,
!
বাবা তোর পিচ্চি টা তো একা একাই ইউনিভারসিটি তে চলে গেছে ক্লাস করার জন্য,
!
কি ও ইউনিভারসিটি তে ক্লাস করতে গেছে?
!
হ্যা বাবা,
তাই ওকে অফিস থেকে আসার সময় সাথে করে নিয়ে আসিস কেমন?
!
হ্যা আম্মু ঠিক আছে,
!
দুপুরে অফিসে ইম্পরট্যান্ট ডিল সাইন করার পর পিচ্চি টাকে নিতে ইউনিভারসিটি তে চলে যাই,
!
সেখানে গিয়ে দেখি আমার আমার পিচ্চি বৌ টা ওর বন্ধু দের সাথে ক্যান্টিনে বসে হাসাহাসি করছে ও আড্ডা দিচ্ছে,
!
কিন্তু আমাকে চোখ তুলে চেয়ে ও দেখছে না,
সোনা তুমি কেন এমন করছ?
আমি কি এত টাই খারাপ যে আমাকে ভালোবাসা যায় না?
!
তখনি সামনে তাকিয়ে দেখি আমার পিচ্চি বৌ একটা ছেলের বাইকে বসে কোথায় যেন যাচ্ছে,
তাই তখনি আমি ওদের ফলো করতে শুরু করি,
ফলো করতে করতে বাসায় এসে পৌছাই,
!
বাসায় পৌঁছতেই কোনোমতে গাড়ি টা পার্ক করে রুমে ছুটে যাই,
!
সেখানে গিয়ে দেখি আমার পিচ্চি টা মাঐ শওয়ার নিয়ে বাথরুম থেকে বেড়িয়েছে,
আর তখনি আমি ওকে জড়িয়ে ধরে বলি,
!
কে ওই ছেলে টা?
কি হয় তোমার?
!
রিয়া আপনার কি হয়?
ছেলে টাও আমার তাই হয়,
!
শোনো বৌ তুমি মোটেও মজা করবেনা কেমন?
কারন আমি ভালো করেই জানি যে ও তোমার বন্ধু,
!
তাহলে আপনার বাজে বকার মানে কি শুনি ?
কি আপনি কি প্রমাণ করে চান শুনি?
!
আমি তোমাকে ভালোবাসি আর আমি এটাই………
!
হয়েছে প্রমাণ করা আপনি এখন আসতে পারেন,
আর কিছু দরকার নেই প্রমাণ করার সো গুড বাই,
!
তুমি এমন টা কিছুতেই করতে পারোনা কারন আমি তোমার স্বামী,
!
তোমাকে তো আমি আগেই বলেছি স্বামীর অধিকার নিয়ে কখনওই আমার কাছে আসবে না তুমি ,
!

তোমার যেমন আমাকে প্রয়োজন নেই,আমার ও তেমন তোমাকে প্রয়োজন নেই আর এই কথা টা ভালো করে তোমার মাথায় ঢুকিয়ে নাও ,
!
আমি কি বলছি আমার তোমাকে প্রয়োজন নেই?
!
ওহহহহহহ সাট আপ অ্যান্ড প্লিজ লিভ মি এলোন মিস্টার স্বামী,
!
পিচ্চি বৌয়ের কথায় অভিমান করে আমি ওকে ছেড়ে বাসা থেকে বেড়িয়ে যাই,
!
রাত দশ টা নাগাত আমি ড্রিংক করে সিগারেট টানতে টানতে বাসায় এসে আমাদের বেড রুমের দরজা ধাক্কা তে থাকি,
আর তখনি আমার বৌ দরজা খুলে বেড়িয়ে এসে বলে,
!
সত্যি তোমার কোনো যোগ্যতা নেই আমার স্বামী হওয়ার,
আমার ভালোবাসার পাওয়ার,
তুমি একটা খুবী বাজে লোক,
!
আমি যে গুলো পছন্দ করিনা সেগুলো সবি আছে আপনার মধ্যে,
তাই তো এখন ড্রিংক করে এসে মাতালের মতো বিহেভিয়ার করছেন,
!
বৌ আমি মাতাল নই,
আমি তোমাকে ভালোবাসি,
!
কচু বাসো তাই তো এভাবে ছাইপাঁশ গিলে এসেছ ভাইয়া,
তার ওপরে সিগারেট ও খাচ্ছ তুমি,
!
আআমি কিছু খাবো না সোনা প্রমিছ,
শুধু তুমি আমাকে বলো তুমি আমাকে অঅঅনেক ভালোবাস বে?
আমাকে ফেলে কারো কাছে যাবে না,
!
তুমি কি কানা দেখ না আমি রেডি হয়ে দাড়িয়ে আছি?
পলিয়ে যাবো বলে,
!
এই মেয়ে এই মেরেই ফেলবো যদি আমাকে ছেড়ে চলে যেতে চাও,
!
যাচ্ছি তো আমি চোখে দেখনা তুমি?
!
আর তখনি আমি আমার পিচ্চি বৌ কে জড়িয়ে ধরতে যাই,
আর ও আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে দরজা লাগিয়ে রুমে চলে যায়,
!
আর আমি ও দরজা ধাক্কাতে ধাক্কাতে কান্না করতে থাকি,
কিন্তু শয়তানী টা দরজা খুলছে না দেখে মেজাজ টা বিগড়ে যায় আমার,
!
তাই আমি রাগে ফায়ার হয়ে আবারো বাসার বাহিরে এসে পাইপ বেয়ে দোতালায় আমাদের রুমে চলে যাই,
!
আর সেখানে যেতেই দেখি,
আমার পিচ্চিটা সোফায় শুয়ে শুয়ে আমার জন্যে কাঁদছে,
!
সত্যি আমি খুব খারাপ কারন আমার পিচ্চ টা আমার জন্যে কষ্ট পাচ্ছে,
!
তাই আমি তখনি দৌড়ে গিয়ে ওকে কোলে তুলে নিয়ে বিছানায় শুইয়ে দিয়ে পাগলের মতো চুমু খেতে থাকি,
!
আর ও তখনি আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে বলে,
!
অসভ্য তুমি আমার কাছে আসছ কেন ভাইয়া?
তুমি খুব খারাপ,
তোমার থেকে ওই বাজে বাজে ছাইপাঁশের গন্ধ আসে,
সেটা কি তুমি জানো?
!
তার তখনি আমি ফ্রেশ হতে বাথরুমে চলে যাই,
ফ্রেশ হয়ে এসে তেঁতুলেরটক খাই আর সাথে সাথে মদের নেশা টুকু কেটে যায়,
!
নেশা কেটে যোতেই আমি আমার পিচ্চি বৌ এর পা দুটো জড়িয়ে ধরে বলি,
আমাকে তুমি ক্ষমা করে দাও সোনা,
তোমার কষ্ট হয় এমন কোনো কাজ আমি আর কখনওই করবোনা প্রমিছ সোনা,
!
অসভ্য তুমি প্রমিছ করোই ভাঙার জন্যে,
তুমি খুবি খারাপ ভাইয়া,
!
আচ্ছা আমি খারাপ তুমি আমাকে প্রমিছ আমাকে তোমার কাছে কাছে রাখবো,
!
আমার বয়েই গেছে তোমার মতো পচা ভাইয়া কে আমার কাছে রাখতে,
!
কেন আমাকে তোমার কাছে রাখবেনা কেন?
!
কারন ফুফি আম্মু না মানে আম্মু আমাকে বলেছেন যে ছেলেরা বৌ ফেলে অন্য মেয়েদের সাথে মিশে তারা অনেক খারাপ হয়,
তাই তুমি ও অনেক খারাপ ভাইয়া,
আই হেট ইউ,
!
বাট আই লাভ ইউ,
!
তুমি আমাকে আবারো পচা কথা বলেছ?
!
না মানে আমি তোমাকে ভালোবাসি বলেছি,
!
ওওও তাই?
মিথ্যুক জানি কোথাকার,
!
তখন আমি ওর পা দুটো আবারো আমার বুকে জড়িয়ে ওর পায়ে চুমু খেয়ে বলি,
!
তুমি আমাকে মারবে, কাটবে, শাস্তি দিবে তোমার কাছে রেখে দাও,
এভাবে আমাকে দূরে ঠেলে দিয়ো না সোনা,
!
আর তখনি ও আমার গালে আলতো করে চুমু একে দিয়ে বলে তাই নাকি গো?.
!
হুমমমম তাহলে যাও গিয়ে আমার ফেভারিট গানে ড্যান্স করে দেখাও
!
কি বৌ রে বাবা নিজের বর কে দিয়ে ড্যান্স করায়,
!
আর তখনি আমার পিচ্চি টা আমাকে বলে,
!
ভাইয়া যাও না গিয়ে লুঙ্গী ড্যান্স করোনা গো,
!
আয় ওয়ান্ট টু সি ইউওর লুঙ্গি ড্যান্স
!
ইয়ে মানে লুঙ্গী ড্যান্স আবার করে কেমনে????
!
মাইর খাবার, খেলে ড্যান্স এমনি তেই বের হইয়া যাবে???

চলবে……….

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here