ছোটঘরের ভালোবাসা সিজন ২ পর্বঃ ০১

0
438

ছোটঘরের ভালোবাসা সিজন ২ পর্বঃ ০১

– আবির খান

আবির অনেকটা পথ হেটে এসে কাদতে কাদতে রাস্তা আইল্যান্ডে বসে পরে। তার সব শেষ। এখন চারকূলে আর কেউ নেই আবিরের। সে এখন বড়ই একা।

আবিরের সামনে এখন কোনো পথ খুলা নেই। কি করবে??কোথায় যাবে??কেউই তো এখন আর তার নেই। মরে যাবে??নিজ ইচ্ছায়??নাহ এটা হারাম। জন্ম মৃত্যু ওই মহান আল্লাহর কাছে। যখন সময় হবে তিনিই ডাক দিবেন। কিন্তু এখন বাচবো কিভাবে??সবচেয়ে বড় কথা মা বাবার শেষ ইচ্ছেটা মানে তাদের স্বপ্নটা কি আর পূরণ হবে না??

এই নিষ্ঠুর দুনিয়ায় কেউ কারো নয়। সবাই সবার সার্থ বুঝে চলে। কাউকে একটু সাহায্য করার সময়টুকু আমাদের নেই। হ্যা আমরাই মানুষ।

আবির আল্লাহর কাছে সাহায্য চাচ্ছে।
আবিরঃ
আল্লাহ কি পাপ করেছিলাম যার জন্য আজ এতো বড় শাস্তি পেলাম??বাবাকে নিয়ে গেলে কষ্ট পেয়েছি তবে মায়ের মুখের দিকে তাকিয়ে সব ভুলে গিয়েছি। কিন্তু আজ মাওতো নেই। নেই কোন আপনজন। যেও ছিলো তারা আজ পর। কোনদিন খারাপ পথে যাইনি। সৎ পথেই চলেছি। আর এই তার প্রতিদান?? জানি এটাই আমার বাস্তবতা। আর এই নির্মম বাস্তবতাকেই আমার মেনে নিতে হবে। কিন্তু এখন কি হবে আমার?? কোথায় যাবো আল্লাহ। আমাকে সাহায্য করো। তুমি ছাড়াযে এই নিষ্ঠুর দুনিয়াতে আমার আর কেউ নেই।(অঝোরে কান্নায়)

আবিরের ডাক কি সেদিন আল্লাহ তায়ালা শুনেছিলেন?? পৌছেছিলো কি তার প্রার্থনা?? হ্যা শুনেছিলেন। আল্লাহ কবুল করেছিলেন আবিরের দোয়াকে। চলুন দেখে আসি আবিরের বাকি জীবনের গল্প। সাথে থাকবেন।

আবির প্রার্থনা করছে আর অঝোরে কাদছে। হঠাৎই আবিরের সামনে একটা ব্লাক কালারের দামি গাড়ি এসে থামে। আবির মাথা নিচু করে এখনো কাদছে। একটুপরেই কারো হাতের স্পর্শ পায় তার কাধে। আবির আস্তে করে মাথা তুলে তাকায়। আবির দেখে সেদিনের সেই আঙ্কেলটা। যাকে সে বাচিঁয়ে ছিলো।

আঙ্কেলঃ কি হয়েছে বাবা তোমার??তুমি এখানে এভাবে কেন??

আবিরঃ…. শুধু কাদছে।

আঙ্কেলঃ বলো বাবা।

আবিরঃ…..কাদছে।

আঙ্কেলঃ বাবা তুমি আমার সেদিন অনেক বড় উপকার করেছিলে। সেদিন হয়তো আমি মরেও যেতে পারতাম। কিন্তু তুমি ফেরেস্তার মতো সেদিন আমাকে বাচিয়েছো। আজ তুমি বিপদে আছো। কোনো সমস্যার মধ্যে আছো। তা আমি তোমায় দেখে স্পষ্ট বুঝতে পারছি। বাবা তুমি আমাকে কোনো সংকোচ ছাড়াই বলো তোমার কি হয়েছে। তোমাকে একটু সাহায্য করতে পারলে আমার নিজেরও ভালো লাগবে। বলো বাবা।

আঙ্কেলের এরকম মিনতিতে আবির শেষ পর্যন্ত তার সাথে ঘটে যাওয়া সব কিছু খুলে বলে। আবিরের সবটা শুনে আঙ্কেলেরও নয়ন ভরে আসে।

আঙ্কেলঃ বাবা উঠো তুমি।

আঙ্কেল আবিরকে বসা থেকে টেনে তুলে দাড় করায়।
আবির বুঝতে পারছে না কি করতে চাচ্ছে আঙ্কেল।

আঙ্কেলঃ বাবা আজ থেকে তুমি আমাদের সাথেই থাকবে। আমার শুধু একটা মেয়ে আছে। আর কেউ নেই। আজ থেকে তুমিও আমার পরিবারের একজন। তুমি হয়তো ভাবতে পারো আমি কেনো তোমাকে এতো বিশ্বাস করছি। কারণ তুমি আমার বিশ্বাস অনেক আগেই জয় করে ফেলেছো।

আবিরঃ না আঙ্কেল তাও আমি এভাবে যেতে পারিনা। আমি কারো বোঝা হয়ে থাকতে চাই না।

আঙ্কেলঃ ছি ছি বাবা এ কি বলছো তুমি। কিসের বোঝা। তুমার যে ঋণ আমি আমার এই সামান্য সাহায্য দিয়েও শোধ করতে পারবো না। বাবা প্লিজ তুমি না করো না।

আবিরঃ না আঙ্কেল এ হয়না। আমিতো আপনাকে মিথ্যাও বলতে পারি। এসব আমার নাটকওতো হতে পারে। আমাকে এতোটা বিশ্বাস করবেন নাহ।

আঙ্কেলঃ বাবা এই চোখ দিয়ে হাজার হাজার মানুষ দেখেছি। কে ভালো আর কে খারাপ তা আমি তাদের চোখ দেখলেই বুঝি। তোমার চোখে যে সব হারানোর কষ্ট ফুটে উঠেছে তা আমি অনেক আগেই বুঝে গিয়েছি। তোমাকে তোমার মায়ের কসম বাবা তুমি আমার সাথে চলো।

আবির আর না করতে পারে না। আবির ভাবে হয়তো মহান আল্লাহ তায়ালাই তাকে পাঠিয়েছেন। আবির আর কিছু ভাবে না আঙ্কেলের সাথে যেতে রাজি হয়ে যায়।

গাড়িতে,
আঙ্কেলঃ ধন্যবাদ বাবা। আমার মেয়েটাও তোমার মতো। অনেক জিদ্দি। কিন্তু তোমার মতোই মনটা অনেক ভালো। আজ থেকে ও তোমার মতো একজন ভালো বন্ধু পাবে। সারাদিনই একা থাকে। তোমার দায়িত্ব ওর সাথে থাকা। আর এর বিনিময়ে তুমি আমাদের সাথে থাকবে। কি এখনতো আর বোঝা মনে হবে না??

আবিরঃ আঙ্কেল আপনি আমাকে লজ্জা দিচ্ছেন। আপনার মতো ভালো মানুষ আর ভালো বাবা আর একজনও নেই।

আঙ্কেলঃ তোমার মুখে বাবা ডাকটা শুনতেই ভালো লাগে। তুমি আমাকে আঙ্কেল না বাবাই বলো।

আবিরঃ এতোটা আপন করে নিচ্ছেন??

আঙ্কেলঃ তুমি আমার জন্য যা করেছো তার সামনে এসব কিছুই না। ওইদিন তুমি আমাকে না বাচালে আমার মা মরা মেয়েটা এতিম হয়ে যেতো। আজ তোমার জন্যই আমি আছি। আসলে এসব তোমার ভালো কাজের ফল। জানো ভালো কাজ করলে এভাবেই ফেরত আসে।

আবির শুধু মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছে। একটুপরই আবির আঙ্কেলদের বাসায় পৌছে যায়।

আঙ্কেলঃ আসো বাবা। আমরা এসে পরেছি।

ব্লাক সুটে একজন লোক এসে গাড়ির দরজা খুলে দেয়। আবির গাড়ি থেকে নেমে দেখে বিশাল আলিসান এক বাড়ি। আঙ্কেলরা আসলেই অনেক ধনী।

আঙ্কেলঃ বাবা লজ্জা পাবে না। নিজের মতো করে থাকবে। আজ থেকে এটা তোমারও বাড়ি।

আবিরঃ না আঙ্কেল শুধু থাকতে দিলেই চলবে।

আঙ্কেলঃ বাবা তুমি কিন্তু আমাকে কষ্ট দিচ্ছ এভাবে বলে।

আবিরঃ আচ্ছা সরি আর এভাবে বলবো না। সত্যিই আপনার মতো ভালো মানুষ যে এখনো এই দুনিয়াতে আছে তা আমার জানা ছিলো না।

আঙ্কেলঃ ধুর বোকা ছেলে তুমি একটু বেশিই বলছো। বরং তোমার মতো ভালো ছেলে এখন আর পাওয়া যায়না।

আবির আর আঙ্কেল কথা বলতে বলতে তাদের বাড়ির দরজার সামনে এসে পরে। আবিরের কেমন জানি লাগছে। লজ্জা করছে। এভাবে কারো বাড়িতে থাকা কি ঠিক!!!

আঙ্কেলঃ বাবা প্লিজ তুমি একটুও সংকোচ করো না। আমি তোমার কাছে অনেক ঋণি। তার বিনিময়ে এ কিছুই না। তুমি আসো ভিতরে।

আবির আর কি করবে ভিতরে চলে যায়। বাড়ির বাইরের মতো ভিতরটাও বেশ সুন্দর। দামি দামি আসবাবপত্রে ভরা।

আঙ্কেলঃ দাড়াও বাবা আমার মেয়েকে ডাক দি। মা…ওই দেখো ডাক দেওয়ার আগেই নেমে এসেছে।

আবির যেইনা মাথা ঘুরিয়ে তাকায়, আবির যেন আকাশ দিয়ে পরে। এ কিভাবে সম্ভব?? এটা ওর বাসা??আল্লাহ কেনো তুমি আমার সাথে এমন করলা??কেন ওর কাছে আমায় আনলে??

– তুমি????

চলবে…. ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here