ছাত্রী Love Twist পর্ব ৩

1
1381

ছাত্রী Love Twist পর্ব ৩
লেখকঃ সানভি আহমেদ সাকিব।

.
তারপরর রওনা দিলাম।
অল্প একটু যায়গা দুজন খুব চাপাচাপি করে বসতে হয়েছে।
এদিকে আমারর পরিক্ষা আছে ক্লাস টেস্ট।
দেরি হলে ঝামেলা হবে।
– নিলিমা আমাকে একটু শক্ত করে ধরতো।(আমি)
– কেনো?(নিলিমা)
– ধরতে বলছি ধরো।(আমি)
নিলিমা জড়িয়ে ধরতেই সেই একটা টান দিলাম।
স্কুটি চলছে বাইকের গতিতে।
আমার ভার্সিটি সামনে।
তাই একটু স্পিড টা কমিয়ে ভার্সিটির সামনে এসে একটা ধন্যবাদ দিয়ে চলে আসলাম।
,
ক্লাসে গিয়ে দেখি ৫ মিনিট আগেই চলে আসছি।
আল্লাহ বাইচা গেছি যদি নিলিমাকে না পেতাম তাহলে হয়তো পরিক্ষাটা মিস হয়ে যেতো।
যতিও মেয়েটা ভালো তবে কেমন যানি আমার সাথে বুঝেনই তো।
যাই হোক পরিক্ষা দিয়ে বাইরে এসে দেখি গাড়ি নাই।
তাই হাটতে হাটতেই যাচ্ছি এখন আর কোনো তাড়া নাই।
বাসায় যেতে পারলেই হলো।
দুইটা সি এনজি চলে গেলো। যাবেনা ওদিকে তারা।
কেমন লাগে তাহলে বলুনতো।
৩০ মিনিট হাটা লাগবো পা টা পুরাই যাবে আজকে।
আনমনে হাটতাছি রাস্তার পাশ দিয়ে হঠাৎ করেন নিলিমা স্কুটি নিয়ে সামনে দাড়ালো।
.

– গাড়ি পাচ্ছেন না??(নিলিমা)
– হুমম।(আমি)
– চাইলে উঠতে পারেন।তবে এবার আমি চালাবো।(নিলিমা)
– নাহ তুমি যাও আমি হেটেই যেতে পারবো।(আমি)
– সিউর???(নিলিমা)
– হুমমম সিওর যাও।(আমি)
– আচ্ছা।(নিলিমা)
ও চলে গেলো।
আমিও হাটতে লাগলাম। আপনাদের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে কেনো গেলাম না।
কাহিনি হলো সে আমার স্টুডেন্ট এখন যদিও সেটা কেও যানে না আর আমরা প্রায় সমবয়সী তারপরও আরেকটু ঝামেলা আছে।
.
ও মেয়ে আর আমি ছেলে।
যে রকম চাপাচাপি করে বসতে হয় তাতে আমি পেছনে বসলে কাহিনি অন্যদিকে চলে যাবে।
এইজন্য গেলাম না।এর চাইতে ভালো একটু কষ্ট করেরে হেটে হেটেই যাই।আর যাই হোক মান সম্মান তো বাচবে।
.
কিছুদুর হাটার পর একটা রিক্সা পেয়ে গেলাম যদিও ভাড়াটা একটু বেশি তবুও চলে আসলাম। যাক অবশেষে পাইলাম।
বাসায় এসে ফ্রেস হয়ে একটু ঘুমালাম।।

সন্ধায় পড়াতে গেলাম।
দরজা খোলাই ছিলো হয়তো আমার জন্যই খোলা।
ভিতরে গিয়ে বসলাম।
নিলিমা চা দিয়ে গেলো।
আমি চা টা রাখলাম টেবিলের ওপর।
কিছুক্ষন পর নিলিমা আসলো।
আজকে আমি পা চেয়ারের নিচে দিয়ে রাখছি যাতে কিছু না করতে পারে।
,
আল্লাহই ভালো যানে আজ আবার কি করবে।
আর সে তো সেই ইংলিশ বলে।পুরাই মাথা নষ্ট।
যাই হোক,
মেয়েটা বই খুললো।
আমি বললাম,
– নিলিমা কোনো দুষ্টামি না মন দিয়ে পড় আর তোমার কোন সাব্জেক্টে যানি সমস্যা?(আমি)
– স্যার কোনো সাব্জেক্ট এই সমস্যা নাই আপনি শুধু সাজেশন দিবেন আর একটু আধটু বুঝিয়ে দিবেন তাহলেই হবে।(নিলিমা)
– কালকে তো বললা ইংরেজিতে সম্যস্যা।(আমি)
– স্যার মজা করছি কালকে ইংরেজিতে কোনো সমস্যা নাই।(নিলিমা)
– আচ্ছা গণিত বই বের করো কোনটা বুঝোনা আমাকে দাও বুঝিয়ে দিচ্ছি।(আমি)
,
মেয়েটা বই বের করে দেখালো।।আমি বুঝাতে লাগলাম তবে তার মাথা নিচু হয়ে যাওয়ায় চুলগুলো সব সামনে চলে আসছে।
কেমন একটা অস্বস্তি লাগছে ভিতরে।
প্রেমে পড়ে গেলাম নাকি। ধুররর ছাত্রীর প্রেমে পড়ি কিভাবে মান সম্মান আর থাকবেনা।
বাড়িতে অবশ্য যানেনা যে আমি প্রাইভেট পড়াই জানলে আমার খবর করে দিবে।
.
মেয়েটার মায়াবি মুখটার দিকে তাকাতেই নেশাগ্রুস্থের মতো লাগতাছে।
চুল থেকে কেমন একটা পারফিউম এর গন্ধ আসছে মাতাল মাতাল অবস্থা আমারর।
আমি চায়ের কাপটা হাতে নিয়ে একটু চা খেলাম।
.
সেদিনের মতো চলে আসলাম।
এভাবে কিছুদিন যাওয়ার পরর ছাত্রী একদিন বললো,
– স্যার আমার আপনাকে ভালো লাগে।(নিলিমা)
– হ্যা আমারো তো তোমাকে অনেক ভালো লাগে।(আমি)
– স্যার ওভাবে না আসলে আমি আপনার প্রেমে পড়ে গেছি।(নিলিমা)
.
বলেই মাথা নিচু করে ফেললো।
আমার মনে ঝড় শুরু হয়ে গেছে কি বলে এসব।
.
– পাগল হইছো তুমি??তুমি যানো এটা সম্ভব না তারপরও কেনো এসব ভাবো আর আমি তোমার স্যার ভুলে যেওনা।(আমি)
– আমি এসব কিছু যানিনা আমি আপনাকে ভালোবাসি মানে ভালোবাসি।(নিলিমা)
.
আমি কিছু না বলে চলে আসলাম।
মাথা কাজ করতাছে না কি করবো আমি এখন।।
৮ দিন ও হয়নাই পড়াইতে শুরু করছি এর মধ্যেই এসব।
ভাবতাছি এই মাসটা শেষ হলেই পড়ানো ছেড়ে দিবো।
.
আমি কেবল মাত্র পা রাখলাম ভার্সিটি লাইফে আর এর মধ্যেই যদি ছাত্রীর প্রেমে পড়ে যাই কেমন হয় বলেন তো।।
হ্যা মেয়েটাকে দেখে আমি প্রথমবার ক্রাশ খাইছি তবে তাই বলে প্রেম??
যদি তাকে প্রাইভেট না পড়াতাম তবে তার পিছনে ঘুরতাম সিওর কিন্তু আমি তারর স্যার বলে আজ তার প্রেম ভালোবাসাকে ফিরিয়ে দিতে হচ্ছে।
এটাই সমস্যা যানেন লোকলজ্জা।
এখন যদি আমি তার সাথে প্রেম করি তারপর তাকে বাসায় গিয়ে প্রাইভেট পড়াই লোকে কি বলবে??
,
যাই হোক এতো ভেবে কাজ নেই
একটা মাস ই তো তারপর তো পড়ানো ছেড়ে দিবো।
ব্যাস হয়ে যাবে সে তার রাস্তায় আর আমি আমার রাস্তায়।
চলবে??

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here