চশমাওয়ালা_ছেলেটি _পর্ব_৫

চশমাওয়ালা_ছেলেটি

_পর্ব_৫
Written by Avantika Anha
নাহিদ অনুতপ্ত ভাবতে থাকে নিজেকে । তাই সে শাম্মি আর জাহিদকে নিয়ে আমার ফুপির বাড়ি আসতেছে আমাকে নিয়ে যেতে ।
.
.
এদিকে আমি মন খারাপ করে ফুপির বাড়িতে বসে ছিলাম ।
.
ফুপি : আনহা যায়ে দেখ তো গেটে কে ?
আমি : ওকে ।
.
গেট খুলে দেখি শাম্মি , জাহিদ আর নাহিদ শাম্মি কে দেখেই জড়িয়ে ধরে কাঁদতে লাগলাম ।
আমি : ইনি কেনো এসেছে ? ( নাহিদের কথা জিজ্ঞেস করছিলাম )
শাম্মি : ও জানতে পারছে জান্নাতের সত্য টা ।
আমি : তো আমি কি করবো যেই মানুষ না জেনেই রিয়েক্ট করে আমি তার সাথে কোনো কথা বলবো না ।
নাহিদ : আই এম সরি আনহা । সত্যি না জেনে তোমাকে থাপ্পর মেরে দিছি ।
.
.
আমি কোনো কথা না বলে ভিতরে চলে আসলাম ।
ফুপি : কে আসছে ?
আমি : শাম্মি , একটা ফ্রেন্ড আর একটা টিকটিকি ( নাহিদ কে টিকটিকি বললাম )
নাহিদ ভাবছে “ভুল আমার ছিল । আমি রাগ ভাঙ্গিয়েই ছাড়বো”
আমি ভাবছি “কোনোদিন মাফ করবো না”
ফুপি : তোমরা যখন এসেছো কিছুদিন থাকো । ঘুরে বেড়াও ।
শাম্মি : জ্বী জ্বী ফুপি ।
.
রাতে খেতে বসলাম…..
শাম্মি আমার পাশে কিন্তু আমার সোজা নাহিদ বসলো ।
আমি তাকায় দেখি শাম্মি আর জাহিদ একে অপরের দিকে তাকায় আছে । আই মিন আখিওসে গোলি মারে টাইপ ।
.
চোখ ফেরাতে দেখি নাহিদ আমার দিকে তাকায় কান ধরে মাফ চাচ্ছে ।‌
আমি অন্য দিকে মুখ ঘুরিয়ে নিছি ।
.
.
নাহিদের পা কিছুটা আমার দিকে এগিয়ে ছিলো । চরম রাগে নাহিদের পায়ে লাথি দিলাম ।
নাহিদ : উহ্
ফুপি : কি হলো ।
নাহিদ : না কিছু না
আমি : আবার মুখ বাঁকা করে নিলাম ।

.
.
রাতে আমি আর শাম্মি এক রুমে ছিলাম ।
শাম্মি : মাফ করে দে নাহিদ কে ।
আমি : না না না কোনোদিন না ।
শাম্মি : উফ
আমি : আমি কিন্তু তোর সাথেও কথা বলবো না যদি আরেকবার জোড় করিস ।
শাম্মি : আচ্ছা ঘুমা কাল ঘুরতে যাবো ।
আমি : ওকে
.
.
সকালে উঠে…..
আমি আর সাফানা খেলতেছিলাম ( ফুপির মেয়ে ৩ বছর বয়স )
আমি : ওই বুড়ি কিটক্যাট খাবি ?
সাফা : হুম পিউ আপু খাবো দেও ( আমাকে পিউ আপু বলে )
আমি : দিবো না
সাফা : দাও
আমি : আমি তো দিবো না
.
আমার আর সাফার মারামারি শুরু ।
.
এমন সময় কে যেন বললো : তোমাকে আমি কিটক্যাট দিবো সাফা ।
.
আমি তাকিয়ে দেখি নাহিদ ।
সাফা : সত্যি ভাইয়া
নাহিদ : হুম এদিক এসো ।
আমি : ওই যাবি না ওইটা একটা টিকটিকি
সাফা : হিহি টিকটিকি ভাইয়া
নাহিদ : সাফা আসো এদিক তোমাকে খেলনাও দিবো ।
আমি : সাফা খারাপ হয়ে যাবে কিন্তু এদিক আয় ।
সাফা : যে কিটক্যাট দিবে তার কাছে যাবো ।
আমি : এই দেখ আমার হাতেই আছে
.
নাহিদের কাছে ছিলো না ।
তাই সাফা আমার কাছেই এলো ।
আর আমি নাহিদের দিকে তাকায় যুদ্ধ বিজয়ের মতো হাসি দিলাম ।
.
নাহিদ : যাই হোক ইনার মায়াবী হাসি হারায় নি ।
আমি : সাফা চল ।
.
.
আমি আর‌ সাফা চলে গেলাম ।
কিছু সময় পর আমরা ঘুরতে বের হলাম
.
আমি : শাম্মি বেবি আইসক্রিম খাবি
শাম্মি : হ
আমি : দ্বারা
.
চারটা নিয়ে আসলাম ।
শাম্মি : নাহিদের জন্য আনছিস ?

আমি : যাই হোক নজর লাগে যদি তাই আনছি ।
নাহিদ : মিথ্যেও বলতে পারে না । ( মনে মনে )
আমি : হুহ
.
আমরা ঘুরছিলাম । এমন সময় কে জানি আমার চোখ ঢেকে ধরলো ।
আমি : ওই কে রে
জবাব দিলো : গেস কর তো কে ?
আমি : আবির ?
আবির : হুম কেমনে বুঝলি ( হাত ছড়িয়ে )
আমি : ছোট বেলার ফ্রেন্ড সহজে ভুলা যায় নাকি ?
আবির : ওমা আপনি তো দেখছি ভালোই বড় হইছেন
আমি : হবো না পিচ্চি থাকবো নাকি
আবির : হাহা আয় আমার ফ্রেন্ড দের সাথে পরিচয় করাই । সবাই ওদিক আড্ডা দিচ্ছে । আর এই তিনজন কারা ?
আমি : এটা শাম্মি , এটা জাহিদ , এটা জাহিদের ভাই
আবির : ওয়াও যমজ সেই তো ।
.
আমি : হুম
.
ওদিক গেলাম ।
আবির আমাকে সবার সাথে পরিচয় করালো ।
.
.
আবির : এটা আনহা আমার ছোট বেলার ফ্রেন্ড যদিও আমার চেয়ে ৩ বছর ছোট । জানিস আনহা সেই গান পারে ?
সবাই : তাহলে শুনাতে বল তো
আবির : হুম অবশ্যই শুনাবে
আমি : না না এখন না
আবির : শোনাতেই হবে
.
সবার রিকোয়েস্টে গাওয়া স্টার্ট করলাম ।
.
“পৃথিবীর যতো সুখ যতো ভালোবাসা
সবই যে তোমায় দিবো
একটাই আশা ।
তুমি ভুলে যেও না আমাকে
আমি ভালোবাসি তোমাকে ।
.
দুয়ারে দাড়িয়ে বিরহ বাড়িয়ে
সুখেতে জড়াবো আমি ।
সেই সুখেরই ভেলায় ভেসে স্বপ্ন সাজায়
এক পলকে পৌঁছে যাবো
রূপকথারই দেশে ।
তুমি ভুলে যেও না আমাকে
আমি ভালোবাসি তোমাকে । ”
.
সবাই তালি দিল ।
আবির : সেই দোস্ত
আমি : থেংকু
.
.
নাহিদ শকড্ এটা তো‌ এলোকেশির গলা ।
তাহলে কি আনহাই । হায় আল্লাহ আমি এতো বড় ভুল করলাম ।
.
.
শাম্মি : কি হলো ভাইয়া ?
নাহিদ : শাম্মি আমার একটা কথা বলো তো ?
শাম্মি : কি
নাহিদ : জান্নাত কি গান পারতো ?
শাম্মি : না জান্নাত গান পারতো না যতদূর জানি ।‌
নাহিদ : আনহার বাসার আশে পাশে কি আর কেউ গান পারে ?
শাম্মি : না ওই পারায় গান শুধু আনহা পারে । কারণ আনহাই শুধু গানকে ভালোবাসে ।
নাহিদ : ও মাই গড এতো বড় মিস্টেক
শাম্মি : মানে ?
নাহিদ সব বললো….
শাম্মি : ভাইয়া অনেক বড় ভুল করে ফেলছেন । আনহা অনেক জেদি । ও সহজে রাগ করে না কিন্তু একবার বেশি করলে আর ভাঙ্গে না ।
নাহিদ : না আমি ওর রাগ ভেঙ্গেই ছাড়বো ।
.
সব শেষে বাড়ি ফিরলাম ।
.
নাহিদ ভাবছে “কেনো জানি এখন আনহার সব ব্যবহার বেশ ভালো লাগছে । হয়তো আমার খোঁজা এলোকেশি টি আনহা এটা জানার কারণেই এমন হচ্ছে”
.
রাতে টিভি দেখছিলাম….
নাহিদ : আনহা আমাকে প্লিজ মাফ করে দাও ।
আমি : মাফ করা এতোই সোজা
নাহিদ : প্লিজ
আমি : না
.
বলেই চলে আসতেছিলাম ।
.
মেঝেতে পানি পড়ে ছিল দেখি নি আর পড়ে গেলাম ।
আমি : আম্মু গো ।
.
.
নাহিদ দেখলো আনহা পড়ে গেছে ।
নাহিদ : হাহা আমাকে মাফ করো নি তাই শাস্তি দিলো আল্লাহ
আমি : হুর
.
উঠতে গেলাম কিন্তু পায়ে ব্যাথা উঠলো ।
আমি : আম্মু
নাহিদ : দ্বারাও‌ আমি দেখি
.
বলেই কোলে তুলে নিল ।
আমি : নামাও আমাকে‌ ।‌
নাহিদ : ওকে
বলেই নামিয়ে দিলো ।
আমি চলতে পারছিলাম না । তাই শাম্মি কে ডাকলাম ।
.
.
শাম্মি : কি রে নিচে পড়ে আছিস কেনো‌?
আমি : পা মচকে গেছে ঘরে নিয়ে‌ চল ।
.
শাম্মির হাত ধরে ঘরে গেলাম ।
.
.
.
রুমে নাহিদ এলো কিছু সময় পর ।
নাহিদ : শাম্মি ওকে এই স্প্রে টা লাগায় দাও
আমি : না আমি কোনো স্প্রে লাগাবো না
শাম্মি : ওই লাগা নইলে মারবো
আমি : হুরররর
.
পরেরদিন ভালো হয়ে গেলাম ব্যাথা ভাগছে ।
.
আমি ফুপি কে নাস্তা বানাতে হেল্প করছিলাম ।
এমন সময় নাহিদ আসলো ।
.
নাহিদ : ফুপি একটু পানি দেন তো ।
ফুপি : আনহা পানি দে তো ওকে ।
আমি : হুর কিছু বললাম না কিন্তু লুকিয়ে পানির মধ্যে লবণ দিয়ে দিলাম‌।
.
নাহিদ পানি খেতেই : লবণ লবণ করে কেন নিশ্চই আনহা করছে এরকম ( মনে‌ মনে )
.
নাহিদ আনহার দিকে তাকালো ।
দেখে আমি মুচকি মুচকি হাসতেছি ।
.
নাহিদ কিছু না বলেই চলে গেলো ।
.
কিছু সময় পর….
আমি আর সাফা আবার খেলতেছিলাম এমন সময় আবার আমার হাত লেগে কি জানি ভাঙ্গে গেল ।
আমি : হায় রে কি যে ভাঙ্গে ফেললাম
.
তাকায় দেখি আমি আবার নাহিদের চশমা ভাঙ্গে ফেলছি ।
.
নাহিদ : হাহা আমার চশমাগুলোর সাথে মনে হয় তোমার শত্রুতা আছে বারবার তোমার হাতেই ভাঙ্গে ।
আমি : হুহ ভালো সরি
নাহিদ : হাহা বাদ দাও
সাফা নাও কিটক্যাট
সাফা : থেংকু
নাহিদ : এটা তোমার আপু কেও দেয় ( নাহিদ ভাবছে জানি এটা মানা করতে পারবা না । শাম্মি বলছে কিটক্যাট তোমার অনেক প্রিয় )
আমি : ( আমি ভাবছি হুর আমি এইটা না করি কেমনে । যাই হোক কিটক্যাট কে না বলুম না )
.
আমি কিটক্যাট নিয়ে দৌড় ।
.
নাহিদ হাসছে আর বলছে : মিস এলোকেশি তুমি তো আমারই
.
চলবে……

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here