অদ্ভুত ভালোবাসা season 2 পর্ব:১১

0
615

অদ্ভুত ভালোবাসা season 2 পর্ব:১১
writer :অন্না

,
,মুনিরা:::: কাজ টা কমপ্লিট করতে পারলাম না,,, নিলয় মেয়েটাকে আমার কাছেই ঘেসতে দিলো না,,,
,
আকাশ::: ডেন্ট ওয়্যারি,, আস্তে আস্তে কাজ কর,, তাহলে অবশ্যই সফল হবি , কথায় আছে না সবুর এ মেওয়া ফলে,,,,,,,
.
মুনিরা :::: এতো বেশি সময় আমি নিতে পারবো না,,,,,
,
আকাশ:::: তোমাকে আমি বেল দিয়ে ছারিয়েছি আমার প্ল্যান ভেস্তে যাবার জন্য নয়,,, । আমার নীরাকে চাই,,,, অনেক চেষ্টা করেছি ওকে নিজের করে নেবার কিন্তু পারিনি,,,, আমি এমন কিছু করবো যাতে ও নিজে আমার কাছে হেটে আসে,,,,,

,
মুনিরা:::: ওই মেয়েকে নিয়ে আমার কোনো মাথা ব্যাথা নাই,,, জাহান্নামে যাক ও,,,
,
আকাশ ঠাস করে মুনিরার গালে থাপ্পর মেরে দেয়,,,
,
আকাশ::::: তোমার সাহস হয় কি ভাবে নীরার সম্পর্কে এ রকম কথা বলার,,,, আমার কাজ টা করো ভালোভাবে,, নয়তো ছুরে ফেলে দিয়ে আসবো জেল এ,,, ,,
,
মুনিরা কিছু বললোনা,, হনহনকরে ভেতরে চলে গেলো,,,,,,
,
,
নিলয়:::: নীর পাখি,,,,
,
নীরা;::: হুম বলেন,,,,
,
নিলয়::::i love you
,
নীরা;::: হুম,,,
,
নিলয়:::: হুম মানে কি???? আমি এত্ত সুন্দর করে এক খানা কথা বললাম আর তুমি জাস্ট হুম বলে কাটিয়ে দিলে,,,,, তোমার সাথে কথা নাই যাও,,,,,,
,
নীরা :::: আরে,,,,,, কাজ করছি দেখছো না,,,, নিলু,,,,, আরে কই যাচ্ছো????
,
নিলয়:::’ ও ঘরে,,,
,
নীরা:::: কেনো??//
,
নিলয়:::: ঘুমাতে,,,,
,
নীরা:::: ওহ্ আচ্ছা,,,,,
,
নিলয়:::: আচ্ছা মানে,,, আমি রাগ করে যাচ্ছি তুমি আমাকে আটকাবে না????
,
নীরা;:” এই যে স্যার অনেক রাত হয়েছে এখন নাটক করেন না ঠিক আছে,,,, কাল আমার কলেজ আছে ঘুমাতে হবে,,,,,
,
নিলয়:” ওহ্ আমার জন্য তোমার ঘুমের সমস্যা হচ্ছে তাই তো???
,
নীরা::: আমি আবার সেটা কখন বললাম.????
,
নিলয়:::: বুঝি বুঝি সব বুঝি,,,,,
,
নীরা :::: পাগলরা দু লাইন বেশি বোঝে সব সময়,,,,
,
নিলয়:::’ আমি আর থাকবোই না এ বাড়িতে চলে যাবো এক্ষনি,,,
,
নীরা:::: আচ্ছা যাও,,
,
বলেই নীরা ওয়াসরুমে চলে গেলো,,,,, নীরা
ওয়াসরুম থেকে বের হয়ে দেখে নিলয় রুমে নাই,, নীরা তারাতারি রুম থেকে বের হয়ে দেখে নিলয় ড্রয়িংরুমের সোফায় মুখ ফুলিয়ে বসে ফোন টিপিটিপি করছে ,,, নীরা একটা মুচকি হেসে এক পায়ে দু পায়ে নিলয়ের পাশে এসে দাড়ালো,,,, নিলয় এক নজর নীরার দিকে তাকিয়ে আবার ফোনের দিকে নজর দিলো,,, নীরা ধুপ করে নিলয়ের কোলের ওপর উঠে বসে,,,,,, নিলয় একটু বিরক্ত বোধ ব্যবহার করে নীরা কে নামিয়ে দিয়ে পাশের রুমে চলে যায়,,তারপর দরজা ঠাস করে বন্ধ করে দেয়,,, নীরা ঘটনার কিছুই বুঝতে পারে না,,, ঝগড়া তো প্রতিনিয়তো করে ওরা দুজন কিন্তু আজ নিলয় এতোটা রিয়েক্ট করবে নীরা বুছতে পারে নি,,নিলয়ের এ আচরনে নীরা বেশ কষ্টই পেলো,,, নীরা অনেকক্ষন নিলয়ের দরজার সামনে দাড়িয়ে থেকে ড্রয়িংরুমের সোফায় এসে বসে পরে,,, নীরা কখন যে ঘুমিয়ে পরে নিজেও জানে না,,,,,,
,
মামুনি সকালে নীরাকে ডেকে তুলে,,,
,
মামুনি::: কিরে তুই এখানে কেনো ঘুমিয়েছিস?
,
নীরা;:: না মানে সকালে এসে বসেছি,,কখন যে চোখ লেগে গেছে বুঝতে পারিনি,,,
,
মামুনি :::: পাগলি মেয়ে,,, যা রুমে গিয়ে ফ্রেস হয়ে আয়,,, নিলয়কে ডেকে তোল,,, অনেক বেলা হয়ে গেছে,,আমার উঠতে আজ দেরি হয়ে গেছে,,,,
,
নীরা:::: ঠিক আছে মামুনি সমস্যা নাই,,, তুমি বসো আজ আমি নাস্তা করি,,,,
,
মামুনি :::: থাক,,, আমি করছি,,
,
নীরা::: প্লিজ মামুনি প্লিজ,,,
,
মামুনি ‘:’ আচ্ছা,, তাহলে তুই নাস্তা কর আমার কিছু কাজ আছে সেগুলো সেরে নেই,,,
,
নীরা:::: আচ্ছা মামুনি,,,,,

,
নীরা উঠে নাস্তা তৈরি করে,, খাবার টেবিল গুছিয়ে দেয়,,, আজ নিলয় নাস্তা না করেই বেরিয়ে যায়,,,,,,
,
নীরাও নাস্তা না করেই কলেজে চলে আসে,,, আর আজ গাড়ি না নিয়ে হেটে কলেজে আসে,,,, যার কারনে কলেজে আসতে দেরি হয়ে যায়,,, কলেজ থেকে বের হবার সময় একটা ছেলে বাইক নিয়ে নীরাকে ধাক্কা দেয়,, যার ফলে ছিটকে পরে গিয়ে নীরার হাত অনেকখানি কেটে যায়,,,,,কলেজের পাশে হসপিটাল হওয়ায় সবাই ওকে হসপিটাল এ নিয়ে যায়,, সেখান থেকে নীরার হাত এ ব্যান্ডেজ করে দেয়,,, এই কারনে নীরার বাসায় যেতে দেরি হয়ে যায়,,, আর হেটে যেতে আরো দেরি হয়ে যায়,,,
নীরা ওরনা দিয়ে হাত ঢেকে বাসায় ঢোকে,, বাসায় ঢোকার সাথে সাথে মামুনি এসে নীরাকে ঝারি দিতে শুরু করে,,,
,
মামুনি :::: কোথায় ছিলি এতক্ষন? ফোনটাও নিয়ে যাসনি,,, যানিস কত্ত টেনশনে ছিলাম,,,
,
নীরা:::’ কলেজে এক্সট্রা ক্লাস ছিলো তাই,,,
,
মামুনি :” আচ্ছা আচ্ছা ঠিক আছে আয় খেয়ে নিবি,,,আমি ও না খেয়ে বসে আছি তোর জন্য,, সন্ধ্যা হতে চললো,,,
,
নীরা:::: তুমি খেয়ে নাও মামুনি,, আমার একদম খেতে ইচ্ছা করছে না,, আমি একটু পরে খাচ্ছি প্লিজ,,,
,
মামুনি:::: আচ্ছা ঠিক আছে,,,,,
,
নীরা রুমে এসে ধুপ করে বিছানায় বসে পরলো,,,, হাত বের করে দেখে আগের চেয়ে অনেক ফুলে গেছে আর ব্যাথাও বেরেছে,,,, ওষুধ ও নেয়নি ও,, আর সারাদিন নিলয় নীরার কোনো খোজই নেয় নি,,,, নীরার বেশ অভিমান হয় এতে,,,, নীরা কোনো রকম ফ্রেস হয়ে এসে হাত ঢেকে শুয়ে পরে, নীরা শুইতে গিয়ে পিঠে, কোমড়ে ব্যাথা অনুভব করে,,, ,, হাতের ব্যাথায় নীরা অস্থির হয়ে পরেছে,,,,,
,
তিশা”” ভাবি,,,,,,, কি হয়েছে তোমার???
,
নীরা::: কই???
,
তিশা:::: আমি শুনলাম তোমার নাকি েএক্সিডেন্ড হয়েছে,,,,
,
নীরা::: চুপ,,আস্তে,,,, বেশি কিছু হয় নি যাস্ট হাত একটু,,,
,
তিশা::’ এটাকে তুমি একটু বলছো??? ভাইকে বলছো? ভাই জানে???
,
নীরা:::’ নাহ্,,,,বাসায় আসুক বলবো,, এর আগে তুমি কিছু বলোনা,,,
,
তিশা::: কিন্তু ভাবি তোমার তো মেডিসিন নিতে হবে,,,
,
নীরা::: এমনি ঠিক হয়ে যাবে,,, তুমি যাও,, আমি একটু ঘুমাবো,,,, প্লিজ মামুনি কে ম্যানেজ করো,,, আমায় যেনো না ডাকে,,,
,
তিশা::: আচ্ছা,,,
,
,
,
নীরার ঘুম ভাঙলে ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখে দশটা বাজে,, আর চারিদিক তাকিয়ে নিলয়কে দেখতে পেলো না,,, নীরা ওঠার চেষ্টা করলো কিন্তুু ওর পুরা শরীর ব্যাথায় ডুবে গেছে, একদিকে সারাদিন না খেয়ে তার ওপর এই ধাক্কা, কোনো রকমে নীরা রুম থেকে বের হয়,,,
,
মামুনি :::: কি রে এতক্ষনে তোর আসার সময় হলো,, নিলয় কই??? আরে এসো গেছিস,,, তোরা খেতে বস,,,,,
,
নীরা চুপচাপ গিয়ে তিশার পাশে বসে পরলো,,,,,আর নিলয় অপর পাশে,,,
,
তিশা:::’ ভাবি তুমি খাবে কি করে???
,
মামুনি ;:: খাবে কি করে মানে,,,
,
তিশা::: ভাবির তো
,
নীরা::’ চুপ,,,
,
মামুনি ::: ও চুপ করবে কেনো? কি লুকাচ্ছিস তোরা,,,
,
নিলয় তিশার দিকে তাকিয়ে আছে,,,
,
নীরা::::: আসলে আমার গ্যাসের সমস্যা হয়েছে আমি এখন খাবো না,,, শুধু পানি,,,
,
নীরার কথা শুনে নিলয় কিছু বললো না খেতে শুরু করলো,,,,
,
নীরা উঠে চলে এলো,,,
,
তিশা:::: আসলে ভাবির সাথে আমার কিছু কথা আছে,, আমি ভাবির কাছে গিয়ে খাই,,,
,
মামুনি ‘::: যান,,,
,
তিশা খাবার প্লেট নিয়ে নীরার রুমে চলে আসলো
,
নীরা::: উঠে আসলে কেনো?
,
তিশা::’ তুমি এখানে না খেয়ে বসে থাকবে, আর আমি কি করে খাই বলো,,,,,
,
নীরা:::: থাক না,,, তুমি যাও
,
তিশা::: তুমি না খেলে আমিও খেতে পারবো না,,,
,
নীরা খাবার মুখে নিবে সেই সময় নিলয় রুমে ঢোকে,,, তিশা কিছু না বলে তারাতারি রুম থেকে বেরিয়ে গেলো,,, নীরা উঠে বের হয়ে আসলো রুম থেকে,,,, নিলয় কিছু না বলে ওয়াসরুমে চলে গেলো,,,, নিলয় এমন ব্যবহার কেনো করছে নীরার সাথে নীরা বৃঝে উঠতে পারছে না,,,, নীরা রুম থেকে বের হয়ে এসে ছাদে এসে চুপ করে দোলনায় বসে ফুপিয়ে ফুপিয়ে কান্না করতে থাকে,,,,
,
একটু পরে নীরা রুমে ঢুকে দেখে নিলয় ফাইল নিয়ে কাজ করছে,,,, নীরা চুপচাপ বাম হাত দিয়ে টুকিটাকি কাজ করছিলো,,,, নীরা ওয়্যারড্রপ থেকে কাথা বের করতে গেলে হাতে খুব ব্যাথা পায়,,, আহ্ চিৎকার করে ফ্লোরে ধুপ করে বসে পরে,,,,, নীরা হাত বের করে দেখে রক্তে ব্যান্ডেজ ভিজে গেছে,,,
,
নিলয় নীরার চিৎকার শুনে ছুটে গিয়ে নীরার সামনে ধপ করে বসে পরে,,,,, এদিকে তিশাও রুমে ঢোকে,,,, নীরার হাতের অবস্থা দেখে ওষুধপত্রের বাক্স নিতে দৌড় দিলো,,,,
,
নীরার চোখ থেকে টপটপ করে পানি পরে যাচ্ছে ব্যাথা যন্ত্রনায়,,,,
,
নিলয়’:::: এটা,,,,, এটা কি করে হলো,,,,,
,
তিশা:::: কলেজ থেকে আসার সময় এক্সিডেন্ড হয়েছে,,,, সর তারাতারি আমি ব্যান্ডেজ করে দেই,,,,
,
নিলয়::: আমি দেই,,,,
,

 

নীরা ::: কিচ্ছু লাগবে না আমি ঠিক আছি,,,, আমাকে নিয়ে অস্থির হবার কিছু নাই,,,, ,,
,
নীরা উঠে চলে আসলো বাহিরে,,,
,
তিশা::” ভাবির যে কি হয় মাঝে মাঝে বুঝিনা,,,কষ্ট পেতে ভালোবাসে নাকি ও,,,
,
নীরা বাহিরে এসে পাশের রুমে ফ্লোরে বসে হাতের ব্যান্ডেজ টা খোলে,,, হাত দেখে নীরা জোরে ফুপাতে শুরু করে,,,, নিলয় এসে নীরার হাত ধরে,,,,,
,
নীরা হাত টা সরিয়ে নিতে গেলে নিলয় ধমক মেরে ওঠে,,, নিলয় নিজের হাতে নীরার ব্যান্ডেজ করে দেয়,, তার পর একটা কেচি এনে নীরার ঘাড় থেকে জামার হাতা কেটে দেয়,,,
,
নীরা::: কি হচ্ছে,,,,,
,
নিলয়::: চুপ,
,
be continue♥♥♥

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here